বৃহস্পতিবার ১৩ আগস্ট ২০২০
Online Edition

কেশবপুরে ইট ভাটার শিশু শ্রমিকসহ ২ লাশ উদ্ধার

কেশবপুর (যশোর) সংবাদদাতা: যশোরের কেশবপুরে বুধবার রাতে দুর্বৃত্তরা ইট ভাটার শ্রমিক তরিকুল ইসলামকে (১৫) উপর্যুপরি কপিয়ে গলা কেটে হত্যা করেছে। সে উপজেলার সাতবাড়িয়া গ্রামের নজরুল ইসলাম সানার ছেলে। হত্যার ঘটনায় নিহতের চাচা মকছেদ আলি সানাকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য পুলিশ থানায় এনেছে।
তরিকুল ইসলাম একই এলাকার রিপন ব্রিকসে শ্রমিকদের সহযোগি হিসেবে কাজ করত। রাতে সে বাড়ির নিজ ঘরে ঘুমিয়ে ছিল বলে নিহতের পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে। তবে কখন ঘর থেকে সে বের হয় নিহতের বড় ভাই শরিফুল ইসলাম জানাতে পারেনি।
পুলিশ ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে, তরিকুল ইসলাম বুধবার রাতে বাড়িতে ছিল। সকালে তার বড় ভাই শরিফুল ইসলাম ধান ক্ষেতে পানি দিতে যাওয়ার সময় বাড়ির পাশেই শিশু বাগানে জবাই করা তরিকুল ইসলামের লাশ দেখতে পায় এবং ডাক চিৎকারে লোকজন ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়।
খবর পেয়ে কেশবপুর থানা পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে লাশ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসে। পুলিশ লাশ ময়না তদন্তের জন্য তার লাশ যশোর জেনারেল হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করেছে। উলে¬খ্য, নিহতের পরিবারের সাথে চাচা মকছেদ আলি সানার দীর্ঘদিন জমিজমা সংক্রান্ত বিরোধ চলে আসছিল বলে এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে। অপরদিকে, বৃহস্পতিবার দুপুরে পুলিশ উপজেলার আলতাপোল গ্রাম থেকে কামরুল ইসলাম বিশ্বাসের স্ত্রী তাছরিন বেগমের লাশ ঘরের ভেতর থেকে উদ্ধার করেছে। তার মৃত্যু রহস্যজনক বলে পুলিশ দাবি করেছে। এ ঘটনার পর কামরুল ইসলাম পলাতক রয়েছে। 
এ ব্যাপারে কেশবপুর থানার অফিসার ইনচার্জ মো. শাহিন জানান, খবর পেয়ে ঘটনাস্থল থেকে লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য যশোর জেনারেল হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। লাশের পেটে ও দুই হাতে ধারালো অস্ত্রের কোপসহ জবাই করে হত্যা কান্ড ঘটানো হয়েছে। ঘটনায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য নিহত তরিকুল ইসলামের চাচা মকছেদ আলি সানাকে থানায় আনা হয়েছে। এ ঘটনায় মামলার প্রস্তুতি চলছে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ