শুক্রবার ১৪ আগস্ট ২০২০
Online Edition

দিনাজপুরে পাসের হার ৬০ দশমিক ২১ শতাংশ

দিনাজপুর সংবাদদাতা : দিনাজপুর মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষাবোর্ডের অধীনে অনুষ্ঠিত ২০১৮ সালের এইচএসসি পরীক্ষায় গড় পাসের হার ৬০ দশমিক ২১ শতাংশ। এবারে পাশের হার ও উত্তীর্ণ শিক্ষার্থীর সংখ্যা দুটোই কমেছে। তবে জিপিএ-৫ সামান্য বেড়েছে। ফলাফল বিশ্লেষণ করে দেখা গেছে, অকৃতকার্য হওয়া পরীক্ষার্থী অধিকাংশই ইংরেজিতে খারাপ করেছে। 

গতকাল বৃহস্পতিবার দুপুর দেড়টায় দিনাজপুর শিক্ষাবোর্ডের পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক মো. তোফাজ্জুর রহমান আনুষ্ঠানিকভাবে ফলাফল ঘোষণা করেন। তিনি জানান, দিনাজপুর শিক্ষাবোর্ডের অধীনে ২০১৮ সালের এইচএসসি পরীক্ষায় ১ লাখ ১৯ হাজার ৫০৭ পরীক্ষার্থী পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করে। এদের মধ্যে উত্তীর্ণ হয়েছে ৭১ হাজার ৫১জন। অকৃকার্য হয়েছে ৪৭ হাজার ৫৫৬ জন পরীক্ষার্থী। গড় পাসের হার ৬০ দশমিক ২১ শতাংশ। জিপিএ-৫ পেয়েছে ২২৯৭ জন। ছাত্রদের পাশের হার ৫৬.২২ শতাংশ ও ছাত্রীদের পাশের হার ৬৪.৫১ শতাংশ। এছাড়া ১২টি কলেজ থেকে একজনও পাস করতে পারেনি। 

বিজ্ঞান বিভাগে ২৬ হাজার ৯৫৮ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে উত্তীর্ন হয়েছে ১৮ হাজার ৮৮৯ জন। জিপিএ-৫ পেয়েছে ২ হাজার ৮ জন। বিজ্ঞান বিভাগে গড় পাসের হার ৭০.০৯ শতাংশ। মানবিক বিভাগে ৭৬ হাজার ৩৭ জনের মধ্যে ৪৩ হাজার ২৫৬ জন পরীক্ষার্থী উত্তীর্ন হয়েছে। মানবিক বিভাগে গড় পাশের হার ৫৬.৮৯ শতাংশ। এদের মধ্যে জিপিএ-৫ পেয়েছে মাত্র ২০৩ জন। ব্যবসায় শিক্ষা বিভাগে ১৬ হাজার ৫২২ জনের মধ্যে উত্তীর্ন হয়েছে ৯ হাজার ৮০৬ জন। গড় পাসের হার ৫৯.৩৫ শতাংশ। ব্যবসায় শিক্ষা বিভাগে জিপিএ-৫ পেয়েছে মাত্র ৮৬ জন। বিজ্ঞান, মানবিক ও ব্যবসায় শিক্ষা বিভাগে গড় পাশের হার ৬০.২১ শতাংশ। তিন বিভাগে ছাত্রদের গড় পাশের হার ৫৬.২২ শতাংশ ও ছাত্রীদের পাশের হার ৬৪.৫১ শতাংশ। ফলাফল প্রকাশ করে দিনাজপুর শিক্ষা বোর্ডের পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক তোফাজ্জুর রহমান জানান, ইংরেজি বিষয়ে পাস কম হওয়ায় এবারে ফলাফল বিপর্যয় হয়েছে। এ ব্যাপারে শিক্ষকদের দক্ষ করে তুলতে দ্রুত প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে। এছাড়া যেসব কলেজ থেকে কেউই পাস করতে পারেনি, কোন কারণ দর্শানো ব্যতিরেকেই সেসব কলেজ বন্ধ করে দেয়ার কথা জানান।

বিষয়ভিত্তিক পাশের হারঃ দিনাজপুর শিক্ষা বোর্ডে বিষয়ভিত্তিক পাশের হার নিম্নরুপ-বাংলা মোট পরীক্ষার্থী ৯৭,২৭০ জনের মধ্যে উত্তীর্ণ ৯২,৬৪৬ জন। পাশের হার ৯৫.২৫ শতাংশ। ইংরেজি মোট পরীক্ষার্থী ১,১৪,৪৩৬ জনের মধ্যে উত্তীর্ণ ৭৪৯৭১ জন। পাসের হার ৬৫.৫১ শতাংশ। পদার্থ বিজ্ঞানে মোট পরীক্ষার্থী ২৪৭০০ জনের মধ্যে উত্তীর্ণ ১৯১২৮ জন। পাসের হার ৭৭.৪৪ শতাংশ। রসায়নে মোট পরীক্ষার্থী ২৪৩৫৯ জনের মধ্যে উত্তীর্ণ ২১৩০৪ জন। পাসের হার ৮৭.৪৬ শতাংশ। হিসাব বিজ্ঞানে মোট পরীক্ষার্থী ১৪১৬৪ জনের মধ্যে উত্তীর্ণ ১১৬৪৮ জন। পাশের হার ৮২.২৪ শতাংশ। উচ্চতর গণিতে মোট পরীক্ষার্থী ২০৭৮১ জনের মধ্যে উত্তীর্ণ হয়েছে ১৫৬৭৩ জন। পাসের হার ৭৫.৪২ শতাংশ। পৌরনীতিতে মোট পরীক্ষার্থী ৫০৬২৯ জনের মধ্যে উত্তীর্ণ ৪৮০৪৯ জন। পাশের হার ৯০.৯০ শতাংশ। এবং তথ্য ও প্রযুক্তিতে মোট পরীক্ষার্থী ৯৯৮৮৭ জনের মধ্যে উত্তীর্ণ ৮৮২২৮ জন। পাসের হার ৮৮.৩৩ শতাংশ।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ