বুধবার ১৯ জানুয়ারি ২০২২
Online Edition

হালিশহর ও আগ্রাবাদ এলাকায় নিরাপদ পানি সরবরাহ ও স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিত করার দাবি 

চট্টগ্রাম মহানগরীর হালিশহর ও আগ্রাবাদসহ আশপাশের এলাকায় জন্ডিস আক্রান্ত হয়ে ৩জন মানুষের মৃত্যু, প্রায় সহস্রাধিক আক্রান্ত হওয়ায় চট্টগ্রামের স্বাস্থ্য সেবা ব্যবস্থার ব্যাপারে গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করে অবিলম্বে হালিশহর ও আগ্রাবাদ এলাকায় স্বাস্থ্য সেবা নিশ্চিত, খাবার পানিসহ নিরাপদ পানি সরবরাহ করার জন্য সংশ্লিষ্ট নাগরিক সেবাদানকারী দায়িত্বশীল প্রতিষ্ঠানের প্রতি জোর দাবি জানিয়ে বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামী চট্টগ্রাম মহানগরী আমীর মাওলানা মুহাম্মদ শাহজাহান ও সেক্রেটারি মুহাম্মদ নজরুল ইসলাম এক যুক্ত বিবৃতি প্রদান করেন। বিবৃতিতে জামায়াত নেতৃবৃন্দ বলেন, চট্টগ্রাম মহানগরীর অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ এলাকা হালিশহর ও আগ্রাবাদ এলাকা। দীর্ঘদিন থেকে অত্র এলাকার জনগণের স্বাস্থ্য সেবা ব্যবস্থা ভেঙ্গে পড়েছে। জটিল রোগ জন্ডিসে আক্রান্ত হয়ে ইতিমধ্যে ৩জন মানুষের করুন মৃত্যু এবং প্রায় সহ¯্রাধিক মানুষ আক্রান্ত হয়ে পড়েছে। জটিল রোগে আক্রান্ত জনগণের চিকিৎসা সেবা নিশ্চিত করা সরকারের নিয়মিত দায়িত্ব। ইতিমধ্যে চট্টগ্রাম ওয়াসা কর্তৃপক্ষ এবং চট্টগ্রাম সিভিল সার্জন তথা স্বাস্থ্য বিভাগ, স্বাস্থ্য অধিদপ্তর ও চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের মত সরকারী সেবা সংস্থাগুলো জনস্বাস্থ্য সেবাকে হুমকির মুখে ঠেলে দিয়েছে।

জামায়াত নেতৃবৃন্দ বলেন, চট্টগ্রাম মহানগরীর ৭০ লক্ষাধিক মানুষের খাদ্য, পানি সরবরাহসহ জনস্বাস্থ্য নিশ্চিত করা সরকারের অন্যতম দায়িত্ব। চট্টগ্রাম শহরের জলাবদ্ধতা, যোগাযোগ ব্যবস্থা, রাস্তা ঘাটের বেহাল দশা, খানা খন্দক ইত্যাদি মারাত্মক সমস্যার কারণে রোগ জীবানু ছড়িয়ে পড়ছে। এ জটিল সমস্যার সমাধানের জন্যে সরকারী কোন উদ্যোগ নেই। নেতৃবৃন্দ বলেন, হালিশহর, আগ্রাবাদ ও আশপাশের এলাকার নিরীহ মানুষ আজ চরম মানবেতর জীবন যাপন করছে। নিরাপদ খাবার পানিসহ পানি সংকটে মারাত্মক ব্যাধির প্রার্দুভাব এবং মানুষ দিন দিন জটিল রোগ জন্ডিসসহ কঠিন রোগে আক্রান্ত হচ্ছে। এলাকার জনস্বাস্থ্য ব্যবস্থা চরম সংকটাপন্ন।

জামায়াত নেতৃবৃন্দ অবিলম্বে হালিশহর ও আগ্রাবাদসহ আশপাশ এলাকায় নিরাপদ ও বিশুদ্ধ খাবার পানি সরবরাহ, চিহ্নিত রোগ প্রতিরোধে কার্যকর ব্যবস্থা এবং জনস্বাস্থ্য সেবা সুনিশ্চিত করার জন্য সরকার এবং সংশ্লিষ্ট সেবা সংস্থা সমূহের প্রতি জোর দাবি জানান। প্রেস বিজ্ঞপ্তি

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ