বৃহস্পতিবার ০২ জুলাই ২০২০
Online Edition

অবিলম্বে সংসদ ভেঙ্গে দিয়ে নির্দলীয় নিরপেক্ষ সরকার গঠন করতে হবে -মাওলানা মোহাম্মদ ইসহাক

রাজনৈতিক সংকট উত্তরণে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের সাথে সরকারের অনুষ্ঠিতব্য সংলাপকে স্বাগত জানিয়ে খেলাফত মজলিসের আমীর মাওলানা মোহাম্মদ ইসহাক বলেছেন, আশাকরি সরকার সংকটের গভীরতা অনুধাবন করতে পেরেছে। এ জন্যে শেষ সময়ে এসে সংলাপে সম্মত হয়েছে। তাই কোন রকম কূটকৌশলের আশ্রয় না নিয়ে নির্দলীয় নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে অবাধ ও সুষ্ঠু নির্বাচনসহ ৭ দফার ভিত্তিতে অনুষ্ঠিতব্য সংলাপে ঐক্যফ্রন্ট তথা বিরোধী রাজনৈতিক দলসমূহের দাবীসমূহ মেনে নিয়ে অবিলম্বে জাতীয় সংসদ ভেঙ্গে দিয়ে একটি নির্দলীয় নিরপেক্ষ সরকার গঠন করা হবে। রাজনৈতিক ও হয়রানিমূলক সকল মামলা প্রত্যাহার করে রাজবন্দীদের মুক্তি দেয়া হবে। নির্বাচনে লেভেল প্লেয়িং ফিল্ড তথা সবার জন্যে সমান সুযোগ নিশ্চিত করা হবে। খেলাফত মজলিসের কেন্দ্রীয় নির্বাহী পরিষদের বৈঠকে তিনি এ কথা বলেন।
গত মঙ্গলবার সন্ধ্যা সাড়ে ৬টায় সংগঠনের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে আমীরে মজলিস মাওলানা মোহাম্মদ ইসহাকের সভাপতিত্বে ও মহাসচিব ড. আহমদ আবদুল কাদেরের পরিচালনায় অনুষ্ঠিত বৈঠকে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন সংগঠনের নায়েবে আমীর মাওলানা সৈয়দ মজিবর রহমান, মাওলানা সাখাওয়াত হোসাইন, যুগ্মমহাসচিব- মাওলানা মুহাম্মদ শফিক উদ্দিন, এডভোকেট জাহাঙ্গীর হোসাইন, মুহাম্মদ মুনতাসির আলী, সাংগঠনিক সম্পাদক- মাওলানা আহমদ আলী কাসেমী, অধ্যাপক আবদুল হালিম, অধ্যাপক মো: আবদুল জলিল, অধ্যাপক কে এম আলম, মাওলানা তোফাজ্জল হোসেন মিয়াজী, মাওলানা আজীজুল হক প্রমুখ।
বৈঠকে সাজানো মামলায় বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়াকে করাদন্ডের রায়কে রাজনৈতিক উদ্দেশ্য প্রণোদিত ও ন্যায়বিচারের পরিপন্থী উল্লেখ করে বেগম খালেদা জিয়ার অবিলম্বের নিঃশর্ত মুক্তি দাবী করা হয়। এ বিষয়ে আরো বলা হয়, আসলে আসন্ন জাতীয় সংসদ নির্বাচনের পূর্বে বিভিন্ন সাজানো মামলায় বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়াকে একের পর এক সাজা প্রদান তাঁকে নির্বাচনের বাইরে রাখার নীলনক্সারই অংশ। বাংলাদেশের একজন জনপ্রিয় নেত্রী বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে কারারুদ্ধ রেখে সরকার নির্বাচনী বৈতরণী পার হতে চায়। এভাবে খালেদা জিয়াসহ বিরোধী রাজনৈতিক নেতাকর্মীদের কারাগারে রেখে নির্বাচন করলে তা কোনভাবেই গ্রহনযোগ্য হবে না। প্রেসবিজ্ঞপ্তি।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ