শনিবার ০৪ জুলাই ২০২০
Online Edition

দেশে আইনের শাসন ও গণতন্ত্র পুনরুদ্ধারে যুবদলকে অগ্রণী ভূমিকা রাখতে হবে

খুলনা : বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী যুবদলের ৪০তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে গতকাল রোববার বিকেলে খুলনা বিএনপির দলীয় কার্যালয়ের সামনে জেলা যুবদলের যুব সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখছেন জেলা বিএনপির সভাপতি এডভোকেট এসএম শফিকুল আলম মনা

খুলনা অফিস : সারাদেশের ন্যায় খুলনায় নানা আনুষ্ঠানিকতায় বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী যুবদলের ৪০তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী রোববার বিকেল সাড়ে ৩টায় খুলনা বিএমপি’র দলীয় কার্যালয়ের সামনে খুলনা জেলা যুবদলের সভাপতি এসএম শামীম কবিরের সভাপত্বিতে ও সাধারণ সম্পাদক ইবাদুল হক রুবায়েদের পরিচালনায় শুরু হয়। সমাবেশে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন খুলনা জেলা বিএনপির সভাপতি এডভোকেট এসএম শফিকুল আলম মনা, বিশেষ অতিথি ছিলেন খুলনা জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক আমির এজাজ খান, সিনিয়র সহ-সভাপতি গাজী আব্দুল হক, সহ-সভাপতি মনিরুজ্জামান মন্টু, প্রধান বক্তা এস এম মনিরুল হাসান বাপ্পী। 

সমাবেশ স্থলে জেলা, উপজেলা, পৌর যুবদলসহ দলের নেতাকর্মীরা দুপুর ১টার পর থেকেই মিছিল সহকারে বেগম খালেদা জিয়া ও আগামীর রাষ্ট্রনায়ক তারেক রহমানের ছবি, প্যানা, ফেস্টুন নিয়ে আসে। সমাবেশের শুরুতেই বেলুন ও শান্তির প্রতীক কবুতর উড়িয়ে দিয়ে প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী আনুষ্ঠানের উদ্ভোধন করেন অতিথিরা। সমাবেশে নেতৃবৃন্দ বলেন, দেশের যে কোন কঠিন সময়ে যুবদল জনগণের সাথে আন্দোলন সংগ্রামে সর্বাগ্রে অংশগ্রহণ করেছে। বর্তমানে স্বৈরাচারী আওয়ামী লীগ সরকারের হাত থেকে দেশে আইনের শাসন ও গণতন্ত্র পুনরুদ্ধারে যুবদলকে অগ্রণী ভূমিকা রাখতে হবে। 

নেতৃবৃন্দ আরো বলেন, বাকশালী আওয়ামী লীগ সরকার দেশ থেকে গণতন্ত্রকে নির্বাসনে পাঠিয়েছে। দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে সাজানো পাতানো মামলায় বন্দী করে রেখে ও জননেতা তারেক রহমান কে সাজা দিয়ে সরকার তার নীলনকশা বাস্তবায়ন করতে চায়। হত্যা, গুম, নির্যাতন, হয়রানিমুলক মিথ্যা মামলা দিয়ে বিএনপি, অংগ সংগঠনের নেতাকর্মীদের ধ্বংস করার সড়যন্ত্র করে যাচ্ছে। শহীদ জিয়ার আদর্শে গড়া যুবদলের সকল নেতাকর্মীকে জনগণের অধিকার আদায়ের সংগ্রামে আত্মনিয়োগ করতে হবে। সমাবেশে অন্যান্যর মধ্যে বক্তব্য দেন জেলা বিএমপি নেতা কামরুজ্জামান টুকু, নাজমুস সাকিব পিন্টু, মুর্শিদুর রহমান লিটন, অহেদুজ্জামান রানা, তৈয়বুর রহমান, আব্দুল মান্নান মিস্ত্রী, সুলতান মাহমুদ, নুরুল আমিন বাবুল, অধ্যাপক আইয়ুব আলী, জাফরী নেওয়াজ চন্দন, হাফিজুর রহমান, আতাউর রহমান রুনু, গোলাম মোস্তফা তুহিন, রফিকুল ইসলাম বাবু, মোঃ জাবেদ, আ. মান্নান খান, গাজী আ. হালিম, আবুল কালাম লষ্কর, জেলা যুবদল সহ-সভাপতি মোল্লা আইয়ুব হোসেন, সিনিয়র যুগ্ম সম্পাদক নাদিমুজ্জামান জনি, মোল্লা -মায়ন কবির, শফিকুল ইসলাম বাচ্চু, অমল গোলদার, এজাজুর রহমান শামীম, মোল্লা মশিউর রহমান, আনোয়ার হোসেন বাবু, কুদরতে এলাহী স্পিকার, মোল্লা রিয়াজুল ইসলাম, ওয়াহিদুজ্জামান সোহাগ, জহিরুল ইসলাম জহির, আতিক নেওয়াজ চঞ্চল, শেখ শাহিনুর রহমান শাহীন, মনজুর আরফিন, এস এম আক্তার হোসেন, আজাদ বিশ্বাস, আবু সাঈদ বিশ্বাস, মাসকুর রহমান ফ্রান্স, জি এম রাসেল ইসলাম, আরিফুজ্জামান দুলু, সন্দীপ চট্টোপাধ্যায়, শেখ শামীম, জাহিদুর রহমান শোভন, মুমিনুল ইসলাম সাগর, ইয়ারুল ইসলাম রিপন, সরোয়ার হোসেন মাতব্বর, আফজাল ফরাজী, মোঃ রাসেল আহম্মেদ নাসিম, এইচ এম মাসুদুল ইসলাম মাসুম, হাবিবুর রহমান বেলাল, আবুল কালাম আজাদ, সরদার বেলাল হোসেন, আব্দুল হাই শেখ, মো. নূর ইসলাম মোল্লা, পীর আলী, আসিফুর রহমান কিশোর, ফরিদুর ইসলাম, ফজলু রহমান, মো. পারভেজ হোসেন রনি, শহিদুল ইসলাম ছোট্র, সেলিম চৌধুরী, মো. ওবায়দুল্লাহ, কবির হোসেন, আবুল কালাম, কে এম মোকারম হোসেন, মোল্লা মাহামুদুল হাসান মিঠু, রুবায়েত হাসান রাসেল, মিরাজুল রহমান, আ. রাজ্জাক কচি, শেখ ফারুক হোসেন, রুবেল মীর, সাহেব আলী, আবুবক্কর সিদ্দিকী নিরু, এম এ হাসান, মশিউর রহমান লিটন, তৌহিদুজ্জামান মুকুল, শরিফুল ইসলাম, আবু তালেব, বাহাদুর মুন্সী, ইমরান হোসেন, আমিনুল ইসলাম বুলবুল, হেমায়েত রশিদ খান, মোহতাসিম বিল্লাহ, মাহমুদুর রহমান চয়ন প্রমূখ।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ