রবিবার ২০ সেপ্টেম্বর ২০২০
Online Edition

মানিকগঞ্জে সৌদী প্রবাসীর স্ত্রী খুন

মানিকগঞ্জ সংবাদদাতা : মানিকগঞ্জে ঘর থেকে ডেকে নিয়ে এক সৌদী প্রবাসীর স্ত্রীকে খুন করার অভিযোগ উঠেছে এক যুবকের বিরুদ্ধে। ঘটনাটি ঘটেছে শনিবার দিবাগত মধ্যরাতে মানিকগঞ্জের শিবালয় উপজেলার ছোট বুতুনী গ্রামে।
জানা গেছে, সৌদী প্রবাসী নজরুল ইসলামের স্ত্রী আয়েশা বেগম (৩৫) তার অষ্টম শ্রেণী পড়ুয়া একমাত্র ছেলে মবিনকে নিয়ে স্বামীর বাড়িতে থাকতেন। ১২ বছর বয়সী মেয়ে সোহানা আক্তার একটি আবাসিক মাদরাসায় পড়ে এবং সে সেখানেই থাকে।
আয়েশা বেগমের ছেলে মবিন জানায়, পার্শ্ববর্তী বিলবরইল গ্রামের মনোর উদ্দিন বারন বেপারীর ছেলে আজাদ (৪০) রাত একটায় তার মাকে ঘর থেকে জোড় করে টেনে হেঁচড়ে বাইরে নিয়ে যায় এবং ঘরের বাইরে সিকল লাগিয়ে দেয়। এরপর, তার মাকে বাড়ীর পার্শ্বের একটি পরিত্যক্ত স্থানে মৃতপ্রায় অবস্থায় পাওয়া যায়। পরে তাকে মানিকগঞ্জ সদর হাসপাতালে নেয়ার পথে সে মারা যায়।
আয়েশা বেগমকে নানাভাবে শারীরিক নির্যাতন করলে সে বাকরুদ্ধ হয় এবং কিছুক্ষণ পরেই তার মৃত্যু হয়। এর পেছনে তার শ্বশুরবাড়ির লোকজন জড়িত থাকতে পারে বলে তাদের ধারণা। তারা এই ঘটনার সুষ্ঠু তদন্তপূর্বক বিচার দাবি করেন।
শিবালয় থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা হাবিবুল্লাহ সরকার বলেন, লাশের ময়না তদন্তের পর প্রকৃত ঘটনা জানা যাবে।
জেলার ঘিওর উপজেলার বালিয়াখোড়া ইউনিয়নের চৌবাড়িয়া গ্রামের দুলাল মিয়ার মেয়ে আয়েশা বেগমের সাথে শিবালয় উপজেলার শিমুলিয়া ইউনিয়নের ছোট বুতুনী গ্রামের ওয়াজ উদ্দিনের ছেলে নজরুল ইসলামের সাথে ২২ বছর আগে বিয়ে হয়। স্বামী গত বছরের মে মাসে ৭ লাখ টাকা ধার-দেনা করে সৌদী যায়। এ নিয়ে শ্বশুরবাড়ির লোকজনের সাথে খুব একটা মিল ছিল না বলে জানা গেছে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ