বৃহস্পতিবার ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২০
Online Edition

নাটোরে ২৫ দিনেও অপহৃত মাদরাসা ছাত্রীর সন্ধান মেলেনি

নাটোর সংবাদদাতা : বড়াইগ্রামে মাদরাসা ছাত্রী চম্পা খাতুনকে (১৪) অপহরণের ২৫ দিন পেরিয়ে গেলেও তার কোন সন্ধানে মেলেনি। উল্টো মামলা করায় বাদীপক্ষকে হুমকি দিচ্ছে আসামীর পরিবার ও তাদের আতœীয় এক ইউপি সদস্য। এ ঘটনায় স্বজনেরা চম্পার জীবনহানীর আশঙ্কায় উদ্বিগ্ন হয়ে পড়েছেন। অপহৃত চম্পা খাতুন উপজেলার তালশো গ্রামের মৃত বাহার উদ্দিনের মেয়ে ও কুমারখালী দাখিল মাদরাসার ষষ্ঠ শ্রেণীর ছাত্র। মামলা ও অপহৃতের পরিবার সুত্রে জানা যায়, গত ১৪ এপ্রিল বাংলা নববর্ষের দিন চম্পা তার ভাতিজি মৌকে সাথে নিয়ে নানার বাড়ি থানাইখাড়া থেকে নগর বাজারে বেড়াতে যায়। এ সময় চম্পার প্রতিবেশী মামা মিনহাজুল তাদেরকে জোনাইলে মেলা দেখাতে নিয়ে যাওয়ার কথা বলে একটি অটো রিক্সায় উঠায়। পরে জোনাইল পার হয়ে বাগডোব নিয়ে গেলে তারা যেতে আপত্তি জানিয়ে গাড়ি থেকে নামার চেষ্টা করে। কিন্তু সেখানে আগে থেকে অবস্থান করা তালশো গ্রামের জাহিদুল ইসলামের ছেলে সবুজ ও তার সাথে থাকা লোকজন মিলে মৌকে অটো রিক্সা থেকে ফেলে দিয়ে মিনহাজুলের সহযোগিতায় চম্পাকে জোর পূর্বক তুলে নিয়ে চলে যায়। পরে অনেক চেষ্টা করে গত ২৫ দিনেও তার কোন সন্ধান মেলেনি। এ ব্যাপারে নাটোর কোর্টে মামলা করা হয়েছে। এদিকে, মামলা করায় মিনহাজুলের বড় ভাই ইউপি সদস্য মিজানুর রহমান ও সুবজের স্বজনেরা চম্পার বিধবা মাসহ অন্যদের নানা ভাবে হুমকি দেয়ায় তারা চরম নিরাপত্তাহীনতার মধ্যে দিন কাটাচ্ছেন বলে জানান তারা। এ ব্যাপারে জানতে চাইলে বুধবার ইউপি সদস্য মিজানুর রহমান হুমকি দেয়ার অভিযোগ অস্বীকার করে তিনি ও তার ভাই এ ঘটনার সঙ্গে জড়িত নয় বলে দাবী করেন। বড়াইগ্রাম থানার ওসি শাহরিয়ার খান জানান, এ ব্যাপারে তদন্ত সাপেক্ষে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ