রবিবার ২০ সেপ্টেম্বর ২০২০
Online Edition

মামলার শীর্ষ ঋণ খেলাপি এসএ গ্রুপের এমডি শাহাবুদ্দিন আলম গ্রেফতার

এস এ গ্রুপের এমডি শাহাবুদ্দিন আলম

স্টাফ রিপোর্টার : এসএ গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) মো. শাহাবুদ্দিন আলমকে ঋণ জালিয়াতির মামলায় গ্রেপ্তার করেছে পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগ (সিআইডি)। গতকাল বুধবার ব্যাংক এশিয়া লিমিটেডের করা একটি মামলায় তাঁকে গ্রেপ্তার করা হয়। সিআইডির বিশেষ পুলিশ সুপার মোল্যা নজরুল ইসলাম এ তথ্যের সত্যতা নিশ্চিত করেছেন। বেসরকারি খাতের মার্কেন্টাইল ব্যাংকের পরিচালনা পর্ষদের সদস্য শাহাবুদ্দিন আলম।
এসএ গ্রুপের মো. শাহাবুদ্দিন আলম বাণিজ্যিক কার্যক্রম পরিচালনার জন্য বিভিন্ন সরকারি-বেসরকারি বাণিজ্যিক ব্যাংক ও ব্যাংকবহির্ভূত আর্থিক প্রতিষ্ঠান থেকে বিভিন্ন সময়ে বিপুল পরিমাণে ঋণ সুবিধা গ্রহণ করেন। তাঁর মোট ঋণের পরিমাণ ৩ হাজার ৬২২ কোটি ৪৮ লাখ ৪৫ হাজার ৫৯ টাকা। এর মধ্যে চট্টগ্রামের ব্যাংক এশিয়া লিমিটেডের সিডিএ অ্যাভিনিউ শাখা থেকে তাঁর নেওয়া ঋণের পরিমাণ ৭০৯ কোটি ২৭ লাখ ৩৫ হাজার টাকা।
এ ছাড়া ইসলামী ব্যাংকের আগ্রাবাদ শাখা থেকে ৯৪০ কোটি ১০ লাখ ৫১ হাজার, ফার্স্ট সিকিউরিটি ইসলামী ব্যাংক লিমিটেডের আগ্রাবাদ শাখা থেকে ৩৬ কোটি ১১ লাখ ৪১ হাজার, ন্যাশনাল ব্যাংক লিমিটেডের আগ্রাবাদ শাখা থেকে ৭০১ কোটি ৪৯ লাখ ৩১ হাজার, পূবালী ব্যাংকের আগ্রাবাদ শাখা থেকে ২৯৭ কোটি ১১ লাখ ৪৮ হাজার, কৃষি ব্যাংকের ষোলোশহর শাখা থেকে ১৭৯ কোটি ৬৮ লাখ ৩৭ হাজার, অগ্রণী ব্যাংক করপোরেট শাখা থেকে ৫৪৮ কোটি ৪৪ লাখ, জনতা ব্যাংক শেখ মুজিব রোড করপোরেট শাখা থেকে ১১৮ কোটি ২২ লাখ ৭১ হাজার ও প্রাইম ব্যাংকের আগ্রাবাদ শাখা থেকে ৫৫ কোটি ২৫ লাখ ৫২ হাজার টাকা ঋণ নিয়েছেন তিনি।
 মো. শাহাবুদ্দিন আলম ইউনাইটেড এন্টারপ্রাইজের নুরুল আমিন লাবলুর কাছ থেকে ১০ কোটি ও মেওয়া ওয়েল অ্যান্ড ফ্যাডস থেকে ২৬ কোটি ৭৭ লাখ ৭৪ হাজার টাকা ঋণ নিয়েছেন। এসব ঋণ তিনি পরিশোধ করেননি।
গতকাল বেলা ১২টার দিকে গুলশানের একটি হোটেল থেকে তাকে আটক করা হয় বলে জানিয়েছেন পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগের (সিআইডি) পরিদর্শক আশরাফুল ইসলাম। তিনি জানান,শাহাবুদ্দিন আলম চট্টগ্রামের এসএ গ্রুপের চেয়ারম্যানের পাশাপাশি এসএ অয়েল রিফাইনারি ও সামান্নাজ সুপার অয়েল কোম্পানির ব্যবস্থাপনা পরিচালকের দায়িত্ব পালন করছেন। তার বিরুদ্ধে বেসরকারি খাতের প্রাইম ব্যাংকের দায়ের করা ৪৩টি অপরাধ ও ১টি অর্থঋণ আদালতের মামলা রয়েছে।
পরিদর্শক আশরাফুল ইসলাম বলেন, শাহাবুদ্দিন আলমকে আদালতের মাধ্যমে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আবেদন করা হবে। এজন্য তাকে আদালতে হাজির করা হবে।
সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, শাহাবুদ্দিন আলম ব্যাংকিং খাতের একজন শীর্ষ খেলাপি। বিভিন্ন ব্যাংক থেকে ঋণ নিয়ে আর টাকা ফেরত দেননি।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ