শুক্রবার ২১ জানুয়ারি ২০২২
Online Edition

গাছের সাথে এ কেমন শত্রুতা?

চৌগাছা (যশোর) সংবাদদাতা: পূর্ব শত্রুতার জেরে এক কৃষকের ৪২ শতক জমিতে লাগানো ৫০৪টি পেয়ারা গাছ কেটে সাবাড় করে দেয়ার ঘটনা ঘটেছে। রোববার দিবাগত রাতে ঝিনাইদহের মহেশপুর উপজেলার মান্দারবাড়িয়া গ্রামের মাঠে এ ঘটনা ঘটিয়েছে পাষাণ হৃদয়ের অজ্ঞাত দূর্বৃত্তরা। এ ঘটনায় ওই কৃষক মহেশপুর থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি করেছেন।

ঘটনার স্বীকার কৃষক আনোয়ার হোসেন উপজেলার মান্দারবাড়িয়া গ্রামের ফজলুর রহমানের ছেলে। অশ্রুসজল চোখে তিনি জানান, আমি দির্ঘদিন প্রবাসে ছিলাম। সেখান থেকে এসে গ্রামের মাঠের ৪২ শতকের ওই জমিটি ক্রয় করে বাণিজ্যিক ভিত্তিতে পেয়ারা চাষের উদ্দ্যেশ্যে ৫০৪টি গাছ লাগাই। গাছগুলিতে পেয়ারাও ধরেছে। কয়েক দিনের মধ্যেই সেগুলি বাজারজাত করা যেত। অথচ আমার পেয়ারা গাছগুলির সাথে এমন শত্রুতা করা হলো। তিনি বলেন আমার কারো সাথে ব্যক্তিগত শত্রুতা নেই। তবে পরিবারের শত্রুতা থাকলেও থাকতে পারে। তাই বলে এভাবে গাছগুলি কেটে দেবে?  সোমবার সকালে সরেজমিনে মাঠে গিয়ে দেখা যায়, কৃষক আনোয়ারের রোপণকৃত ৫০৪টি পেয়ারা গাছের মধ্যে হাতেগোনা কয়েকটি গাছ (যেগুলিতে পেয়ার ধরেনি/রোগাক্রান্ত) অবশিষ্ট রয়েছে। আনোয়ার হোসেন বলেন, এ বিষয়ে থানায় অভিযোগ করেছি। মান্দারবাড়িয়া ইউপির ওয়ার্ড মেম্বার স্বপন হোসেন ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন বিষয়টি খুবই দুঃখজনক। আমি সংবাদ পেয়ে সকালেই ওই ক্ষেতে গিয়েছি। একটি গাছ মানুষ করা আর একটি সন্তান মানুষ করা একই কথা। কারো সাথে ব্যক্তি শত্রুতা থাকতেই পারে। সেকারণে এভাবে গাছগুলি কেটে সাবাড় করতে হবে এটি কোন ভাবেই সমর্থনযোগ্য হতে পারে না। মহেশপুর থানাও ওসি রাশেদুল ইসলাম অভিযোগের সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ