বুধবার ১২ আগস্ট ২০২০
Online Edition

শ্রমিকদের ন্যায্য দাবি পূরণে সরকার ব্যর্থ  হয়ে শ্রমিক নেতাদের গ্রেফতার করছে -অধ্যাপক মিয়া গোলাম পরওয়ার 

মোড়লগঞ্জ ফেরীঘাট থেকে অন্যায়ভাবে সাবেক বাগেরহাট সরকারি পিসি কলেজ ছাত্রসংসদের এজিএস, শ্রমিক কল্যাণ ফেডারেশনের বাগেরহাট জেলা সেক্রেটারি মঞ্জুরুল হক রাহাদকে গ্রেফতার ও অস্ত্র উদ্ধার সাজানো নাটক বলে বিবৃতি দিয়েছেন বাংলাদেশের শ্রমিক কল্যাণ ফেডারেশনের কেন্দ্রীয় সভাপতি ও সাবেক এমপি অধ্যাপক মিয়া গোলাম পরওয়ার। গতকাল সোমবার দেয়া বিবৃতিতে তিনি এ ঘটনার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানান। 

বিবৃতিতে তিনি বলেন, শ্রমিকদের মৌলিক ন্যায্য দাবি পূরণে সরকার ব্যর্থ হয়ে রাষ্ট্রীয় শক্তি ব্যবহার করে দমন নিপীড়ণ ও ষড়যন্ত্রের পথ বেছে নিয়েছে। গত রোববার কোনো কারণ ছাড়াই মোড়লগঞ্জ ফেরীগঘাট থেকে অন্যায়ভাবে সাবেক এ ছাত্রনেতা, শ্রমিক কল্যাণ ফেডারেশনের বগেরহাট জেলা সেক্রেটারি মঞ্জুরুল হক রাহাদকে নিরস্ত্র অবস্থায় গ্রেফতার করে পুলিশ।

বিবৃতিতে আরো বলা হয়, সরকার শ্রমিকদের আদর্শিকভাবে মোকাবিলা করতে ব্যর্থ হয়ে, শ্রমিক নেতাদের পুলিশ দিয়ে গ্রেফতারের পর তাকে জড়িয়ে পুলিশ যে অস্ত্র উদ্ধার নাটকের অবতারণা করেছে। এসব অস্ত্র উদ্ধার নাটকের সাথে পুলিশের সরাসরি সম্পৃক্ততা থাকলেও এই শ্রমিক নেতার দূরতম কোনো সম্পর্ক নেই। এ নাটক সম্পূর্ণ পরিকল্পিত ও সাজানো। রাজনৈতিক ফায়দা হাসিলের জন্যই তাকে গ্রেফতার করেছে সরকার। আর নীতিহীন পুলিশ ঘৃন্য ভূমিকায় অবতীর্ণ হয়েছে।

তিনি বলেন, পুলিশের এই দায়িত্বহীন কর্মকাণ্ড রাজনৈতিক প্রতিহিংসামূলক। নিরপরাধ একজন শ্রমিক নেতার প্রতি পুলিশের এই দায়িত্বহীন আচরণ কোনভাবেই গ্রহনযোগ্য নয়। নিরীহ শ্রমিক নেতাকে অন্যায় ভাবে আটকের পর এমন নিকৃষ্ট নাটক সুগভীর ষড়যন্ত্রের অংশ বলে সচেতন শ্রমিক সমাজ মনে করে। তিনি এর তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানান।

তিনি সরকারকে ভবিষ্যতে এমন অন্যায় গ্রেফতার ও সাজানো নাটক থেকে বিরত থাকতে এবং গ্রেফতারকৃত শ্রমিক নেতাকে অবিলম্বে মুক্তি দিতে প্রশাসনের প্রতি আহ্বান জানান।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ