মঙ্গলবার ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২০
Online Edition

বিভিন্নস্থানে অগ্নিকাণ্ডে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি

সুবর্ণচর (নোয়াখালী) সংবাদদাতা : গতকাল বুধবার ভোর ০৪টার সময় নোয়াখালীর সুবর্ণচর উপজেলার পুর্ব চরবাটা ইউনিয়নের ছমির হাট বাজারে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডে অন্তত ১০টি দোকান পুড়ে ভস্মীভূত হয়েছে। এতে প্রায় ৩০ লক্ষ টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে বলে আশঙ্কা করছেন স্থানীয় বাজার ব্যাবসায়ী ও ক্ষতিগ্রস্থরা।
সকালে সরেজমিনে গেলে স্থানীয় বাজার ব্যাবসায়ী মোঃ ফিরোজ আলম জানান, একটি চা দোকান থেকে আগুনের সুত্রপাত হয় এবং মুহূর্তেই তা চারিদিকে ছড়িয়ে পড়ে। ঘটনায় ফায়ার সার্ভিসকে তাৎক্ষণিক খবর দিলে তারা আসতে দেরি হয়। পরে স্থানীয়দের সহযোগিতায় ভোর ৫টার সময় আগুন নিয়ন্ত্রণে আনতে সক্ষম হন তারা।
ক্ষতিগ্রস্ত দোকানগুলোর মধ্যে একটি পাঠাগার, একটি রেস্টুরেন্ট, একটি ইলেক্ট্রনিক্সসামগ্রীর দোকান, একটি বাইসাইকেলের দোকান, একটি ক্লথ স্টোর, একটি সেলুন দোকান, আগুনের সূত্রপাতকারী চা দোকান এবং স্থানীয় মসজিদের ২টি দোকান রয়েছে বলে জানান স্থানীয়রা।
ঘটনাটি চরজব্বার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা পরিদর্শন করেছেন বলে জানান তিনি। এবং নোয়াখালী সদর ফায়ার সার্ভিসকে খবর দিলে পথ দুরে হওয়ায় তারা আসতে দেরি হয়েছে বলেও জানান তিনি।
নীলফামারী সংবাদদাতা: নীলফামারীর জলঢাকায় অগ্নিকা আটটি পরিবারের ২৫টি ঘর ভস্মীভূত হয়েছে। এতে ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে  প্রায় ১৫ লাখ টাকা।
গত মঙ্গলবার রাত দশটার দিকে জলঢাকা উপজেলা শহরের বারোঘড়ি পাড়া দক্ষিণটারি এলাকায় এই অগ্নিকান্ডের ঘটনা ঘটে। সেখানে আজাহারুল ইসলামের ঘর থেকে  বৈদ্যুতিক সর্ট সার্কিট থেকে আগুনের সুত্রপাত হলে মুহুতের মধ্যে আশপাশে ছড়িয়ে পড়ে।
ক্ষতিগ্রস্তরা হলেন, আল আমিন, আলমগীর হোসেন, মিজানুর রহমান, মজনু হোসেন, রহিদুল ইসলাম, সিরাজুল ইসলাম ও জেলেকা বানু।
জলঢাকা ফায়ার সার্ভিস এ্যান্ড সিভিল ডিফেন্স’র ইনচার্জ মমতাজুল ইসলাম জানান, খবর পেয়ে তাৎক্ষণিকভাবে ঘটনাস্থলে পৌঁছে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনা হয়।
টঙ্গী সংবাদদাতা : টঙ্গীতে কাঠের গুদাম ও বসতঘরে এক অগ্নিকান্ডের ঘটনা ঘটেছে। গতকাল বুধবার সকালে টঙ্গীর কাদেরিয়া টেক্সটাইল মিল এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিসের ৩টি ইউনিট প্রায় ২ ঘন্টা চেষ্টা চালিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে। অগ্নিকান্ডে ২টি বসতঘর ও ৫টি কাঠের গুদাম পুড়ে যায়। ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ জানা যায়নি। তবে ক্ষতিগ্রস্তদের দাবী ১০/১৫ লাখ টাকার মালামাল পুড়ে গেছে।
টঙ্গী ফায়ার সার্ভিসের সিনিয়র স্টেশন অফিসার আতিকুর রহমান জানান, টঙ্গীর চেরাগআলী মার্কেটের দক্ষিণ পাশে কাদেরিয়া টেক্সটাইল মিলের মাঠের পাশে একটি বসত ঘর থেকে আগুনের সূত্রপাত হয়। মুহুর্তে আগুনের লেলিহান শিখা অন্যত্রে ছড়িয়ে পড়ে। এতে ফারুক, আলম ও রিয়াদের ৫টি কাঁঠের গুদাম ও ২টি বসতঘরের মালামাল এবং নগদ টাকা পুড়ে যায়। খবর পেয়ে টঙ্গী ফায়ার সার্ভিসের ৩টি ইউনিট কর্মীরা ঘটনাস্থলে পৌঁছে প্রায় ২ঘন্টা চেষ্টা চালিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে। এরই মধ্যে কাঁঠের গুদাম ও বসতঘরের মালামাল পুড়ে যায়। তবে আগুন লাগার কারণ ও ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ জানা যায়নি।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ