সোমবার ১৩ জুলাই ২০২০
Online Edition

ঈদকে সামনে রেখে বর্ণিল সাজে সেজেছে আত্রাইয়ের ব্যবসা প্রতিষ্ঠান

নাজমুল হক নাহিদ, আত্রাই (নওগাঁ) সংবাদদাতা : “ঈদে চাই নতুন পোশাক” ঈদের আর মাত্র কয়েকদিন বাকি। মুসলমানদের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব ঈদুল ফিতর। এদিকে নওগাঁর আত্রাইয়ে ঈদকে সামনে রেখে জমে উঠেছে ঈদের কেনাকাটা। রমযান মাস শুরুর সাথে সাথে নতুনরূপে সাজতে শুরু করেছে নওগাঁর আত্রাই উপজেলার ব্যবসা প্রতিষ্ঠানগুলো।
ঈদকে সামনে রেখে এখন বড় বড় শোরুম সাজাতেও ব্যস্ত সময় কাটাচ্ছে ব্যবসায়ীরা। ফলে দিন দিন বদলে যেতে শুরু করেছে বিভিন্ন মার্কেটের সৌন্দর্য। বাহারী পোশাক থেকে শুরু করে সব ধরনের ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে লেগেছে যেন নতুনের ছোয়া। ইতোমধ্যে উপজেলার বিভিন্ন বাজার যেমন আত্রাই নতুন বাজার, কলেজ রোড বাজার ও আত্রাই উপজেলা পরিষদ বাজারসহ গ্রামের বাজারগুলোতে ভিড় জমতে শুরু করেছে। বিশেষ করে কাটা কাপড়ের (টু-পিস, থ্রি-পিস) দোকানে দোকানে ভিড় শুরু হয়েছে রোজা শুরুর পর থেকেই। এরই মধ্যে চরম ব্যস্ত হয়ে পড়েছেন দর্জি কারিগররা। এছাড়াও জুতা সেন্ডেলের দোকানেও ভিড় লক্ষ্যে করা যাচ্ছে। মেয়েরা কসমেটিক দোকানে তাদের পছন্দের প্রসাধনী কেনাকাটা করছে।
আত্রাই কলেজ রোড বাজারের হিমেল গার্মেন্টের স্বত্বাধীকারী মোছাদ্দেক হোসনে পলাশ ও আত্রাই নতুন বাজারের বাবু-মুনি বস্ত্রালয়ের মালিক শাহাবুল ইসলাম বাবু বলেন, রমযানের প্রথম দিকে বৃষ্টিপাতের কারণে বেচাকেনা একটু কম ছিল। বর্তমানে বেচাকেনা খুবই ভালো এবং গত বছরের তুলনায় পোশাকের দাম একটু বেশি হওয়ায় সাধারণ ক্রেতারা হিমশিম হয়ে পড়ছে।
আত্রাই উপজেলা পরিষদ বাজারের সিটি বস্ত্রালয়ের মালিক আবুল কালাম আজাদ বলেন, রমযানের প্রথম দিকে ক্রেতাদের ভিড় কম লক্ষ্য করা গেলেও আস্তে আস্তে তা বৃদ্ধি পাচ্ছে। আশা করা যাচ্ছে দিন দিন ক্রেতার সংখ্যা বৃদ্ধি পাবে। তবে এবার ছোট শিশুদের পোশাকের চাহিদা বেশি।
ঈদের কেনাকাটা করতে আসা ক্রেতা শারমিন আক্তার বলেন, এবারের ঈদের বাজারে জামা-কাপড়ে দাম একটু বেশী হলেও শেষ পযন্ত কিনতে পেরেছি।
রাজনৈতিক স্থিতিশীলতা বজায় থাকায় চলতি ঈদের মৌসুমে ভালো ব্যবসা বাণিজ্যের আশা করছেন সংশ্লিষ্টরা। ব্যবসায়ীদের আশা আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থতি সবকিছু স্বাভাবিক থাকলে এবার ঈদে ব্যবসা-বাণিজ্য ভালো হবে। এ দিকে রোজার শুরু থেকেই চাঙ্গা হয়ে উঠেছে আত্রাইয়ের ব্যবসানির্ভর সকল প্রতিষ্ঠান। সেই সাথে চাঙ্গা। ব্লক বুটিক থেকে শুরু করে শোরুম সবখানে লেগেছে ঈদের আমেজ। ভ্রাম্যমান ব্যবসায়ীরা ও বসে নেই। পণ্য নিয়ে পাড়া মহল্লা চষে বেড়াতে শুরু করেছেন। বিক্রেতাদের সাথে কথা বললে তারা জানান, ১০ রমজানের পর থেকেই তাদের ব্যবসা বেশ জমে উঠেছে। বর্তমানে অতন্ত ব্যস্ত সময় পার করছেন তারা।
এবারের ঈদে মেয়েদের জন্য আকর্ষণীয় পোশাকের মধ্যে রয়েছে হরেক রকম নাম বাহুবলি টু, রাখিবন্ধন, পটল কুমার, বাজরাঙ্গি ভাইজা, ফ্লোর টার্চ, লাসা, লং স্কাট, শর্ট স্কাটসহ বিভিন্ন নামের থ্রি-পিস ও ফোর পিস পোশাক। তবে দেশী অনেক পোশাক ক্রেতাদের আকৃষ্ট করেছে। আকৃষ্ট করেছে দেশীয় পণ্য টাঙ্গাইল শাড়ি, জামদানী, খদ্দর, মনীপুরী, বালুচুরী, জর্জেট শাড়ি ইত্যাদি।
গত বছরের তুলনায় এবারে পোশাকের দাম একটু বেশি হওয়ায় বিপাকে পড়েছেন নিম্নবিত্তরা। এর কারণেই এদের শেষ আশ্রয় ফুটপাতের দোকানগুলো। তবে যাই হোক ঈদের দিনে নতুন জামা কাপড় পরে সবার সাথে ঈদের আনন্দ ভাগাভাগি করবে এই প্রত্যাশা সবার।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ