শনিবার ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২০
Online Edition

৭ নবেম্বরের জাতীয় চেতনায় দেশপ্রেমিক জনতার ইস্পাত কঠিন ঐক্যের বিকল্প নাই -এডভোকেট জুবায়ের

বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর কেন্দ্রীয় কর্মপরিষদ সদস্য ও সিলেট মহানগর আমীর এডভোকেট এহসানুল মাহবুব জুবায়ের বলেছেন- জাতীয় জীবনে ৭ নবেম্বর সকল ষড়যন্ত্র রুখে দিয়ে স্বাধীনতা-সার্বভৌমত্ব রক্ষার একটি ঐতিহাসিক গৌরবোজ্জল দিন। ১৯৭৫ সালের এ দিনে গোটা জাতি রক্তস্নাত স্বাধীনতা ও সার্বভৌমত্ব রক্ষায় সৈনিক-জনতা ঐক্যবদ্ধভাবে রাজপথে নেমে এসেছিল। জাতীয় বিপ্লব ও সংহতি দিবস উদযাপনের মাধ্যমে দেশপ্রেমিক জনতা ৭ নবেম্বরকে প্রেরণার উৎস হিসেবে স্মরণ করে। দেশের যে কোন দুর্যোগে জাতিকে ঐক্যবদ্ধভাবে ঝাঁপিয়ে পড়ার শিক্ষা দেয়। জাতির চরম ক্রান্তিলগ্নে স্বাধীনতা ও সার্বভৌমত্বকে ধ্বংস করতে যখন দেশী-বিদেশী চক্র সুদুরপ্রসারী ষড়যন্ত্র শুরু করে। সেই সময়ে ষড়যন্ত্রকারীদের চক্রান্তকে রুখে দেয়ার জন্য অকুতোভয় সৈনিক-জনতা এক ইস্পাত কঠিন ঐক্যে শপথবদ্ধ হয়ে ৭ নবেম্বর ঐতিহাসিক বিপ্লব সংগঠিত করেন।
তিনি গতকাল বুধবার ৭ নবেম্বর জাতীয় বিপ্লব ও সংহতি দিবস উপলক্ষে সিলেট মহানগর জামায়াত আয়োজিত আলোচনা সভায় সভাপতির বক্তব্যে উপরোক্ত কথা বলেন। মহানগর সেক্রেটারি মাওলানা সোহেল আহমদের পরিচালনায় অনুষ্টিত আলোচনা সভায় বক্তব্য রাখেন- মহানগর সহকারী সেক্রেটারি মো: শাহজাহান আলী, এডভোকেট আব্দুর রব ও ড. নুরুল ইসলাম বাবুল, জামায়াত নেতা মাওলানা আব্দুল মুকিত, হাফিজ মশাহিদ আলী, মাওলানা মুজিবুর রহমান। উপস্থিত ছিলেন- জামায়াত নেতা এডভোকেট জামিল আহমদ রাজু ও রফিকুল ইসলাম প্রমুখ।
নেতৃবৃন্দ বলেন- দেশ ও জাতি আজ চরম ক্রান্তিকাল অতিবাহিত করছে। জাতীয় নিরাপত্তা, স্বাধীনতা ও সার্বভৌমত্ব আজ হুমকীর মুখে। ক্ষমতাসীন অবৈধ সরকার মানুষের ভোটাধিকার কেড়ে নিয়ে গণতন্ত্রকে গলাটিপে হত্যা করেছে। বাকশালের প্রেতাত্মাদের ঘৃণ্য থাবায় গোটা জাতি আজ বিক্ষুব্ধ। দেশবাসী যখন একটি অবাধ সুষ্ঠু নির্বাচনের অপেক্ষার প্রহর গুণছে তখন ক্ষমতাসীন সরকার পুনরায় গদি দখল করতে ভোটারবিহীন নির্বাচনের পায়তারা করছে। এমতাবস্থায় ৭  নবেম্বরের বিপ্লবের চেতনায় উজ্জীবিত হয়ে গণতন্ত্র পুনরুদ্ধার, স্বাধীনতা-সার্বভৌমত্ব রক্ষায় দেশপ্রেমিক জনতাকে ঐক্যবদ্ধভাবে এগিয়ে আসতে হবে। প্রেস বিজ্ঞপ্তি

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ