শুক্রবার ২১ জানুয়ারি ২০২২
Online Edition

বাংলাদেশের সামনে হোয়াইটওয়াশ করার সুযোগ

স্পোর্টস রিপোর্টার : জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে ওয়ানডে সিরিজ জয় করা বাংলাদেশের জন্য এখন স্বাভাবিক ব্যাপার। ইতোমধ্যে এক ম্যাচ হাতে রেখেই জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে তিন ম্যাচে ওয়ানডে সিরিজ ২-০ ব্যবধানে নিশ্চিত করেছে বাংলাদেশ। আজ সিরিজের তৃতীয় ও শেষ ওয়ানডে। আজ বাংলাদেশ জিতলেই ওয়ানডে সিরিজে হোয়াইটওয়াশ হবে সফরকারী জিম্বাবুয়ে। আর জিম্বাবুয়েকে হোয়াইটওয়াশ করার টার্গেট নিয়ে আজ মাঠে নামবে বাংলাদেশ দল। এর আগে পাঁচ ম্যাচের সিরিজে দু’বার ও তিন ম্যাচের সিরিজে একবার জিম্বাবুয়েকে হোয়াইটওয়াশ করে বাংলাদেশ। তাই চতুর্থবারের মত হোয়াইটওয়াশের লক্ষ্য নিয়েই সিরিজের তৃতীয় ওয়ানডেতে জিম্বাবুয়ের মুখোমুখি হচ্ছে টাইগাররা। অন্যদিকে, সিরিজ হারা সফরকারী জিম্বাবুয়ে আজ শেষ ম্যাচ জিতে হোয়াইটওয়াশ এড়াতে চাইবে। চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে বাংলাদেশ সময় বেলা আড়াইটায় শুরু হবে সিরিজের শেষ ওয়ানডে।

জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে প্রথম দু’টি ম্যাচ জিতে সিরিজ নিশ্চিত দারুণ ফর্মে রয়েছে বাংলাদেশ দল। প্রথম দু’টি ম্যাচেই আধিপত্য বিস্তার করে জিতেছে টাইগাররা। ফলে তৃতীয় ম্যাচে মাঠে নামার আগে বাংলাদেশ দল রয়েছে ফুঁরফুঁরে মেজাজে। অন্য দিকে জিম্বাবুয়ে দলের খেলোয়াড়রা প্রথম দুটি ম্যাচে হেরে অনেকটাই হতাশ। ফলে শেষ ম্যাচে বাংলাদেশ দল ফেভারিট হিসেবেই মাঠে নামবে। অবশ্য বাংলাদেশ দল এখন জিম্বাবুয়ের থেকে পারফরমেন্সে অনেক এগিয়ে থেকেই মাঠে নামে। শুধু পারফরমেন্সই নয়। পরিসংখ্যানেও এগিয়ে থেকে মাঠে নামে বাংলাদেশ। বিশেষ করে নিজেদের মাটিতে বাংলাদেশ দল সব সময়ই জিম্বাবুয়ের জন্য আতঙ্ক। কারণ দেশের মাটিতে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে ৩৮টি ওয়ানডে খেলেছে বাংলাদেশ। এখানেও ২৭ ম্যাচে জিতেছে তারা। ১১টি ম্যাচে হার মানে টাইগাররা। এ ছাড়া এখন পর্যন্ত ৬৯টি ওয়ানডে  ম্যাচে মুখোমুখি হয়েছে বাংলাদেশ ও জিম্বাবুয়ে। এরমধ্যে ৪১ ম্যাচে জয় পেয়েছে বাংলাদেশ। ২৮ ম্যাচে জয় জিম্বাবুয়ে। ফলে পরিসংখ্যানে এগিয়ে থেকেই আজ শেষ ম্যাচে মাঠে নামবে টাইগাররা। এর আগে, রাজধানী ঢাকার মিরপুর শেরে বাংলা জাতীয় স্টেডিয়ামে সিরিজের প্রথম ম্যাচে ইমরুলের সেঞ্চুরিতে ২৮ রানে জিম্বাবুয়েকে হারায় বাংলাদেশ। টস জিতে প্রথমে ব্যাট করে ৫০ ওভারে ৮ উইকেটে ২৭১ রান করে বাংলাদেশ। ইমরুল ১৪০ বলে ১৪৪ ও সাইফউদ্দিন ৫০ রান করেন। জবাবে ৪০ ওভারের মধ্যে ৮ উইকেট হারিয়ে ম্যাচ হারের পথ নিশ্চিত করে ফেলে জিম্বাবুয়ে। শেষ পর্যন্ত সবক’টি ওভার খেলে ৯ উইকেটে ২৪৩ করে সফরকারীরা। দ্বিতীয় ওয়ানডেতেও জয় বঞ্চিত হয় জিম্বাবুয়ে। চট্টগ্রামে অনুষ্ঠিত দ্বিতীয় ম্যাচে টস হেরে প্রথমে ব্যাট করে ৫০ ওভারে ৭ উইকেটে ২৪৬ রানের স্কোর গড়ে জিম্বাবুয়ে। ২৪৭ রানের টার্গেট সহজ করে দেন বাংলাদেশের দুই ওপেনার লিটন দাস ও ইমরুল। উদ্বোধনী জুটিতে ১৪৮ রান যোগ করেন তারা। ব্যাট হাতে সেঞ্চুরির সম্ভাবনা জাগিয়েও ব্যর্থ হয়েছেন  লিটন ও ইমরুল। কিন্তু দুভাগ্য দু’জনের কেউই সেঞ্চুরির স্বাদ নিতে পারেননি। লিটন ৮৩ ও ইমরুল ৯০ রানে আউট হন। পরবর্তীতে মুশফিকুর রহিমের  ৪০ ও মোহাম্মদ মিথুনের ২৪ রানের সুবাদে ৩৫ বল বাকী রেখে জয় নিয়ে মাঠ ছাড়ে বাংলাদেশ। তবে দ্বিতীয় ওয়ানডেতে লিটন-ইমরুলের সেঞ্চুরি পাওয়া উচিত ছিলো বলে মনে করেন বাংলাদেশ অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজা, ‘আরও একটু ধৈর্য্য ধরে খেললে সহজেই সেঞ্চুরি পেতে পারতো লিটন ও ইমরুল। এ ধরনের ভুল নিশ্চয়ই তারা বুঝতে পেরেছে। আশা করবো, পরবর্তীতে এ ধরনের সুযোগ আসলে যাতে হাতছাড়া না করে।’ পক্ষান্তরে দুই ওয়ানডেতেই ইমরুলের কাছে দল হেরেছে বলে দ্বিতীয় ম্যাচ শেষে মন্তব্য করেন জিম্বাবুয়ের অধিনায়ক হ্যামিল্টন মাসাকাদজা। তিনি বলেছিলেন, ‘আমরা আগেই বুঝতে পেরেছিলাম, সাকিব-তামিমের পরিবর্তে যারা খেলবে তারা নিজেদের সেরাটাই ঢেলে দিবে। দুই ম্যাচে দুর্দান্ত করেছে ইমরুল। দু’টি ম্যাচেই আমাদের শেষ করে দিয়েছে সে।’

বাংলাদেশ দল : মাশরাফি বিন মর্তুজা (অধিনায়ক), লিটন দাস, মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ, আবু হায়দার, আরিফুল হক, সৌম্য সরকার, ফজলে মাহমুদ, ইমরুল কায়েস, মেহেদি হাসান মিরাজ, মোহাম্মদ মিথুন, মোহাম্মদ সাইফউদ্দিন, মুশফিকুর রহিম, মুস্তাফিজুর রহমান, নাজমুল হোসেন শান্ত, নাজমুল ইসলাম ও রুবেল হোসেন।

জিম্বাবুয়ে দল : হ্যামিল্টন মাসাকাদজা (অধিনায়ক), তেন্ডাই চাতারা, এলটন চিগুম্বুরা, ক্রেইগ আরভিন, কাইল জার্ভিস, ওয়েলিংটন মাসাকাদজা, ব্রেন্ডন মাভুতা, সলোমন মির, পিটার মুর, তারিসাই মুসাকান্দা, রিচার্ড এনগারাভা, জন নিয়ুম্বু, ব্রেন্ডন টেইলর, ডোনাল্ড তিরিপানো, সিন উইলিয়ামস ও চেপাস ঝুয়াও।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ