শনিবার ১১ জুলাই ২০২০
Online Edition

তালা সেটেলমেন্ট অফিসে আবারও দালাল চক্রের আনাগোনা

তালা (সাতক্ষীরা) সংবাদদাতা: তালা সেটেলমেন্ট অফিসে আবারও চিহ্নিত জালদলিল সৃষ্টিকারী প্রতারকচক্র ও দালালদের আনাগোনা বৃদ্ধি পেয়েছে। প্রশাসনের তৎপরতায় গা-ঢাকা দেওয়া জাল-জালিয়াতির হোতাদের বর্তমানে কাগজ-পত্র বোগলদাবায় নিয়ে আবারও সেটেলমেন্ট অফিসের মধ্যেই অবস্থান করতে দেখা যাচ্ছে। তালা সেটেলমেন্টকে পূজি করে প্রতারণার মাধ্যমে জিরো থেকে কোটিপতি বনে যাওয়া প্রায় ৪০ জনের একটি তালিকা প্রস্তুত করে প্রশাসন। প্রশাসনের জোর তৎপরতায় গত ২ বছরে তালার থানা পুলিশ ও সাতক্ষীরা ডিবি পুলিশ অভিযান চালিয়ে বিভিন্ন সময় ৭/৮ জনকে গ্রেফতার করে বিভিন্ন মেয়াদে সাজা প্রদান করেন। সাজা প্রাপ্তরা হলেন, কথিত মুহুরী রহিমাবাদ গ্রামের মোসলেম সরদার (৫৫), মোবারকপুর গ্রামের আঃ হাকিম শেখ (৫২), নলতা গ্রামের সাইদুর সরদার (৫৪), আঃ আজিজ (৩৮),মামুন (৩৫), মোহাম্মদ আলী (৬০),। এছাড়া বিপুল পরিমান জাল ষ্টাম্প, উচ্চপদস্থ কর্মকর্তার  সিল , ভুয়া সাক্ষর সম্বলিত নানা উপকরণ সহ আলী আহম্মেদ মুহুরী , সুধীর কুমার, সাইদুর রহমান পুলিশের হাতে গ্রেফতার হয়। 
উল্লেখ্য, জাল-জাতিয়াতি, ভুয়া কাগজ-পত্র সৃষ্টি, একের জমি অন্যের নামে রেকর্ড করে সাধারণ মানুষের কাছ থেকে মোটা অংকের টাকা হাতিয়ে নেওয়ার বহু অভিযোগ রয়েছে এসকল কথিত মুহুরীদের বিরুদ্ধে। নুন্ আনতে পান্তা পুরানো এসকল অর্ধশিক্ষিত নামধারী  মুহুরীরা সকলেই এখন কোটিপতি। আর এসকল প্রভাবশালী মুহুরীরা তালা সেটেলমেন্ট অফিসটি অপকর্মের কেন্দ্রবিন্দুতে পরিনত করে রাখে । ভুক্তভোগী এলাকাবাসীর সরকারের  বিভিন্ন দপ্তরে আবেদনের প্রেক্ষিতে উপজেলা প্রশাসনের সহযোগীতায়  পুলিশ সেটেলমেন্ট অফিসে অভিযান চালিয়ে কয়েকজনকে  গ্রেফতার পূর্বক জেল হাজতে প্রেরন করে।
 এছাড়া উপজেলা নির্বার্হী কর্মকর্তার নির্দেশে কয়েক প্রতারককে গ্রেফতার করে থানা থেকে প্রতারনা করবে না মর্মে মোচলেকার মাধ্যমে ছেড়ে দেওয়া হয়। এসময় কালো তালিকা ভুক্ত বাঘা বাঘা সব প্রতারকরা গা-ঢাকা দিলে সেটেলমেন্ট অফিস দালাল শূন্য হয়ে পড়ে ।
পরবর্তীতে প্রশাসনের পক্ষ থেকে সেটেলমেন্ট অফিসকে দালালমুক্ত ঘোষনা করে “ সঠিক কাগজপত্র যার জমি তার” সাইন বোর্ড টানিয়ে দেওয়া হয়। সাধারণ মানুষ স্বস্তির নিঃশ্বাস ফেলে  দালালমুক্ত তালা সেটেলমেন্ট  অফিসের কাজ করতে থাকে। কিন্তু অতি  সম্প্রতি একই সময় তালা উপজেলা নির্বাহী  কর্মকর্তা ও  তালা থানার ওসি বদলীর সুযোগে সেই প্রতারক চক্র আবারও আনাগোনা শুরু করেছে সেটেলমেন্ট অফিসে।
সরেজমিন, তালা সেটেলমেন্ট অফিসে গিয়ে দেখা যায়, দাগী সেই সব প্রতারকরা হাতে কাগজ-কলম নিয়ে ব্যস্ত এ কক্ষ ও কক্ষ ছুটছেন, অফিসের কতিপয় কর্মকর্তাদের ম্যানেজ করে ইচ্ছেমত রেকর্ড বই ঘাটছেন, কপি করছেন। দেখলে মনে হবে অফিসের গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তি এরা, কিন্তু আসলে তারা আদৌ এ দপ্তরের লোক নন। বিষয়টি নিয়ে তালা সেটেলমেন্ট কর্মকর্তা জমাদ্দার মাহবুবুর রহমান’র কাছে জানতে চাইলে তিনি জানান, আমি নতুন এসেছি, সবাইকে চিনি না, তবে কোন দালাল যেন সেটেলমেন্টে না আসতে পারে সে বিষয়ে  কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ