রবিবার ২৯ নবেম্বর ২০২০
Online Edition

আদিম ও প্রাচীন সমাজে মুদ্রার ব্যবহার

মুহাম্মদ মনজুর হোসেন খান : (গত সংখ্যার পর) গোটা পৃথিবীতে বহু শতাব্দিকাল থেকে ধাতব মুদ্রার প্রচলন বিদ্যমান থাকলেও শিল্প বিপ্লবের পরের পৃথিবীর বিনিময় মাধ্যম হিসেবে চাহিদা মিটাতে ধাতব মুদ্রা অক্ষম হয়ে পড়ে। গোটা পৃথিবীর ব্যবসায়-বাণিজ্য আর লেনদেনের পরিমাণ এতই বৃদ্ধি পায় যে, স্বর্ণ মুদ্রা কিংবা রৌপ্য মুদ্রার মাধ্যমে এ বিশাল চাহিদা পূরণ করা সম্ভব ছিল না। পৃথিবী তখন এমন আরেকটি মুদ্রার প্রয়োজনীয়তা অনুভব করে যার মাধ্যমে দেশীয় ও আন্তর্জাতিক লেনদেন ব্যবসায়-বাণিজ্য ও কারবারের বিনিময় মাধ্যম ও মূল্য পরিমাপক হিসেবে যোগান দেয়া সম্ভব, যার যোগান ধাতব মুদ্রার মত সীমিত থাকবে না। আর তখনই আবিস্কার হল ‘কাগজী মুদ্রা’। ১৭শ শতাব্দিতে ইউরোপে বিশেষ করে ইংল্যান্ডে কাগজী মুদ্রার প্রথম প্রচলন শুরু হয়। যদিও কাগজী মুদ্রা অনেকগুলো ধাপ বা স্তর অতিক্রম করে আজকের পর্যায়ে উন্নীত হয়েছে। অর্থনীতিবিদদের ধারণা, কাগজি মুদ্রা এ পরিণত পর্যায়ে পৌঁছাতে প্রায় তিন শত বছরেরও বেশী সময় পার হয়েছে। মুদ্রার ইতিহাসে কাগজি মুদ্রার আবিষ্কার এক বিরল ঘটনা। যে পদ্ধতির সাহায্যে দেশের অর্থের যোগান ও এর মূল্য নিয়ন্ত্রিত হয় তাকে মুদ্রাব্যবস্থা বলে। দেশের অর্থনৈতিক কর্মপ্রবাহ অক্ষুণœ রাখার উদ্দেশ্যে অর্থের যথোপযুক্ত যোগানের বন্দোবস্ত করে দেশের দাম স্তর ও অর্থের মূল্যের স্থিতিশীলতা বজায় রাখাই মুদ্রাব্যবস্থার লক্ষ্য। সুতরাং দেশের অর্থনৈতিক উন্নয়নে মুদ্রাব্যবস্থার গুরুত্ব অনস্বীকার্য। 

ইসলামী মুদ্রা ব্যবস্থার প্রধান বৈশিষ্ট্য হল, দ্বি-ধাতুমান মুদ্রাব্যবস্থা। ইসলামের আবির্ভাবের পর সাময়িকভাবে রোম সাম্রাজ্যের স্বর্ণ মুদ্রা এবং পারস্য সাম্রাজ্যের রৌপ্য মুদ্রা- এ দু’টি মুদ্রাই যুগপৎভাবে ইসলামী রাষ্ট্রে প্রচলিত ছিল। অতঃপর উমর রা. উক্ত মুদ্রা দুটির আকার আকৃতির কিছু পরিবর্তন এবং ইসলামী ভাবধারার কিছু শব্দাবলী সংযোজন করে ইসলামী মুদ্রা প্রচলন করেন। পরবর্তীতে খলীফা আব্দুল মালিক এবং উমাইয়া ও আব্বাসীয় খলিফাদের আমলে আরো অনেক পরিবর্তন ও পরিবর্ধন করে ইসলামী মুদ্রার প্রচলন করা হয়, যা ইসলামের সুদীর্ঘ শাসনামলে প্রচলিত ছিল। ইসলামী মুদ্রা ব্যবস্থার আরেকটি বৈশিষ্ট্য হল, দেশের অভ্যন্তরে প্রচলিত বিহিত মুদ্রার ধাতবমান। ইসলামী অর্থব্যবস্থায় বিহিত মুদ্রার অবশ্যই ধাতব মূল্য থাকতে হবে, কিংবা অবশ্যই তা পরিবর্তনীয় হতে হবে। এ অর্থে ইসলামে বিভিন্ন দেশে প্রচরিত কাগজি মুদ্রাকে সমর্থন করে কিন্তু এটাকে অবশ্যই পরিবর্তনীয় মুদ্রা হতে হবে।  (চলবে)

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ