ঢাকা, বুধবার 12 August 2020, ২৮ শ্রাবণ ১৪২৭, ২১ জিলহজ্ব ১৪৪১ হিজরী
Online Edition

সংরক্ষিত বনাঞ্চলে বিদ্যুৎকেন্দ্র স্থাপন নিয়ে টিআইবির উদ্বেগ

সংগ্রাম অনলাইন ডেস্ক: পরিবেশ অধিদপ্তরের ছাড়পত্র ছাড়াই বরগুনার টেংরাগিরি সংরক্ষিত বনাঞ্চলের কাছে কয়লাভিত্তিক তাপ বিদ্যুৎকেন্দ্র স্থাপনের উদ্যোগে গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করেছে ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশ (টিআইবি)।খবর ইউএনবির।

সোমবার এক বিবৃতিতে টিআইবির নির্বাহী পরিচালক ড. ইফতেখারুজ্জামান সংবাদপত্রে প্রকাশিত খবরের বরাত দিয়ে বলেন, পরিবেশ অধিদপ্তরের ছাড়পত্র ছাড়াই দেশীয় প্রতিষ্ঠান আইসোটেক ও দুটি বিদেশি প্রতিষ্ঠান দেশের দ্বিতীয় সুন্দরবন হিসেবে পরিচিত সংরক্ষিত টেংরাগিরি বন থেকে এক কিলোমিটারেরও কম দূরত্বে ৩০৭ মেগাওয়াটের কয়লা বিদ্যুৎকেন্দ্র স্থাপন করছে।

এই বিদ্যুৎকেন্দ্র থেকে বিদ্যুৎ কিনতে বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ড (পিডিবি) ইতিমধ্যে ২৫ বছর মেয়াদী পাওয়ার পারচেজ অ্যাগ্রিমেন্ট (পিপিএ) করেছে বলেও জানান তিনি।

পরিবেশ সংরক্ষণ আইন ১৯৯৭ এর ৭(৪) ধারা লঙ্ঘন করে বিদ্যুৎকেন্দ্রটি স্থাপনের উদ্যোগ নেয়া হয়েছে জানিয়ে টিআইবির নির্বাহী পরিচালক বলেন, পরিবেশ আইন অনুযায়ী সংরক্ষিত বনের ১০ কিলোমিটারের মধ্যে কোনো ধরনের শিল্পকারখানা স্থাপন নিষেধ। কিন্তু তা অমান্য করে সরকারি প্রতিষ্ঠানের অংশগ্রহণে এ ধরনের উদ্যোগ নেয়া দেশের জন্য উদ্বেগজনক।

এই আত্মঘাতী উদ্যোগ প্রাণ ও পরিবেশের জন্য ঝুঁকিপূর্ণ জানিয়ে ড. ইফতেখারুজ্জামান অবিলম্বে তা বাতিল করতে সরকারের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন।

পরিবেশ ও বন মন্ত্রণালয় ২০১০ সালের অক্টোবরে টেংরাগিরি বনাঞ্চলকে বন্য প্রাণির অভয়াশ্রম হিসেবে ঘোষণা করে। প্রাকৃতিকভাবে গড়ে ওঠা এ বনাঞ্চল অতীতে সুন্দরবনের অংশ ছিল। ১৯৬০ সালে একে সংরক্ষিত বনাঞ্চল হিসেবে ঘোষণা দেয়া হয়। এ বনে গেওয়া, জাম, ধুন্দুল, কেওড়া, সুন্দরী, বাইন, করমচা, গরান প্রভৃতি গাছের সমারোহ ছাড়াও বসত গড়েছে কাঠবিড়ালি ও বানরসহ প্রায় ৪০ প্রজাতির প্রাণি।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ