শুক্রবার ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২০
Online Edition

চকরিয়া সেন্ট্রাল হাসপাতালের এমডি এনামুল হকের নামাযে জানাযা সম্পন্ন

চকরিয়া সংবাদদাতা : পিলখানা ট্রাজেডিতে নিহত চকরিয়ার কৃতী সন্তান শহীদ লেঃ কর্ণেল আবু মুছা মো. আইয়ুব কাইছারের বড়ভাই (৩য়) চকরিয়া সেন্ট্রাল হাসপাতালের সাবেক ব্যবস্থাপনা পরিচালক এনামুল হকের নামাযে জানাযা থানা সেন্টারস্থ কেন্দ্রীয় জামে মসজিদ প্রাঙ্গণে সম্পন্ন হয়েছে। এতে ইমামতি করেন মরহুমের মেজোভাই আলহাজ্ব হাফেজ মাওলানা মোকতার উদ্দিন।
জানাযাপূর্ব সমাবেশে সংক্ষিপ্ত বক্তব্য রাখেন চকরিয়া উপজেলা পরিষদের সাবেক ভাইস চেয়ারম্যান এস.এম জাহাঙ্গীর আলম বুলবুল, মরহুমের বড়ভাই আলহাজ্ব প্রকৌশলী (অব.) জহুরুল মওলা ও মরহুমের একমাত্র ছেলে সা’দ ইবনে হক।
বিশাল নামাযে জানাযায় অংশগ্রহণ করেন চকরিয়া উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আলহাজ্ব জাফর আলম, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ফাঁসিয়াখালী ইউপি চেয়ারম্যান আলহাজ্ব গিয়াস উদ্দিন চৌধুরী, আওয়ামী লীগ নেতা নুরুল আবছার, আমিনুর রশিদ দুলাল,
সাহারবিল ইউপি চেয়ারম্যান মহসিন বাবুল, কাকারা ইউপি চেয়ারম্যান আলহাজ শওকত ওসমান এবং বিভিন্ন রাজনৈতিক, সামাজিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দ ও স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গসহ সর্বস্তরের জনতা।
উল্লেখ্য, চকরিয়া সেন্ট্রাল হাসপাতালের প্রতিষ্ঠাতা ব্যবস্থাপনা পরিচালক এনামুল হক (৬৮) দূরারোগ্য ব্যাধিতে আক্রান্ত হয়ে চট্টগ্রাম মা-শিশু ও জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় শুক্রবার ২৮ সেপ্টেম্বর বিকাল ৪টা ২০মিনিটের দিকে ইন্তিকাল করেছেন (ইন্নালিল্লাহি ওয়াইন্না ইলাইহি রাজিউন)। মৃত্যুকালে এক ছেলে, এক মেয়ে ও স্ত্রী এবং বহু আত্মীয়-স্বজনসহ অসংখ্য গুণগ্রাহী ছিল। মরহুম এনামুল হক চকরিয়া পৌরসভার ৪ নং ওয়ার্ড ভরামুহুরীস্থ মৌলভীরপাড়ার বাসিন্দা মরহুম মাওলানা আবদুল খালেকের ৩য় পুত্র ও ঢাকার পিলখানা ট্রাজেডিতে নিহত শহীদ লেঃ কর্ণেল আবু মুছা মো. আইয়ুব কাইছারের সেজোভাই। তিনি স্বাধীনতাপূর্ব তৎকালীন পূর্ব পাকিস্তান ছাত্রলীগ, চকরিয়া থানার সহ-সভাপতি, চকরিয়া পৌর আওয়ামীলীগের অন্যতম প্রতিষ্ঠাতা, কক্সবাজার জেলা আওয়ামীলীগের সাবেক সদস্য ও চকরিয়া কলেজ পরিচালনা পরিষদের সাবেক সদস্য ছিলেন।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ