শনিবার ০৬ জুন ২০২০
Online Edition

কাবুলে জোড়া বিস্ফোরণে ৯ সাংবাদিকসহ নিহত ২৯

কাবুলে গোয়েন্দা সদর দপ্তরের বাইরে বোমা বিস্ফোরণের মুহূর্ত। রাস্তায় ছড়িয়ে আছে হতাহতদের দেহ

৩০ এপ্রিল, টোলো নিউজ/আল জাজিরা/এএফপি/ওয়ান টিভি : আফগানিস্তানের কাবুলে দেশটির গোয়েন্দা সংস্থার সদর দফতরের কাছে দুই দফা আত্মঘাতী বোমা বিস্ফোরণে ৯ সাংবাদিকসহ অন্তত ২৯ জন নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছেন আরও ৪৯ জন। আফগানিস্তানের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের বরাত দিয়ে আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যমগুলো হতাহতের সংখ্যা জানিয়েছে। প্রথম দফার বিস্ফোরণের পর জড়ো হওয়া মেডিক্যালকর্মী এবং সাংবাদিকদের লক্ষ্য করে দ্বিতীয় হামলাটি চালানো হয়। নিহতের সংখ্যা আরও বাড়তে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে। এরইমধ্যে হামলার দায় স্বীকার করেছে মধ্যপ্রাচ্যভিত্তিক জঙ্গি গোষ্ঠী আইএস।

আফগানিস্তানের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় জানায়, গতকাল সোমবার সকাল আটটার দিকে কাবুলের শাসদারাক এলাকায় আফগান কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা সংস্থার কাছে প্রথম বিস্ফোরণটি হয়। মোটর সাইকেল আরোহী এক দুর্বৃত্ত প্রথম বিস্ফোরণটি চালায়। পরে বিস্ফোরণের খবর সংগ্রহ করতে সাংবাদিক ও চিকিৎসাকর্মীরা জড়ো হলে সেখানে আবারও হামলা চালানো হয়।

দ্য আফগান জার্নালিস্টস সেফটি কমিটি জানিয়েছে দ্বিতীয় বিস্ফোরণে ৯ সাংবাদিক নিহত হয়েছেন। ফরাসি বার্তা সংস্থা জানিয়েছে, নিহতদের মধ্যে তাদের ফটো সাংবাদিক শাহ মারাইও রয়েছেন। আফগানিস্তানের টেলিভিশন চ্যানেল জানিয়েছে তাদের রিপোর্টার গাজি রাসুলি এবং ক্যামেরাপার্সন নওরোজ আলি রজবি ওই হামলায় নিহত হয়েছেন। রেডিও ফ্রি ইউরোপের দারি ভাষার সংস্করণ আজাদি রেডিও জানিয়েছে তাদের দুই কর্মী নিহত হওয়ার কথা। কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আল-জাজিরার ফটোগ্রাফার বিস্ফোরণে আহত হয়েছেন। আরও দুই সাংবাদিক দ্বিতীয় বিস্ফোরণে আহত হয়েছে। এর আগে ২২ এপ্রিল সকালে পশ্চিম কাবুলের দাস্ত-এ-বাচরি এলাকার ভোটার নিবন্ধন কেন্দ্রে হামলায় ৬০ জন নিহত হয়। ওই এলাকায় মূলত শিয়া হাজারা সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের বাস। ২২ এপ্রিলের ওই হামলারও দায় স্বীকার করেছিল জঙ্গিগোষ্ঠী আইএস। 

এই বছরের অক্টোবরে আফগানিস্তানে বহুল প্রত্যাশিত সংসদ ও জেলা পরিষদ নির্বাচন অনুষ্ঠানের কথা রয়েছে। নির্বাচন সামনে রেখে ভোটার নিবন্ধন কার্যক্রম চলছে।

যুক্তরাষ্ট্র সমর্থিত সরকারের বিরোধী সশস্ত্র গোষ্ঠী তালেবান দেশটিতে অনেক বেশি সক্রিয়। আফগান সরকার তাদের শান্তি আলোচনায় বসার আহ্বান জানালেও এখনও তা শুরু হয়নি। সম্প্রতি আফগান সরকারের শান্তি আলোচনার প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করে তালেবানের পক্ষ থেকে 'বসন্ত অভিযান' শুরুর ঘোষণা দেওয়া হয়েছে। নির্বাচন ঘিরে আরও হামলার আশঙ্কা করছে আফগান সরকার।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ