শনিবার ০৮ আগস্ট ২০২০
Online Edition

রাজধানীতে পুলিশের ধাক্কায় শরবত বিক্রেতার মৃত্যুর অভিযোগ

স্টাফ রিপোর্টার : রাজধানীর গুলিস্তানে পুলিশের ধাক্কায় ফুটপাতের শরবত বিক্রেতা মো. শাহজামালের (৬৫) মৃত্যু হয়েছে বলে অভিযোগ করেছেন তার ছেলে ইব্রাহিম। গতকাল শনিবার  বিকালে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে এ অভিযোগ করেন তিনি।
মৃতের স্বজন ও ছেলে জানান, গুলিস্তানে বঙ্গবন্ধু স্টেডিয়াম ৩ নম্বর গেইটের সামনে শরবত বেচতেন ময়মনসিংহের শিকারিকান্দা গ্রামের শাহজামাল।  দুপুরে সিটি করপোরেশনের উচ্ছেদ অভিযান চলার সময় পুলিশ শাহজামালের শরবতের গাড়ির একটি গ্লাস লাঠি দিয়ে ভেঙে ফেলেন এবং গাড়ি নিয়ে দ্রুত সড়ে যাওয়ার জন্য তাকে ধাক্কা দেন। পুলিশের ধাক্কায় শাহজামাল মাটিতে পড়ে যান। পরে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে আসার পর দুপুর ২টা ১০ মিনিটে চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।
শাহজামালের বড় ছেলে ইব্রাহিম বলেন, ‘পুলিশের ধাক্কায় আমার বাবা মাটিতে পড়ে যায়। পরে ঢাকা মেডিকেলে নেওয়া হলে মারা যান। আমার বাবা এমনিতে স্ট্রোকের রোগী ছিলেন।’
শাহজামালকে ঢামেকে নিয়ে আসা জুম্মন বলেন, ‘পুলিশের ধাক্কায় পড়ে গিয়ে তিনি অচেতন অবস্থায় ছিলেন। পরে পুলিশ একটি ভ্যানে তুলে আমাকে মেডিকেলে পাঠায়।’
শরিফ নামের প্রত্যক্ষদর্শী এক কিশোর বলেন, ‘উচ্ছেদের সময় পুলিশ ওই শরবত ব্যবসায়ীকে তাড়াতাড়ি সেখান থেকে যাওয়ার জন্য লাঠি দিয়ে একটি গ্লাস ভেঙে দেয় এবং তাকে ধাক্কা দেয়। তখন লোকটা মাটিতে পড়ে যায়।’
শাহজামালের ৪ ছেলে ও ২ মেয়ে রয়েছে। তার স্ত্রীর নাম তহুরা বেগম।
এ বিষয়ে কথা বলার জন্য ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের প্রধান সম্পত্তি কর্মকর্তা আব্দুল মালেককে একাধিকবার ফোন করেও  পাওয়া যায়নি।

ব্যাংকের বেজমেন্টে ঝুলন্ত লাশ
মতিঝিল এনসিসি ব্যাংকের বেজমেন্ট-৩ থেকে মহিব উল্লাহ (২২) নামের এক ব্যক্তির ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। মহিব ব্যাংকের ওয়াটার পাম্প অপারেটর হিসেবে কাজ করতেন। গতকাল শনিবার সকাল সাড়ে ১০টায় তার লাশ উদ্ধার করে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।
মতিঝিল থানার এসআই প্রাণতোষ বণিক  জানান, তৃতীয় একটি পক্ষের মাধ্যমে মহিব এনসিসি ব্যাংকের ওয়াটার পাম্প অপারেটর হিসেবে কাজ করত।
এ ব্যাপারে মতিঝিল থানার ইন্সপেক্টর (অপারেশন) মনির হোসেন মোল্লা বলেন, ‘তার (মহিবের) ডিউটি ছিল শুক্রবার রাত ১১টা থেকে শনিবার সকাল ৭টা পর্যন্ত। এর মধ্যেই কোনও এক সময় এ ঘটনা ঘটে। তাকে গলায় বৈদ্যুতিক তার জড়োনো ঝুলন্ত অবস্থায় পাওয়া যায়।’
নিহতের চাচা জুয়েল বলেন, ‘সকাল ৯ টায় খবর পেয়ে মতিঝিলে এসেছি। কী কারণে এটা হয়েছে বলতে পারছি না।’
জানা যায়, নিহত মহিব চাঁদপুর জেলার শাহারাস্তি উপজেলার দৈকসতা গ্রামের আবুল খায়েরের ছেলে। বর্তমানে ১৩৫ দক্ষিণ মুগদায় থাকতো।
মহিব উল্লাহর চাচা আবুল হোসেন বলেন, ‘মহিবুল ধানমন্ডির ডেফোডিল ইউনিভার্সিটিতে ট্রিপল-ই সাবজেক্ট অনার্সের তৃতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী ছিল। সে পড়াশুনার পাশাপাশি এনসিসি ব্যাংকের বেজমেন্ট পানির পাম্পের অপারেটর হিসাবে কাজ করতো। এক ভাই এক বোনের মধ্যে সে ছিল ছোট। তার বাবা জনপ্রশাসনের অবসরপ্রাপ্ত কর্মকর্তা।’
চাচা আরও বলেন, 'মহিব উল্লাহর সঙ্গে একটি মেয়ের সম্পর্ক ছিল, মেয়েটির তার চেয়ে বয়সে বড় ছিল। সম্প্রতি ঐ মেয়েটির অন্যত্র বিয়ে ঠিক হয়ে যায়। এছাড়াও অন্য কোনও কারণ রয়েছে কিনা, তা পুলিশের তদন্তে বেরিয়ে আসবে বলে তিনি জানিয়েছেন।'

৪ মণ গাঁজাসহ আটক ২
যাত্রাবাড়ি এলাকা থেকে ১৬০ কেজি (৪ মণ) গাঁজাসহ দুই ব্যবসায়ীকে আটক করেছে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদফতর (ডিএনসি)। শুক্রবার রাত সাড়ে ১১টার দিকে যাত্রাবাড়ির শহীদ ফারুক সড়কে একটি ট্রাক থেকে এ পরিমাণ গাঁজা উদ্ধার করা হয়। আটককৃতরা হলেন, শফিক শেখ ও রফিকুল ইসলাম। এসময় গাঁজা বহনকারী ট্রাকটিকেও আটক করে ডিএনসি’র কর্মকর্তারা।
মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদফতরের ঢাকা মেট্রো উপ-অঞ্চলের সহকারী পরিচালক (ঢাকা উত্তর) মোহাম্মদ খোরশিদ আলম বলেন, ‘গোপন সংবাদের ভিত্তিতে আমরা অভিযান চালাই। এসময় গাঁজাসহ দুজনকে আটক করি।’ তিনি আরও জানান, প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে আটককৃতরা জানিয়েছে, উদ্ধারকৃত গাঁজার ৫০-৬০ কেজি ঢাকার বেশ কয়েকটি স্পটে বিক্রির পর বাকি গাঁজা গাজীপুরে বিক্রি করার কথা ছিল। এই চালানের সঙ্গে আরও কে কে জড়িত রয়েছে সেগুলো তদন্ত করে বের করা হবে বলে জানান খোরশিদ আলম। তিনি বলেন, আটককৃতদের বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে। তাদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ