মঙ্গলবার ০৪ আগস্ট ২০২০
Online Edition

কেশবপুরে রাতের আধারে কৃষকের ক্ষেতের ধান লুট

কেশবপুর (যশোর) সংবাদদাতা : আদালতের নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে কেশবপুর উপজেলার মজিদপুর গ্রামে এক কৃষকের ২৪ শতক জমির উঠতি বোরো ধান গত বুধবার গভীর রাতে ৫০/৬০ জনের একদল দুর্বৃত্ত ক্ষেত থেকে কেটে লুট করে নিয়ে গেছে। খবর পেয়ে থানা পুলিশ লুট হওয়া ধান উদ্ধার করেছে। 

অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার মজিদপুর গ্রামের কৃষক আব্দুল জলিল ১৯৮৯ সালের ২৭ ফেব্রুয়ারি একই গ্রামের মৃত টিনাই সরদারের ছেলে আব্দুল বারিক ওরফে গুম বারিকের কাছ থেকে আফিল এগ্রো ফার্মের পাশে ২৪ শতক জমি কিনে ভোগ দখল করেছেন। সেই সূত্রে চলতি বোরো মৌসুমে আব্দুল জলিল তাঁর জমিতে ধান রোপণ করে পরিচর্যা করে আসছেন। এদিকে, গুম বারিকের স্ত্রী নাছিমা বেগম বিভিন্ন সময়ে ওই জমি দাবি করে জবর দখলের হুমকি দিতে থাকলে গত ১ মার্চ আব্দুল জলিল বিজ্ঞ অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে ১৪৪ ধারায় মামলা করেন। আদালতের নির্দেশে পুলিশ শান্তি শৃঙ্খলা ভঙ্গের আশঙ্কায় ওই জমির ওপর আদালতের নিষেধাজ্ঞা জারি করে। এরপরও নাসিমা বেগম ওই বিরোধীয় জমির ধান কেটে নেয়ার হুমকি দিলে গত ১৬ এপ্রিল আব্দুল জলিলের আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে যাতে সে সহজেই ধান ঘরে তুলতে পারে তাঁর প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্যে আদালত কেশবপুর থানার ওসিকে আদেশ দেয়। যার নং-পি-২৮৭/১৮। এদিকে, নাসিমা বেগম আদালতের এ নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে ১৮ এপ্রিল (বুধবার) গভীর রাতে বিভিন্ন এলাকা থেকে ৫০/৬০ জন সন্ত্রাসী ভাড়া করে এনে কৃষক আব্দুল জলিলের ওই জমির রোপণকৃত আধাপাকা ধান কেটে নিয়ে এলাকার মুছা সরদারের বাড়িতে লুকিয়ে রাখে। বৃহস্পতিবার সকালে পুলিশ লুট হওয়া ধান উদ্ধার করে।     

মজিদপুর গ্রামের মেম্বার আব্দুল আহাদ জানান, গুম বারিকের স্ত্রী নাসিমা বেগম ওই জমির ধান লুট করার জন্যে বহুদিন ধরে ষড়যন্ত্র চালিয়ে যাচ্ছেন। এরই সূত্র ধরে সে থানায় মিথ্যা অভিযোগ দিয়ে কৃষক আব্দুল জলিলকে আটক করে জেলে ঢোকায়। এ সুযোগে বুধবার রাতে তাঁর ভাড়া করা সন্ত্রাসীরা ওই জমির ধান কেটে লুট করে নিয়ে যায়। 

এ ব্যাপারে নাছিমা বেগম জানান, ওই জমি তাঁর স্বামীর পৈত্রিক সম্পত্তি। আব্দুল জলিল ফেরৎ দেয়ার শর্তে বন্ধক রেখেছিল। কিন্তু সে ফেরৎ না দেয়ায় ধান কাটা হয়েছে। কিন্তু রাতের আধারে ধান কাটা হলো কেন জানতে চাইলে তিনি তা এড়িয়ে যান। 

 কেশবপুর থানার এসআই শিকদার রাকিবউদ্দীন জানান, ধান কাটার খবর পেয়ে আদালতের নির্দেশে ঘটনাস্থলে গিয়ে ধান জব্দ করে এলাকার মেম্বার জেসমিন বেগমের জিম্মায় রাখা হয়েছে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ