ঢাকা, বুধবার 12 August 2020, ২৮ শ্রাবণ ১৪২৭, ২১ জিলহজ্ব ১৪৪১ হিজরী
Online Edition

আজ আন্তর্জাতিক ধাত্রী দিবস

সংগ্রাম অনলাইন ডেস্ক: আজ আন্তর্জাতিক মিডওয়াইফ বা ধাত্রী দিবস। একজন প্রশিক্ষিত ধাত্রী মা ও নবজাতকের প্রয়োজনীয় সেবা দিতে পারেন। সন্তান জন্মের আগে-পরে যেসব সেবার দরকার হয় তার অনেকাংশই ধাত্রীরা দিতে সক্ষম। যুগ যুগ ধরে ধাত্রীরা যেভাবে মায়েদের সন্তান প্রসবে সেবা দিয়ে আসছে, তারই স্বীকৃতি দিতে আশির দশক থেকে তারা দিবসের দাবি জানিয়ে আসছিল। ১৯৯২ সালের ৫ মে আন্তর্জাতিক ভাবে ধাত্রী দিবস স্বীকৃতি পায়।

বিশ্বের অন্যান্য দেশের সঙ্গে আজ শনিবার বাংলাদেশেও পালন করা হচ্ছে দিবসটি। এবারের শ্লোগান `মা ও শিশু স্বাস্থ্যের মানসম্মত সেবা প্রদানে মিডওয়াইফ এগিয়ে`। 

রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এ উপলক্ষ্যে পৃথক পৃথক বাণী দিয়েছেন।

রাষ্ট্রপতি তার বাণীতে বলেছেন, গর্ভবতী মা ও নবজাতকের স্বাস্থ্যপরিচর্যা ও মৃত্যুহার হ্রাসে প্রশিক্ষিত মিডওয়াইফরা গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখে। বিশেষ করে একজন মায়ের পরিবার পরিকল্পনা থেকে শুরু করে গর্ভধারণ, সন্তান প্রসব ও প্রসব পরবর্তী সেবা প্রদানে মিডওয়াইফ অগ্রণী ভূমিকা রাখতে পারে।

এ দিবস উপলক্ষে দেওয়া বাণীতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, আশা করি, প্রত্যন্ত অঞ্চলে মা ও শিশুর মানসম্মত স্বাস্থ্যসেবা পৌঁছে দিতে মিডওয়াইফরা গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবেন।

শেখ হাসিনা বলেন, আমরা দেশে নতুন নতুন হাসপাতাল প্রতিষ্ঠা, শয্যা সংখ্যা বৃদ্ধি, বিশেষায়িত হাসপাতাল ও নার্সিং ইনস্টিটিউট প্রতিষ্ঠা করেছি। প্রত্যন্ত অঞ্চলে স্বাস্থ্যসেবা প্রদানের লক্ষ্যে আমরা সাড়ে ১৮ হাজার কমিউনিটি ক্লিনিক ও ইউনিয়ন স্বাস্থ্যকেন্দ্র চালু করেছি। সরকারি হাসপাতালগুলোতে বিনামূল্যে রোগীদের ৩০ প্রকারের ওষুধ সরবরাহ করা হচ্ছে। এর ফলে মা ও শিশু স্বাস্থ্যসেবায় উল্লেখযোগ্য অগ্রগতি অর্জিত হয়েছে। ফলে আজ আমরা উন্নয়নশীল দেশের মর্যাদা অর্জন করেছি।

রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রী আন্তর্জাতিক মিডওয়াইফ দিবস উপলক্ষে গৃহীত সব কর্মসূচির সার্বিক সফলতা কামনা করেন।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ