সোমবার ২৪ জানুয়ারি ২০২২
Online Edition

পাঁচ কোটি টাকার ইয়াবা উদ্ধার ॥ গ্রেফতার ১০

চট্টগ্রাম ব্যুরো: চট্টগ্রাম কক্সবাজারে পৃথক পৃথক অভিযান চালিয়ে র‌্যাব ও পুলিশ প্রায় ৫ কোটি টাকা মূল্যের ১,২৬,৯৭০ পিস ইয়াবা ট্যাবলেট উদ্ধার ও ১০ জনকে গ্রেফতার করেছে।

সূত্রের খবর, কক্সবাজার জেলার সদর থানাধীন এলাকায় অভিযান চালিয়ে ৮২,০০০ পিস ইয়াবা, ১ টি পিকআপ ও ১ টি প্রাইভেটকারসহ ৪ জন মাদক ব্যবসায়ীকে র‌্যাব-৭ গ্রেফতার করেছে। র‌্যাব-৭, চট্টগ্রাম গোপন সংবাদের মাধ্যমে জানতে পারে যে, কতিপয় মাদক ব্যবসায়ী কক্সবাজার হতে একটি পিকআপ এবং একটি প্রাইভেটকার যোগে বিপুল পরিমাণ ইয়াবা ট্যাবলেট নিয়ে চট্টগ্রামের দিকে আসছে। উক্ত সংবাদের ভিত্তিতে গত বুধবার বিকালে র‌্যাব-৭ এর একটি দল কক্সবাজার জেলার সদর থানাধীন কক্সবাজার টু চট্রগ্রাম আঞ্চলিক মহাসড়কের বাকখালী ব্রিজের পূর্ব পার্শ্বে বাংলা বাজার জিসি, খুরুশকুল জিসি ভায়া পিএম খালী ইউপি অফিস সড়ক এর মাথায় পাকা রাস্তার ওপর একটি বিশেষ চেকপোস্ট স্থাপন করে গাড়ি তল্লাশি শুরু করে। এ সময় কক্সবাজার হতে চট্টগ্রামগামী একটি পিকআপ এবং পিকআপের পিছন পিছন আসা একটি প্রাইভেটকার এর গতিবিধি সন্দেহজনক মনে হলে র‌্যাব সদস্যরা গাড়ি দুইটিকে থামানোর সংকেত দিলে তাৎক্ষণিক গাড়ি দুইটি রাস্তার পাশে থামিয়ে গাড়ি থেকে নেমে কিছু লোক দৌড়ে পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করলে র‌্যাব সদস্যরা ধাওয়া করে মেহেদী হাসান জাকির (৩০), পিতা- ফজলুল হক, গ্রাম- শাহ-দৌলতপুর, থানা- বুড়িচং, মোঃ লোকমান হোসেন (২২), পিতা-আতিকুল ইসলাম, গ্রাম- শাহপুর, ৬নং ওয়ার্ড, থানা-কোতয়ালী, মোঃ লিটন মিয়া (৩৪), পিতা- মোঃ শরাফত আলী, গ্রাম- রামধনপুর, ৭নং ওয়ার্ড, থানা- দক্ষিণ সদর এবং মোঃ সুমন (৩২), পিতা- মৃত হুমায়ন কবির, গ্রাম- রামধনপুর, ৭নং ওয়ার্ড, থানা- দক্ষিণ সদর, সর্বজেলা- কুমিল্লা’দেরকে আটক করে। পরবর্তীতে আটককৃত আসামীদের ব্যাপক জিজ্ঞাসাবাদে পিকআপটি তল্লাশি করে পিকআপের মধ্যে তৈলের ট্যাংকির ভেতরে অভিনব কায়দায় লুকানো অবস্থায় ৮২,০০০ পিস ইয়াবা ট্যাবলেট উদ্ধারসহ আসামীদেরকে গ্রেফতার করা হয় এবং উক্ত পিকআপ (চট্র মেট্রো ন-১১-৬৯২৭) ও প্রাইভেটকারটি (ঢাকা মেট্রো গ ২২-৮১৭০) জব্দ করা হয়। আসামীদেরকে জিজ্ঞাসাবাদের জানা যায়, তারা দীর্ঘদিন যাবত উক্ত পিকআপ এবং প্রাইভেটকারটি ব্যবহার করে কক্সবাজার থেকে ইয়াবা ট্যাবলেট সংগ্রহ করে চট্টগ্রামসহ দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে পাচার করে আসছে। উদ্ধারকৃত ইয়াবা ট্যাবলেটের আনুমানিক মূল্য ৪ কোটি ১০ লাখ টাকা ও জব্দকৃত পিকআপের আনুমানিক মূল্য ২৫ লাখ টাকা এবং প্রাইভেটকারের আনুমানিক মূল্য ৩০ লাখ টাকা। গ্রেফতারকৃত আসামী এবং উদ্ধারকৃত মালামাল সংক্রান্তে পরবর্তী আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণের নিমিত্তে কক্সবাজার জেলার সদর থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে।

র‌্যাব-৭, চট্টগ্রাম গোপন সংবাদের মাধ্যমে জানতে পারে যে, কক্সবাজার জেলার টেকনাফ থানাধীন হ্নীলা বাসষ্ট্যান্ট এলাকা চম্পা হোটেলের দ্বিতীয় তলার আলমাস সৌর বিদ্যুৎ এর পিছনে ইলেকট্রিক ওয়্যারিং এর দোকানে কতিপয় মাদক ব্যবসায়ী ইয়াবা ট্যাবলেট ক্রয়-বিক্রয়ের উদ্দেশ্যে অবস্থান করছে। উক্ত তথ্যের ভিত্তিতে ২৩ অক্টোবর সকালে ১১টার পর র‌্যাবের একটি দল সেখানে অভিযান চালিয়ে জসিম উদ্দিন (২১), পিতা- আলী আহাম্মদ, গ্রাম- পশ্চিম সিকদার পাড়া (আলীর বাড়ী), পোঃ হ্নীলা, ইমরান হোসেন (১৯), পিতা- আব্দুল মালেক, গ্রাম- নাটমোড়া পাড়া, মোঃ জাবেদ (৩৫), পিতা-মোঃ শাহ আলম, গ্রাম- পশ্চিম পানখালী, সর্ব থানা- টেকনাফ, জেলা- কক্সবাজারদের’কে আটক করে। পরবর্তীতে আটককৃতদের দেহ তল্ল¬াশি করে ১৪,৯৭০ পিস ইয়াবা ট্যাবলেট উদ্ধার করা হয়। উদ্ধারকৃত ইয়াবা ট্যাবলেটের আনুমানিক মূল্য ৭৪ লাখ ৮৫ হাজার টাকা। গ্রেফতারকৃতদের টেকনাফ থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে।

কক্সবাজার জেলার সদর থানাধীন সুগন্ধা বীচ সংলগ্ন হোটেল পালংক্যি লিমিটেড এর ৩য় তলার ২০৭ নম্বর কক্ষে কতিপয় মাদক ব্যবসায়ী ইয়াবা ট্যাবলেট ক্রয়-বিক্রয়ের উদ্দেশ্যে অবস্থান করছে। উক্ত তথ্যের ভিত্তিতে গত ২৩ অক্টোবর দুপুরে র‌্যাবের একটি দল সেখানে অভিযান পরিচালনা করে মোঃ আব্দুর রহিম (২৭), পিতা- নজির আহাম্মদ, গ্রাম- পূর্ব মহেশখালীয়া পাড়া, থানা- টেকনাফ, জেলা- কক্সবাজার’কে আটক করে। ধৃত ব্যক্তির তথ্যে তোশকের ভেতর থেকে ১০,০০০ পিস ইয়াবা ট্যাবলেট উদ্ধারসহ তাকে গ্রেফতার করা হয়। উদ্ধারকৃত ইয়াবা ট্যাবলেটের আনুমানিক মূল্য ৫০ লাখ টাকা। গ্রেফতারকৃতকে কক্সবাজার সদর থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে।

এদিকে বন্দর নগরী চট্টগ্রামের কোতোয়ালী থানাধীন ব্রীজঘাট ফিরিঙ্গীবাজার বিআইডব্লিউটিএ অফিসের পূর্ব পাশে অভিযান চালিয়ে ২০,০০০ পিস ইয়াবা ট্যাবলেট ও ০১টি মিনি ট্রাক (ঢাকা মেট্রো-ন-১৭-৮৪৮২) সহ ০২ আসামীকে গ্রেফতার করেছে মহানগর গোয়েন্দা (বন্দর) পুলিশ। গ্রেফতারকৃতরা হলো- ১) মোঃ আব্দুর রহিম স্বপন (৩০), পিতা-মৃত মজল হক, মাতা-জরিনা বেগম, সাং-দৌলতপুর, মাঝিবাড়ী,থানা-ফেনী সদর, জেলা-ফেনী, ২) মোঃ সোহেল (৩২), পিতা-ফজলুল হক, মাতা-জয়নব, সাং-বেলদির বাজার, পোঃ দাউদপুর, থানা-রুপনগর, জেলা-নারায়ণগঞ্জ। পলাতক আসামী  মোঃ জসিম (৩২), (মিনি ট্রাকের মালিক) পিতা-মকবুল আহাম্মদ, সাং-দৌলতপুর, মাঝিবাড়ী, থানা-ফেনী সদর, জেলা-ফেনী বর্তমানে-শরিফপুর, পোঃ ন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি, থানা-গাজীপুর, জেলা-গাজীপুর। ২৪ অক্টোবর রাতে মহানগর গোয়েন্দা (বন্দর) বিভাগের পুলিশ এ অভিযান চালায়।প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে গ্রেফতারকৃত আসামীদ্বয় জানায়, পলাতক আসামী মোঃ জসিম উদ্ধারকৃত ইয়াবা ট্যাবলেটগুলো ক্রয় করে ফেনী শহরের বিভিন্ন স্থানে বিক্রয় করার জন্য গ্রেফতারকৃত আসামীদ্বয়কে দিয়ে বহন করে আসছিল এবং ইতোপূর্বে গাড়িটি ইয়াবা ট্যাবলেট বহনের কাজে কয়েকবার ব্যবহার করছে বলে স্বীকার করে। গ্রেফতারকৃত ও পলাতক আসামীরা দীর্ঘদিন যাবৎ আইন শৃংখলা বাহিনীর চোখ ফাঁকি দিয়ে কক্সবাজার হতে মিনি ট্রাকের সু-কৌশলে ইয়াবা (মাদকদ্রব্য) বহন করতঃ ফেনী শহরে বিক্রয় করে থাকে। গ্রেফতারকৃত ও পলাতক আসামীদের বিরুদ্ধে কোতোয়ালী থানায় নিয়মিত মামলা রুজু করা হয়েছে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ