শুক্রবার ১৪ আগস্ট ২০২০
Online Edition

রংপুরে পুত্র হত্যার দায়ে পিতার যাবজ্জীবন 

 

রংপুর অফিস: পূত্র হত্যার দায়ে রংপুরের জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক এবিএম নিজামুল হক এর আদালতে গতকাল বৃহস্পতিবার পিতা আমিনুল ইসলামকে যাবজ্জীবন কারাদ- প্রদান করেছেন। এ সময় আসামী আমিনুল আদালতে উপস্থিত ছিলেন।

মামলার বিবরণে প্রকাশ, রংপুরের বদরগঞ্জ উপজেলার লোহানীপাড়া ইউনিয়নের মোসলামারী গ্রামের আমিনুল ইসলামের পুত্র রায়হান কবীর (২২) এর সঙ্গে মিঠাপুকুর উপজেলার বড়বালা ইউনিয়নের ছড়ান আটপুনিয়ার চর গ্রামের রুপালি বেগমের পারিবারিকভাবে বিয়ে হয়। বিয়ের সময় রুপালির বাবা যৌতুক হিসেবে নগদ অর্থ ও কিছু উপহার সামগ্রী জামাতা রায়হান কবীরকে দেন। পরবর্তীতে ছেলের শ্বশুর বাড়ি থেকে পাওয়া অর্থ ও উপহার সামগ্রী পিতা আমিনুল ইসলাম আত্মসাৎ করেন। এ নিয়ে পিতা-পুত্রের মধ্যে বিরোধের সূত্র ধরে ঘটনার দিন ২০১৪ সালের ৩১ ডিসেম্বর বিকেলে নিজ বাড়িতে আমিনুলের সঙ্গে ছেলে রায়হানের কথা-কাটাকাটি হয়। এক পর্যায়ে আমিনুল তার হাতে থাকা চাকু দিয়ে রায়হানকে আঘাত করলে ঘটনাস্থলেই তার মৃত্যু ঘটে। এ ব্যাপারে ঐ দিনই রায়হানের স্ত্রী রুপালি বেগম বাদী হয়ে আমিনুলকে আসামী করে বদরগঞ্জ থানায় হত্যা মামলা দায়ের করেন।

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা তৎকালীন বদরগঞ্জ থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই)  তৈয়ব আলী সরকার দীর্ঘ তদন্ত শেষে ২০১৫ সালের ২১ এপ্রিল আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করেন। প্রায় তিন বছর মামলাটি আদালতে বিচারাধীন থাকার পর গতকাল বৃহস্পতিবার আদালতের বিজ্ঞ বিচারক আমিনুল ইসলাম মামলার সাক্ষ্য প্রমাণ বিবেচনা করে পিতা আমিনুল ইসলামকে যাবজ্জীবন কারাদ- এবং ২০ হাজার টাকা জরিমানা, অনাদায়ে আরও ছয় মাসের কারাদ- প্রদান করেন। 

বাদী পক্ষে মামলা পরিচালনা করেন পাবলিক প্রসিকিউটর (পিপি) আব্দুল মালেক এবং আসামি পক্ষে ছিলেন অ্যাডভোকেট রেজাউল হায়দার খান খোকন।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ