শনিবার ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২০
Online Edition

সোনাতলায় জমি ভাগ-বাটোয়ারাকে কেন্দ্র করে বাড়িঘর ভাংচুর ও লুটপাট

সোনাতলা (বগুড়া) সংবাদদাতা : বগুড়া সোনাতলায় জমিজমা সংক্রান্ত জের ধরে বাড়িঘর ভাংচুর ও লুটপাটের ঘটনা ঘটে।
এসময় বাধা দিতে গেলে প্রতিপক্ষরা হামলা চালিয়ে শিশুসহ দুইজনকে বেগতিক মারধর করে গুরুতর জখম করে। আহত ব্যক্তিরা বর্তমানে সোনাতলা উপজেলা স্বাস্থ্য-কমপ্লেক্সে ভর্তি হয়ে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রয়েছে।
সরোজমিনে গেলে প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, উপজেলার তেকানী চুকাইনগড় ইউনিয়নের উত্তর মহেশপাড়া গ্রামের মৃত সালাম ব্যাপারীর ছেলে আশরাফ ব্যাপারী ও তারই আপন ভাই বাবু ব্যাপারীর মধ্যে দীর্ঘদিন যাবৎ সম্পত্তি ভাগ-বাটোয়ারা নিয়ে পারিবারিক দন্দ চলে আসছিল। বিষয়টি স্থানীয় চেয়ারম্যান, মেম্বারসহ এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ নিয়ে বৈঠকের মাধ্যমে বেশ কয়েকবার মীমাংসার চেষ্টা করেও ব্যর্থ হয় তারা।
এক পর্যায়ে আশরাফ ব্যাপারী তার দখলে থাকা সম্পত্তি রক্ষা করতে বাদি হয়ে নিকটস্থ সোনাতলা থানায় বাবু ব্যাপারীসহ তার পরিবারের ৫-৬ জনের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করেন। আর সেই অভিযোগের উপর ভিত্তি করে সোনাতলা থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ শরিফুল ইসলাম উভয় পক্ষকে মীমাংসার জন্য থানায় ডেকে পাঠান। কিন্তু তাতেও কোন কাজ হয়না, বিবাদী বাবু ব্যাপারী থানার আদেশ অমান্য করে সেখানেও অনুপস্থিত থাকেন। এতে করে উভয় পক্ষের মধ্যে আরো উত্তেজনার সৃষ্টি হয়। এর একপর্যায়ে ক্ষিপ্ত হয়ে বাবু ও তার পরিবারের সদস্যরা আশরাফের দখলকৃত জমিতে লাগানো প্রায় ৭০-৮০ টি দেশি প্রজাতির গাছ নষ্টসহ তার বাড়িতে হামলা চালিয়ে ২টি মোবাইলফোন, অনুঃ ৩ ভরি স¦র্ণালংকার, ১টি বিদেশি লাইটসহ ঘরের বিভিন্ন আসবাবপত্র লুটতরাজ করে নিয়ে যায় এবং খাট, তোষক, চেয়ার, টেবিল, হাড়ি-পাতিল, ঘরের চাল বাড়ির পাশে পুকুর ও মাঠঘাটে ছড়িয়ে ছিটিয়ে ফেলে যায়।
এসময় বাধা প্রদান করতে এগিয়ে গেলে আশরাফের স্ত্রী মুঞ্জুয়ারা, মেয়ে নিপা ও শিশুছেলে শিহাবকে বেগতিক মারধর করে গুরুতর জখম করে হামলাকারীরা। এরপর স্থানীয় লোকজনের সহযোগিতায় গুরুতর অবস্থায় তাদেরকে স্থানীয় হাসপাতালে নিয়ে ভর্তি করা হয়।
ঘটনার খবর পেয়ে সোনাতলা থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ শরিফুল ইসলামের নির্দেশে এসআই মানিক সঙ্গিয় ফোর্স নিয়ে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনেন।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ