শুক্রবার ২১ জানুয়ারি ২০২২
Online Edition

ফরিদপুরে কৃষকের লাশ উদ্ধার

ফরিদপুর সংবাদদাতা: ফরিদপুরের সদর উপজেলার মাচ্চর ইউনিয়নে এক কৃষকের লাশ উদ্ধার করেছে কোতয়ালী থানা পুলিশ। 

নিহত ওই কৃষকের নাম হামেদ খাঁ(৫২)। সে পরানপুর ব্যাপারী বাড়ী গ্রামো মৃত মাছিম খাঁর পুত্র। 

নিহতের স্ত্রী কমেলা খাতুন বলেন, গত সোমবার দিবাগত রাত ৯টার দিকে তার স্বামীকে কেবা কারা বাড়ী থেকে ডাক দিয়ে নিয়ে যায় এরপর রাতে সে আর বাড়ী ফিরে আসে নাই। মঙ্গলবার সকালে আমি নিজে তাকে খুজঁতে বের হলে আমার এক প্রতিবেশী খবর দেয় বাড়ীর পাশে মেহগনি বাগানে তার লাশ পরে আছে। এরপর সেখানে গিয়ে আমার স্বামীর লাশ পড়ে থাকতে দেখি। তিনি বলেন প্রতিপক্ষের লোকজন আমার স্বামীকে মেরে ফেলে রেখে গেছে। 

নিহতের ফুফাতো ভাই মোঃ আকিদুল ইসলাম বলেন, গত ১৬ অক্টোবর মঙ্গলবার আমার ছেলে সোহানের সাথে প্রতিপক্ষ পাশের গ্রামের খালপাড় এলাকার হাসান মন্ডলের সুলতারপুর এলাকায় একটি পূজা মন্ডপে গোন্ডগোল হয়। এ ঘটনার পর থেকে হাসান মন্ডলের বড় ভাই রাসেল মন্ডল শহর থেকে লোকজন এনে এলাকায় এসে বিভিন্ন ধরনের হুমকি ধামকি দিচ্ছিলো। এ ঘটনায় এলাকায় লোকজনকে জানাই এছাড়া গত সোমবার থানায় গিয়ে একটি লিখিত অভিযোগ দিই। এরপরে সোমবার দিবাগত রাত ৯টার দিকে আমার ভাইকে বাড়ী থেকে ডাক দিয়ে নিয়ে যায়। ওই রাতে সে আর বাড়ী ফিরে আসে নাই। মঙ্গলবার বাড়ীর পাশে হারেজের মেহগনি বাগানে তার লাশ পাওয়া যায়। তিনি বলেন তার মাথায় ইনজেকশনের বিভিন্ন দাগ রয়েছে। আমরা ধারনা করছি তাকে বিষ প্রয়োগে মেরে বাড়ীর পাশে বাগানে ফেলে রেখেছে প্রতিপক্ষরা। 

এ ব্যাপারে অভিযুক্ত রাসেলের বাড়ী গিয়ে তাকে পাওয়া যায়নি। তবে এ বিষয়ে তার মা রাশেদা বেগম বলেন আমার ছেলে এ ঘটনায় জরিত নয়। তাকে শত্রুতা বশত লোকজন তার নাম বলছে।   

ফরিদপুর মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ এএফএম নাসিম জানান, মঙ্গলবার সকালে পুলিশ খবর পেয়ে তার বাড়ীর পাশে হারেজের মেহগনি বাগানের ভিতর থেকে লাশটি উদ্ধার করা হয়েছে। তিনি বলেন এলাকার দুটি গ্রামের দুই যুবক হাসান মন্ডল ও সোহানের সাথে কয়েকদিন আগে পূজার ভিতর একটি মারামারির ঘটনা ঘটে। তাকে কেন্দ্র করেই পরানপুর ব্যাপারীবাড়ী ও খালপাড় এলাকা বিভক্ত ছিলো। ধারনা করা হচ্ছে এমন ঘটনা থেকে এ ঘটনা ঘটে থাকতে পারে। তবে সব কিছু তদন্ত শেষে বলা যাবে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ