বুধবার ১২ আগস্ট ২০২০
Online Edition

লৌহজংয়ে মা ইলিশ রক্ষায় নদীতে নৌ শোভাযাত্রা

লৌহজং (মুন্সীগঞ্জ) সংবাদদাতা : মা ইলিশ রক্ষায় জনসচেতনতা বাড়াতে লৌহজংয়ের পদ্মা নদীতে নৌ শোভাযাত্রা হয়েছে। মঙ্গলবার ২৩ অক্টোবর দুপুরে পদ্মার শাখা নদীর লৌহজং ভূমি অফিস ঘাট থেকে জেলা মৎস্য অধিদপ্তর এ নৌ র‌্যালির আয়োজন করে। এতে প্রধান অতিথি হিসেবে ছিলেন জেলা প্রশাসক সায়লা ফারজানা। শোভাযাত্রাটি লৌহজং ভূমি অফিস ঘাট থেকে যাত্রা শুরু করে পদ্মার শিমুলিয়া, ঝাউটিয়া চর, রাউৎগাঁও ও ডহরী হয়ে একই স্থানে ফিরে আসে। নৌ শোভাযাত্রায় উপস্থিত ছিলেন লৌহজং উপজেলা চেয়ারম্যান ওসমান গণি তালুকদার,লৌহজং উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. মনির হোসেন, ভাইস-চেয়ারম্যান জাকির হোসেন বেপারী, টঙ্গীবাড়ি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোসাম্মৎ হাসিনা বেগম, মৎস্য কর্মকর্তা প্রিয়াঙ্কা ঘোষ, শ্রীনগর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. জাহিদুল ইসলাম, সহকারী কমিশনার (ভূমি) সৈয়দ ফয়েজুল ইসলাম, জেলা নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সুবীর কুমার দাস, জেলা মৎস্য কর্মকর্তা নৃপেন্দ্রনাথ বিশ্বাস, ভারপ্রাপ্ত সিনিয়র লৌহজং উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা মো. ইদ্রিস তালুকদার, বিআরডিবির চেয়ারম্যান মনীর হোসেন মোড়ল, কলমা ইউপি চেয়ারম্যান শেখ মো. মোতালেব হোসেন, লৌহজং-তেউটিয়া ইউপি চেয়ারম্যান রফিকুল ইসলাম মোল্লা, হলদিয়া ইউপি চেয়ারম্যান মো. মোজাম্মেল হক, লৌহজং থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) মো. রাজিব খান, মাওয়া মৎস্য আড়তের কেশব লাল দাস প্রমুখ। নৌ র‌্যালিতে থানা পুলিশ,মাওয়া নৌ-পুলিশ ও কোস্ট গার্ডের কর্মকর্তারও অংশ গ্রহন করেন এছারাও বালিগাঁও উচ্চ বিদ্যালয়, হলদিয়া উচ্চ বিদ্যালয় ও লৌহজং মডেল পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়ের বয়েজ স্কাউট ও গার্লস গাইড অংশ নেয়।
 নৌ শোভাযাত্রা চলাকালে শিমুলিয়া ঘাটের অদূরে জেলা প্রশাসক ও প্রশাসনের কর্মকর্তাদের উপস্থিতিতে পদ্মা নদীতে ফেলে রাখা জাল তোলা হয়। জাল টেনে তোলার সময় বেশ কিছু মা ইলিশ ধরা পড়লে তা সাথে সাথেই নদীতে ছেড়ে দেওয়া হয়। এরপর নৌ র‌্যালি ঝাউটিয়া চরে যায়। সেখানে পদ্মার তীরে শত শত ইলিশ ধরার নৌকা চোখে পড়ে। গড়ে উঠেছে অস্থায়ী দোকানপাটও। ঝাউটিয়া চর থেকে ১ লাখ মিটার জাল জব্দ করে আগুনে পুড়িয়ে ধ্বংস করা হয়।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ