শুক্রবার ২১ জানুয়ারি ২০২২
Online Edition

ভাণ্ডারিয়ায় জমি সংক্রান্ত বিরোধে প্রতিপক্ষকে ফাঁসাতে নারী নির্যাতন মামলা

ভাণ্ডারিয়া (পিরোজপুর) সংবাদদাতা: পিরোজপরের ভাণ্ডারিয়ায় জমি জমা সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে প্রতিপক্ষকে ফাঁসাতে নারী ও শিশু নির্যাতন মামলা দায়েরের অভিযোগ পাওয়া গেছে। 

ভূক্তভোগীরা যানায় উপজেলার ইকড়ি ইউনিয়নের মৃতঃ আঃ হাকিম মুন্সির ছেলে আঃ খালেক মুন্সি ও আমজাদ মুন্সির সাথে মৃত আঃ করিম মুন্সির ছেলে পার্শবর্তী আলোম আলোম মুন্সির দির্ঘ দিন যাবত জমি জমা সংক্রান্ত বিরোধ চলে আসছিল। এর জের ধরে গত ২ সেপ্টেম্বর সকালে পক্ষ বিপক্ষরা কলহে জড়ালে উভয় পরিবার থেকে আহতরা হাসপাতালে চিকিৎসা নেয়। এ ঘটনায় আঃ খালেক মুন্সি ও আমজাদ মুন্সির পরিবারের পক্ষ থেকে মারধর ও লুটপাটের অভিযোগে এবং আলোম মুন্সি তার নাতি মোসাঃ সুরাইয়াকে যৌন নির্যাতন ও ধর্ষণ চেষ্টার অভিযোগে ভা-ারিয়া থানায় গত ৫ সেপ্টেম্বর অভিযোগ দায়েরের প্রেক্ষিতে পুলিশের তদন্তে জমি জমা সংক্রান্ত বিরোধের বিষয়টি সামনে চলে আসে এবং যৌন নির্যাতন ও ধর্ষণ চেষ্টার অভিযোগে মিথ্যা প্রমাণিত হওয়ায় উভয় পক্ষ গত ২ অক্টোবর সালিশ মিমাংসার মাধ্যমে ব্যাপারটি নিষ্পত্তি করবে বলে থানা পুলিশ ও এলাকার জন প্রতিনিধিদের কাছে লিখিত ভাবে স্বিকার করে। এরপরে ২ অক্টোবরে খালেক মুন্সি ও আমজাদ মুন্সির পরিবার শালিশ মিমাংসায় আসলেও আলোম মুন্সিরা সেখানো উপস্থিত না হয়ে গত ১১ অক্টোরর নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইবুন্যাল পিরোজপুর এ একটি পিটিশন মামলা (নারী ও শিশু ) নং ৮১/২০১৮ দায়ের করেন। এর তদন্তের দায়িত্ব উপজেলা নির্বহী কর্মকর্তা শাহিনা আক্তার সুমির।  কিন্ত এ মামলাটি করেও ক্ষান্ত হয়নি আলোম মুন্সির পরিবার । তারা খালেক মুন্সি ও আমজাদ মুন্সির পরিবারের সদস্য মনির হোসেন (২২), কামাল মুন্সি(২৩), বেলাল মুন্সি (৩০) ও রফিকুল মুন্সি (৩০) সহ তাদের পরিবারের সদস্যদের বাড়িতে গিয়ে এবং পথে ঘাটে অকথ্য ভাষায় গালী গালাজ সহ মানষিক ও সামাজিক ভাবে নির্যাতন করে বেড়াচ্ছে। আলো মুন্সি, মেয়ে মায়া বেগম, জামাই ওলিউর রহমান, স্ত্রী রওশন আরা বেগম, নাতি সুরাইয়া আক্তার, ছেলে শিমুল মুন্সি ও তার স্ত্রী আরজু বেগম, ভগ্নিপতি আলমগীর হাওলাদার, পার্শবর্তী নজরুল আকন, ইদ্রিস হাওলাদার ও শহীদ আকন সহ তাদের সঙ্গিও ব্যক্তিদের অত্যাচারে খালেক মুন্সি ও আমজাদ মুন্সির পরিবার এখন পালিয়ে বেড়াচ্ছে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ