ঢাকা, মঙ্গলবার 11 August 2020, ২৭ শ্রাবণ ১৪২৭, ২০ জিলহজ্ব ১৪৪১ হিজরী
Online Edition

যোগাযোগ বঞ্চিত চরবাসীর জন্য বুড়াগৌরাঙ্গ নদে ফেরি চালু 

সংগ্রাম অনলাইন ডেস্ক: বুড়াগৌরাঙ্গ নদীতে ফেরি সার্ভিস চালুর মাধ্যমে সড়ক নেটওয়ার্কের সাথে যুক্ত হতে যাচ্ছে দক্ষিণাঞ্চলের দুই জেলা পটুয়াখালী ও ভোলার যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন জনপদ।

বুধবার নৌ-পরিবহন মন্ত্রী শাজাহান খান ও স্থানীয় এমপি আখম জাহাঙ্গীর হোসাইন আনুষ্ঠানিকভাবে ফেরি সার্ভিস উদ্বোধন করবেন।

এর মাধ্যমে দুই জেলার চার উপজেলার যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন পাঁচটি ইউনিয়নের প্রায় ৭০টি গ্রামের অন্তত আড়াই লাখ মানুষ মূল ভূ-খণ্ডের সাথে যুক্ত হতে যাচ্ছে।

এছাড়া এসব এলাকার কৃষি, মৎস্য, পর্যটন এবং স্বাস্থ্য সেবাসহ বিভিন্ন খাতেও ইতিবাচক পরিবর্তনের হাওয়া বইছে। প্রথম ও নতুন ফেরি পেয়ে এলাকাবাসী ব্যাপক উৎফুল্ল। এর মাধ্যমে এলাকার মানুষের দীর্ঘদিনের একটি চাওয়া পূরণ হতে যাচ্ছে।

দক্ষিণের সাগরপারের জেলা পটুয়াখালীর গলাচিপা উপজেলার অন্যতম বিপদসঙ্কুল নদ বুড়াগৌরাঙ্গ। বছরের অধিকাংশ সময় নদটি উত্তাল থাকে। প্রায় আট কিলোমিটার দৈর্ঘ্যের এ নদটির উৎসমুখ বঙ্গোপসাগরে গিয়ে যুক্ত হওয়ায় সামান্য বায়ুপ্রবাহে নদটি হিংস্র হয়ে ওঠে। এ নদে বহুবার নৌযান দুর্ঘটনার ঘটনা ঘটেছে।

এলাকাবাসী জানান, এসব এলাকার মানুষ উপজেলা থেকে জেলা সদরে যাতায়াতে যুগের পর যুগ অবর্ণনীয় দুর্ভোগ পোহাচ্ছে। অনেক রোগী নিয়ে উন্নত চিকিৎসার জন্য উপজেলায় পৌঁছানোর আগেই নদীতে ট্রলারে বা নৌকায় মারা যাওয়ার নজিরও কম নেই বলে জানিয়েছেন চরের ভুক্তভোগীরা।

দিনের বেলা নদটিতে খেয়া পারাপারের কোনো রকম ব্যবস্থা থাকলেও রাতে তা পুরোপুরি বন্ধ থাকে। ফলে দুর্ভোগ আরও তীব্র হয়।

চরকাজল ইউপি চেয়ারম্যান রুবেল জানান, চরবোরহানে দেশের সর্ব বৃহৎ বীজাগার রয়েছে। কৃষককুল তাদের প্রয়োজনে ইচ্ছা করলেই সেখানে যেতে পারতো না। নদীর উত্তাল ঢেউয়ের ভয়াবহতায় প্রাণহানির আশংকায় বীজাগারের উপকারভোগী কৃষকের যোগাযোগ হ্রাস পেয়েছে। দীর্ঘ দিনের সে সমস্যা এখন আর থাকবে না।

বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌপরিবহন কর্তৃপক্ষের বরিশালের নির্বাহী প্রকৌশলী মামুন উর রশিদ জানান, নৌমন্ত্রীর নির্দেশনার প্রেক্ষিতে এ রুটে ‘কেতকী’ নামের অত্যাধুনিক ফেরি সার্ভিস চালু করা হচ্ছে। ফেরিতে এক সঙ্গে অত্যন্ত ২০-২৫টি গাড়ি পারাপার করা যাবে। এরই মধ্যে নদের বদনাতলী ও চরশিবা ঘাটে জেটি স্থাপন করা হয়েছে। নদটিতে কিছু ডুবোচর অপসারণে ড্রেজিং করা শুরু হয়েছে জানিয়ে তিনি বলেন, এ ফেরি সার্ভিস চালুর মধ্য দিয়ে এলাকাবাসীর দীর্ঘ দুর্ভোগের অবসান হতে যাচ্ছে।-ইউএনবি

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ