বুধবার ১৫ জুলাই ২০২০
Online Edition

রাঙ্গুনিয়া শেখ রাসেল এভিয়ারি পার্কের ক্যাবল কার চালু

রাঙ্গুনিয়া-কাপ্তাই (চট্টগ্রাম) সংবাদদাতা : প্রাকৃতিক দূর্যোগে অচল হয়ে পড়া রাঙ্গুনিয়া শেখ রাসেল এভিয়ারি এন্ড ইকো পার্কের ক্যাবল কার রোপওয়ে) দেড় বছর পর পুনরায় চালু করা হয়েছে।  গত শনিবার সাবেক পরিবেশ ও বনমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ এমপি ক্যাবল কার উদ্বোধন করেন। এসময় উপস্থিত ছিলেন চট্টগ্রাম বিভাগীয় বন কর্মকর্তা (ডিএফও) মোজাম্মেল হক শাহ চৌধুরী, রাঙ্গুনিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. মাসুদুর রহমান, পৌরসভা মেয়র আলহাজ্ব শাহজাহান সিকদার, রাঙ্গুনিয়া রেঞ্জ কর্মকর্তা প্রহলাদ চন্দগু রায়, রাঙ্গুনিয়া মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ইমতিয়াজ মো. আহসানুল কাদের ভুঞা, উত্তর জেলা আওয়ামী লীগের স্বাস্থ্য বিষয়ক সম্পাদক ও চন্দগুঘোনা ইউপি চেয়ারম্যান আলহাজ ইদিগুছ আজগর, উপজেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক ইঞ্জিনিয়ার সামশুল আলম চৌধুরী, সাংগঠনিক সম্পাদক আকতার খান, সরফভাটা ইউপি চেয়ারম্যান শেখ ফরিদ উদ্দিন চৌধুরী, চন্দগুঘোনা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক জালাল উদ্দিন, সাংগঠনিক সম্পাদক মো. ফোরকান সহ উপজেলা-ইউনিয়ন কৃষকলীগ, স্বেচ্ছাসেবকলীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগ নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। ইকো পার্কের কর্মরত ফরেষ্টার মো. হাসিবুর রহমান বলেন, রাঙ্গুনিয়া রেঞ্জের কোদালা বিটের আওতাধীন ২০১০ সালে ৫২০ একর বনভূমির উপর শেখ রাসেল এভিয়ারী ইন্ড ইকো পার্ক গড়ে তোলা হয়েছে। পার্কের অভ্যন্তরে কৃত্রিম হ্রদ, ২ দশমিক ৪ কিলোমিটার দুরত্বের ১২টি ক্যাবল কার (রোপওয়ে), দেশী-বিদেশী পাখির মিনি চিড়িয়াখানা, বিনোদন প্রেমীদের সবুজ পাহাড়ের কোলে বসার তোরন সহ বিনোদন কেন্দ্রিক বিভিন্ন স্থাপনা নির্মাণ করা হয়েছে। সৌন্দর্যে ঘেরা পার্কে দেশী-বিদেশী অনেক পর্যটকদের আগমনে পুরো এলাকা মুখরিত হয়। ক্যাবল কার চালু হওয়ায় টুরিষ্ট্যরা মনভরে উপর থেকে সবুজ পাহাড় উপভোগ ও অনায়াসে ঘুরতে পারবে। রাঙ্গুনিয়া রেঞ্জ কর্মকর্তা ও ইকো পার্কের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) প্রহলাদ চন্দগু রায় বলেন, ২০১৭ সালের ১৭ জুন প্রাকৃতিক দুর্যোগের কারনে ইকো পার্কের ক্যাবল কারের টাওয়ার ব্যাপক ক্ষতিগ্রস্ত হয়। যার ফলে এক বছর ৯ মাস ক্যাবল কার বন্ধ রাখা হয়। জলবায়ূ ফান্ড থেকে ৪ কোটি ৬৫ লাখ টাকা ব্যয়ে পার্কের রেষ্ট হাউস, ৪,৫,৬ নং টাওয়ার মেরামত, ৬ নং পাখির খাঁচা, ৩নং লেক মেরামত করা হয়। আপাতত ৬টি ক্যাবল কার চালু রেখে পরবর্তীতে মেরামত শেষে পর্যায়ক্রমে সবগুলো চালু করা হবে বলে রেঞ্জ কর্মকর্তা জানিয়েছেন।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ