মঙ্গলবার ২৬ মে ২০২০
Online Edition

বিএনপি রাজনীতির মানবিক মূল্যবোধ নষ্ট করেছে -ওবায়দুল কাদের

স্টাফ রিপোর্টার : বিএনপির নেতা মওদুদ আহমদের কথা না শোনার জন্য দলটির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরকে পরামর্শ দিয়েছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের। তিনি বলেছেন, ‘আপনি (ফখরুল) মওদুদ আহমদের কথা যত শুনবেন, তত পচবেন, তত নিচে নামবেন।’
গতকাল  শনিবার আওয়ামী লীগের সপ্তাহব্যাপী নির্বাচনী গণসংযোগের রাজধানীর চকবাজারে দলের প্রচারে অংশ নিয়ে ওবায়দুল কাদের এ মন্তব্য করেন। শুক্রবার এক অনুষ্ঠানে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য মওদুদ আহমদ বলেন, এক মাসের মধ্যে দেশে পরিবর্তন আসবে। স্থানীয় এমপি মো. সেলিমের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক এ কে এম এনামুল হক শামীম, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তিবিষয়ক সম্পাদক আবদুস সবুর, ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের সভাপতি আবুল হাসনাত, সাধারণ সম্পাদক শাহে আলম মুরাদসহ স্থানীয় নেতা-কর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।
মওদুদের এই বক্তব্যের জবাবে ওবায়দুল কাদের বলেন, পরিবর্তন হলে বিএনপিরই হবে। দেশে এমন কোনো সংকট নেই যে পরিবর্তন হতে হবে। যদি কিছু পরিবর্তন হতে হয়, সেটা বিএনপিরই হতে হবে। তিনি বলেন, বিএনপি নামক আত্মস্বীকৃত দেউলিয়া ও দুর্নীতিবাজ দলের কাছে দেশের গণতন্ত্র ও আইনের শাসন নিরাপদ নয়। বিএনপি তাদের গঠনতন্ত্র থেকে ৭ ধারা বাদ দিয়ে তারা আত্মস্বীকৃত দেউলিয়া দলে পরিণত হয়েছে।
ওবায়দুল কাদের বলেন, আওয়ামী লীগ বা সরকারের দেউলিয়া হওয়ার কোনো কারণ নেই। কারণ, দেশের উন্নয়ন করে বিশ্বে মর্যাদার আসনে দেশকে নিয়ে গেছে সরকার। বাংলাদেশ এখন নিম্নমধ্যম আয়ের দেশ। আওয়ামী লীগ ছোটখাটো কর্মসূচি দিলেই ব্যাপক জনসমাগম হয়। কিন্তু বিএনপির অবস্থা এমন পর্যায়ে পৌঁছেছে যে তারা ১০ বছর ধরে আন্দোলনের কথা বলে এলেও আন্দোলন করতে পারেনি। দলটির নেতারা একে অপরকে সরকারের ‘দালাল’ বলে গালাগালি করে।
সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী বলেছেন, বিএনপি বোমা-সন্ত্রাস ও নাশকতার প্রস্তুতি নিচ্ছে। কিন্তু এবার নাশকতা করলে জনগণকে সঙ্গে নিয়ে প্রতিরোধ করা হবে। নাশকতা করে নির্বাচন ঠেকানো যাবে না।
সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেন, রাজনীতির মানবিক মূল্যবোধ নষ্ট করেছে বিএনপি। এর আগে মানবিক মূল্যবোধ ছিল, খালেদা জিয়া কোনো বিপদে পড়লে চলে যেতেন শেখ হাসিনা। হাসপাতালে ভর্তি হলেন খালেদা জিয়া, শেখ হাসিনাসহ আওয়ামী লীগ কর্মীরা দেখতে গিয়েছেন। খালেদা জিয়ার সন্তান মারা যাওয়ার পর প্রধানমন্ত্রী গেলেন, কিন্তু খালেদা জিয়া প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে কী আচরণ করেছেন, দেশবাসী জানে। তারাই রাজনীতির মানবিক মূল্যবোধ নষ্ট করেছে।
গণসংযোগে সরকারের উন্নয়ন কর্মকান্ড তুলে ধরেন মন্ত্রী কাদের। তিনি বলেন, আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় থাকলে দেশ বাঁচবে, উন্নত হবে। আর সে জন্য শেখ হাসিনার নেতৃত্বের বিকল্প নেই। মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ও স্বাধীনতার পক্ষের শক্তিকে বাঁচাতে হলে শেখ হাসিনার সরকার রাখতে হবে। দেশের উন্নয়ন অগ্রগতির ধারা অক্ষুন্ন রাখতে হলে শেখ হাসিনাকে আবারও প্রধানমন্ত্রী নির্বাচিত করতে হবে।
তিনি আরও বলেন, বিএনপির আমলে পুরান ঢাকায় বিদ্যুৎ ২৪ ঘণ্টার মধ্যে ১৮ ঘণ্টাই থাকত না। অপারেশন থিয়েটারেও লোডশেডিং থাকত। এ সময় দলের নেতা-কর্মীদের উদ্দেশে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘কোনো দখলবাজ, চাঁদাবাজ আগামী নির্বাচনে নৌকার টিকিট পাবেন না। এখন যাঁরা মনোনয়নের দৌড়ঝাঁপে আছেন, জনগণের সঙ্গে সম্পর্ক থাকতে হবে তাঁদের। কোনো ধরনের অসুস্থ রাজনীতিতে জড়ানো যাবে না। একজন অন্যজনের ওপর কাঁদা ছুড়বেন না।’

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ