বৃহস্পতিবার ২৮ জানুয়ারি ২০২১
Online Edition

আগৈলঝাড়া সংবাদ

আগৈলঝাড়া (বরিশাল) সংবাদদাতা: বরিশালের আগৈলঝাড়ায় গৃহবধূ ও প্রবাসীর বিষপানে আত্মহত্যার চেষ্টা। গুরুতর অবস্থায় তাদের হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার সেরাল গ্রামের কামাল খলিফার স্ত্রী আয়শা বেগমের সাথে ঈদের দিন কামাল খলিফা শ্বশুর বাড়িতে না আসায় অভিমান করে স্ত্রী আয়শা বেগম বিষপান করে আত্মহত্যার চেষ্টা করে। গুরুতর অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে উপজেলা হাসপাতাল ভর্তি করা হয়েছে। অন্যদিকে উপজেলার বাগধা ইউনিয়নের উত্তর চাঁদত্রিশিরা গ্রামের প্রবাসী কবির মোল্লার ঘরে থাকা দুই লাখ টাকা জুয়া খেলে শেষ করে ছেলে। এ নিয়ে ছেলের সাথে ঝগড়া-ঝাটি করে প্রবাসী পিতা কবির মোল্লা রোববার বিকেলে বিষপান করে আত্মহত্যার চেষ্টা করে। গুরুতর অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে উপজেলা হাসপাতালে নেয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক উন্নত চিকিৎসার জন্য বরিশাল শেবাচিম হাসপাতালে প্রেরণ করে।
পিটিয়ে আহত
বরিশালের আগৈলঝাড়ায় ইয়াবা সেবনে বাধা দেয়ায় দুইজন পিটিয়ে গুরুতর আহত করেছে মাদকসেবীরা। গুরুতর আহত অবস্থায় তাদের হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এ ঘটনায় থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। আহত সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার রতœপুর ইউনিয়নের বেলুহার গ্রামের মুক্তিযোদ্ধা আ.মালেক আকনের বাড়িতে বসে মাদকসেবী স্বপন সরদার, জাহিদ সরদার, মন্টু ও ফরিদ সরদার নিয়মিত ইয়াবা সেবন করে আসছিল। ঈদের দিন (শনিবার) ইয়াবা সেবনের সময় বাঁধা দেয় মুক্তিযোদ্ধা আ.মালেক আকনের ছেলে রোমান আকন। এতে মাদকসেবীরা ক্ষিপ্ত হয়ে রোমান আকন ও ভাই রাজীব আকনকে পিটিয়ে গুরুতর আহত করে। আহতদের উদ্ধার করে উপজেলা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এ ঘটনায় মুক্তিযোদ্ধা আ.মালেক আকন বাদী হয়ে শনিবার রাতে থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছে। পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে।
হামলা-সংঘর্ষে আহত
বরিশালের আগৈলঝাড়ায় তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে হামলা-সংঘর্ষে মহিলাসহ আহত হয়েছে ৩ জন। ২ জনকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এ ঘটনায় থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। স্থানীয় ও আহত সূত্রে জানা গেছে, রোববার বিকেলে উপজেলার উত্তর শিহিপাশা গ্রামের লিটন সরদারের ছেলে মেহেদী সরদার ও একই এলাকার হালিম মারামাতের ছেলে জিহাদ মরামাতের সাথে খেলা নিয়ে মারামারি হয়। এতে দুইজনই আহত হয়। লিটন সরদার আহত জিহাদকে হাসপাতালে নিয়ে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে বাড়ি পাঠিয়ে দেয়। কিন্তু জিহাদের পরিবার ওই দিন রাতে লিটন সরদারের কাছে টাকা পাওয়ার কথা বলে তার বাড়িতে মোস্তফা হাওলাদারের নেতৃত্বে মহসিন, মেজর ও রুবেল মারামত মিলে হামলা চালায়। এতে লিটন সরদার, তার স্ত্রী হেলেনা বেগম ও মেয়ে হীরা আক্তারকে পিটিয়ে জখম করে। হেলেনা ও হীরাকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এঘটনায় লিটন সরদার বাদী হয়ে থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করলে থানার এসআই মোশারফ হোসেন ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ