রবিবার ০৯ আগস্ট ২০২০
Online Edition

বোদায় আনসার ভিডিপির দলপতির অনিয়মের বিরুদ্ধে ফুঁসে উঠেছে সদস্যরা

বোদা (পঞ্চগড়) সংবাদদাতা : বোদা উপজেলার ঝলইশালশিরি ইউনিয়ন আনসার ভিডিপির দলপতি হেমন্তের অনিয়ম,দূনীতি ও স্বেচ্ছারিতার বিরুদ্ধে ফুঁসে উঠেছে সদস্যরা। প্রতিকার চেয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসার বরাবরে লিখিত অভিযোগ দাখিল করেছে তারা। ওই ইউনিয়নের কথিত দলপতি হেমন্ত আনছার ভিডিপির সদস্যদের গত দুর্গাপূজায় আইন শৃঙ্খলা রক্ষার ডিউটি দেয়ার নামে উৎকোচ গ্রহণ করেছে বলে লিখিত অভিযোগে জানা গেছে। অভিযোগে আরো জানা যায়, উপজেলা আনসার ভিডিপি অফিসের যোগসাজসে ট্রেনিংপ্রাপ্তদের বাদ দিয়ে বেশি সুবিধা নিয়ে নিজের পছন্দের লোকদের ট্রেনিং নেই এমন সদস্যদের ডিউটি দিয়েছে সে। হেমন্তকে ঘুষ দিয়েও ডিউটি পাননি আনছার ভিডিপির ট্রেনিংপ্রাপ্ত সদস্য সুফিয়া বেগম ৭শ টাকা, হাসিনা বেগম ৫শ, দেলজান বেগম ৭শ, ছবিরুল ৭শ, দেলোয়ার ৫শ’, মকছেদুল ৫শ টাকা করে  দিয়েছে বলে তারা জানায়।  এছাড়াও জলসু, নুর জাহান, রহিমা, ময়নুল জানায়, দলপতি হেমন্ত আমাদের কাছে ডিউটির জন্য জনপ্রতি ৫শ টাকা চেয়েছিল। আমরা দরিদ্র মানুষ টাকা দিতে পারিনি, ডিউটিও পায়নি। সকলের পক্ষে ইউনুস আলী নামের একজন ট্রেনিংপ্রাপ্ত আনছার ভিডিপির সদস্য গত ২২ অক্টোবর বোদা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাসহ বিভিন্ন দপ্তরে লিখিত অভিযোগ করেছেন। তিনি জানান,অস্ত্র চালনায় ট্রেনিংপ্রাপ্ত আনছার ভিডিপির পার্টি ইনচার্জ সদস্য। হেমন্তকে টাকা না দেয়ার কারণে আমাকে সাধরণ আনছার সদস্য হিসেবে ডিউটি দিয়েছে। রহিমা বেগম তিনি দীর্ঘ ৩৬ বছর যাবত আনছার ভিডিপির সদস্যদের লিডারের দায়িত্বে ছিলেন দাবি করে জানান, দলপতি হিসেবে হেমন্ত এখনো নিয়োগপত্র পায়নি। ঝলইশালশিরি ইউনিয়নের ৬নং ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক আজিজুল ইসলাম জানান, হেমন্ত অনেকের কাছে টাকা নিয়ে ডিউটি দিয়েছে,টাকা নিয়ে অনেককে ডিউটি দিতে পারেনি বলে শুনেছি। ঘুষ,দূর্নীতির কারণে কথিত দলপতি হেমন্তকে অপসারনের দাবিতে ওই ইউনিয়নের অধিকাংশ সদস্য ফুঁসে উঠেছে। বিষয়টি নিয়ে বোদা উপজেলা চেয়ারম্যান সফিউল্লাহ সূফির দৃষ্টি আর্কষন করলে তিনি জানান, অভিযোগের কপি পেয়েছি। উপজেলা আনছার ভিডিপি কর্মকর্তা অবনিষ্ঠ চন্দ্র জানান, এবিষয়ে আমি জানিনা। এ ব্যাপারে দলপতি হেমন্তের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, আপনারা লিখে আমার কিছু করতে পারবেন না!

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ