বৃহস্পতিবার ২১ জানুয়ারি ২০২১
Online Edition

তুর্কি প্রেসিডেন্ট নির্বাচন ও এরদোগানের ভবিষ্যৎ 

২০ জুন, স্পুটনিক : চলতি মাসে রাশিয়ায় শুরু হওয়া বিশ্বকাপ ফুটবলই একমাত্র বিশ্বব্যাপী গুরুত্বপূর্ণ ইভেন্ট নয়। চলতি মাসের শেষের দিকে অনুষ্ঠিতব্য তুরস্কের জাতীয় নির্বাচনও বিশ্ববাসীর জন্য একটি গুরুত্বপূর্ণ ইভেন্ট।

 দেশটির গুরুত্বপূর্ণ এই নির্বাচনের ফলাফলের ওপর নজর রাখছেন মুসলিম বিশ্বসহ সারা বিশ্বের মানুষ। কেননা ইউরোপ এবং মধ্যপ্রাচ্যে উভয় অঞ্চলের স্থায়িত্ব বজায় রাখার ক্ষেত্রে দেশটি একটি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে।

বর্তমান প্রেসিডেন্ট এরদোগানের পক্ষে যেমন সমর্থন রয়েছে, তেমনি তার বিরোধীদেরও অভাব নেই। প্রশ্ন হচ্ছে- তিনি কি ক্ষমতায় ধরে রাখতে পারছেন?

তুর্কি নির্বাচন নিয়ে রুশ গণমাধ্যম ‘স্পুটনিক’ দুইজন তুর্কি বিশেষজ্ঞের সঙ্গে কথা বলেন। এরা হলেন- লন্ডন স্কুল অব ইকনোমিকসের তুর্কি স্টাডিজের প্রফেসর ড. এজরা ওজিউরেকে এবং বার্মিংহামের এস্টন বিশ্ববিদ্যালয়ের রাজনীতি ও আন্তর্জাতিক সম্পর্কের লেকচারার ইয়াপরাক গুরুসোই।

স্পুটনিক: নির্বাচেন এরদোগানের জয়ী হওয়ার সম্ভাবনা কতটুকু এবং তার সবচেয়ে শক্তিশালী প্রতিদ্বন্দ্বি কে?

ইয়াপরাক গুরুসোই: আমি মনে করি তিনি (এরদোগান) নির্বাচনে জয়ী হতে পারেন এবং তার সবচেয়ে শক্তিশালী চ্যালেঞ্জার হচ্ছেন মোহাররেম ইন্সে; যিনি বিরোধী রিপাবলিকান পিপলস পার্টির নেতৃত্বে আছেন এবং দ্বিতীয় চ্যালেঞ্জার হতে পারেন মেরাল আকসেনার; যিনি গুড পার্টি নামে একটি নতুন দল প্রতিষ্ঠা করেছেন এবং প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের জন্য তিনিও একজন দৃঢ় প্রার্থী।

ড. ইজরা ওজিউরেক: এটি দুটি উপায়ে যেতে পারে। ধরুন, এরদোগান প্রথম রাউন্ডে জয়ী হলেন না, কিন্তু তিনি দ্বিতীয় রাউন্ড জয়ী হলেন এবং পার্লামেন্টে তার দল সংখ্যাগরিষ্ঠতা পেল না। এটা তার ক্ষমতা কমাবে না। কারণ গত বছরের গণভোটে সংসদের ক্ষমতা মূলত হ্রাস করা হয়েছে, তাই প্রেসিডেন্ট যে কোনো সিদ্ধান্ত নিতে পারেন।

যদি এরদোগানের নিজের দলের পক্ষ থেকে তার বিরোধিতা করা হয়, তাহলে তারা আরো শক্তিশালী হতে পারে এবং তিনি ইতোমধ্যে বিরোধীদের দাবির পক্ষে সাড়া দিচ্ছেন। উদাহরণস্বরূপ, যদি তিনি আবার নির্বাচিত হন তবে জরুরি অবস্থা তুলে নিতে সম্মত হয়েছেন। 

স্পুটনিক: এরদোগান হেরে গেলে তুরস্কের কি কোনো পরিবর্তন হবে?

ইয়াপরাক গুরুসোই: এটা বলা কঠিন যেহেতু তিনি গত ১৬ বছর ধরে দেশকে শাসন করছেন। নতুন ক্ষমতাসীন হয়ত প্রেসিডেন্ট পদ্ধতি পরিবর্তন করবেন এবং তুরস্ককে পার্লামেন্টারি পদ্ধতিতে ফিরিয়ে আনবেন। সুতরাং, তাই এতে তার কিছু নীতির পরিবর্তন হবে কিন্তু ব্যাপক পরিবর্তন আসবে না। 

স্পুটনিক: এরদোগানকে কি একজন সফল  প্রেসিডেন্ট বলা যায়?

ইয়াপরাক গুরুসোই: তিনি যে বেশ দক্ষতা সম্পন্ন একজন নেতা তাতে কোনো সন্দেহ নেই। তিনি দক্ষ হাতে দল ও দেশকে নিয়ন্ত্রণ করেছেন। দেশটির তীব্র মেরুকরণ দ্বারা তার শাসন চ্যালেঞ্জের সম্মুখীন হয়েছে, কারণ তুরস্ক কখনোই একতাবদ্ধ ছিল না এবং তিনি ক্ষমতায় আসার আগে এটি খুবই ভিন্ন ছিল।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ