রবিবার ২০ সেপ্টেম্বর ২০২০
Online Edition

নতুন চাঁদের আলো

বেইজিং থেকে প্রকাশিত সরকারি চায়না ডেইলির খবরে প্রকাশ : রাস্তার আলোর বিকল্পের খোঁজে এবং শহরাঞ্চলে বিদ্যুতের খরচ কমানোর লক্ষ্যে ২০২০ সালের মধ্যে কৃত্রিম চাঁদ তৈরি করতে চলেছে চিন। দৈনিকটি আরও জানায়, দক্ষিণ-পশ্চিম চিনের সিচুয়ান প্রদেশের চেংদু শহরে এ নতুন চাঁদ তৈরি হচ্ছে। আকাশের প্রকৃত চাঁদের পাশাপাশি আলো দেবে এ কৃত্রিম চাঁদ। বলা হয়েছে, এ চাঁদ থেকে বিচ্ছুরিত আলো আসল চাঁদের চেয়ে আট গুণ বেশি উজ্জ্বল হবে। চায়না দৈনিকটিকে দেয়া এক সাক্ষাতকারে কৃত্রিম চাঁদ প্রকল্পের প্রধান উ শুনফেং বলেন, ২০২০ সালে পরীক্ষামূলকভাবে মহাকাশে কৃত্রিম চাঁদ পাঠানো হবে। এ পরীক্ষা সফল হলে ২০২২ সালে আরও তিনটি নতুন চাঁদ মহাকাশে পাঠানো হবে।
প্রথমটি পরীক্ষামূলক হলেও পরের তিনটি পৌর পরিসেবা ও বাণিজ্যিক সম্ভাবনার কথা মাথায় রেখেই পাঠানো হবে। সূর্যের আলো প্রতিফলিত করে কৃত্রিম চাঁদ শহরাঞ্চলে রাস্তার আলোর বিকল্প হয়ে উঠতে পারে। এর ফলে যদি ৫০ বর্গ কিলোমিটার অঞ্চল আলোকিত হয়ে যায়, তাহলে কেবল চেংদু শহরে প্রতিবছর ১৭০ মিলিয়ন মার্কিন ডলার বিদ্যুতের খরচ বাঁচানো সম্ভব হবে। এছাড়া কোনও প্রাকৃতিক বিপর্যয়ের সময় সংশ্লিষ্ট অঞ্চলে বিদ্যুৎসংযোগ না থাকলেও উদ্ধারকাজে আলোর সমস্যা হবে না। উল্লেখ্য, এর আগে নব্বইয়ের দশকে যে অঞ্চলে সাধারণত সূর্যের আলো পৌঁছে না সেখানে রাশিয়ার বিজ্ঞানীরা মহাকাশে বিশালাকার আয়না স্থাপন করে তার মাধ্যমে সূর্যালোক প্রতিফলিত করে তা কাজে লাগান। বলা যায়, চিনের বিজ্ঞানীরা তারই উন্নততর ব্যবস্থা করতে চাইছেন।
চিনের নতুন চাঁদের নির্মাণ সম্পন্ন হলে আকাশ আর অন্ধকারাচ্ছন্ন থাকবে না। প্রায় দিনের মতোই উজ্জ্বল হয়ে থাকবে রাতও। ইলেক্ট্রিক বাতির ব্যবহার কমে যাবে। রাতের বেলা হেডলাইট জ্বালিয়ে চালাতে হবে না বাস, ট্রাক, ট্রেন। দিনের মতোই যানবাহন, কলকারখানা, হাটবাজার সবই চালু থাকবে নতুন চাঁদের আলোয়। দরকার হলে কেউ ঘুমোতে যাবেন, না হয় মাঠেঘাটে, হাটেবাজারে দিব্যি কাজ চালিয়ে যাবেন। এতে কর্মঘণ্টা যেমন বাড়বে, তেমনই বৃদ্ধি পাবে উৎপাদনও। অন্যদিকে সূর্যালোকের মতো তীব্র তাপসম্পন্নও হবে না নতুন চাঁদের আলো। বরং স্নিগ্ধ-শীতল আলোর মাঝে দিব্যি কাজ চালিয়ে যেতে পারবেন মাঠের কৃষক, শহুরে কারখানার শ্রমিক এবং হাটবাজারের ব্যবসায়ী ও দোকানদার। অতএব চিনাবিজ্ঞানীদের নতুন চাঁদ আবিষ্কারের প্রচেষ্টা সফল হোক। সুন্দর হোক।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ