শুক্রবার ১৪ আগস্ট ২০২০
Online Edition

চুকনগরে কিশোরীকে  তুলে নিয়ে ধর্ষণ

 

খুলনা অফিস : খুলনার ডুমুরিয়ার চুকনগরে মেয়ের চেয়েও কম বয়সী এক কিশোরীকে ধর্ষণ করেছে এক নরপশু। গত সোমবার চুকনগর শহরের যশোর রোডস্থ প্রবীর মজুমদার ওরফে কেনা’র ধানের চাতালের পার্শ্ববর্তী একটি ধান ক্ষেতে এই পৈশাচিক ঘটনাটি ঘটে। এ ব্যাপারে থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন আইনে মামলা হয়েছে। ধর্ষক মহিতোষের ছেলে বিজ্ঞান বিভাগ থেকে এইচএসসি পাস করে মেডিকেলে ভর্তি পরীক্ষা দেয়ার প্রস্তুতি নিচ্ছে। আর তার এক কন্যা ২০১৮ সালে এসএসসি পরীক্ষা দিয়েছে। ধর্ষিতা মেয়েটি তার নিজের মেয়ের থেকেও বয়সে ছোট।

পুলিশ জানায়, পাইকগাছা থানাধীন চাঁদকাটি এলাকার এক হতদরিদ্র স্বামী পরিত্যক্তা মহিলা দুই মেয়েকে নিয়ে গত দুই বছর যাবৎ চুকনগর বাজারে বসবাস ও প্রবীর মজুমদারের রাইস মিলে শ্রমিকের কাজ করে জীবিকা নির্বাহ করে আসছেন। একই চাতালে কাজ করেন ডুমুরিয়া উপজেলার রোস্তমপুর গ্রামের মৃত নকুল ঘোষের ছেলে শ্রমিক মহিতোষ ঘোষ (৫০)। গত সোমবার রাত সাড়ে ৮টার দিকে বিদ্যুৎ চলে গেলে উক্ত মহিলার কন্যা (১৩) কেরোসিন কেনার জন্যে চাতাল থেকে বাজারে রওনা হয়। চাতাল থেকে বের হওয়ার সাথে সাথেই মহিতোষ তাকে ঝাপটে ধরে। এ সময় সে চিৎকারের চেষ্টা করলে তার মুখে গামছা পেচিয়ে পার্শ্ববর্তী একটি মৎস্য ঘেরের পাশে ধান ক্ষেতে নিয়ে তাকে ধর্ষণ করে। দীর্ঘ সময় মেয়েকে না পেয়ে মা এবং চাতালের অন্যান্য শ্রমিকরা তাকে আশ পাশে খুঁজতে থাকে। এক পর্যায়ে রাত ১২টার দিকে নরনিয়া গ্রামের মৃত আব্বাস উদ্দিনের ছেলে কামরুল ইসলাম ঘেরে এসে ধান ক্ষেতের পাশে মেয়েটিকে অচেতন অবস্থায় পড়ে থাকতে দেখে আশ পাশের লোকজনকে ডাক দেয়। তখন চাতালের লোকজন এসে তাকে উদ্ধার করে। এ ব্যাপারে ধর্ষিতার মা মেয়েকে সাথে নিয়ে গত মঙ্গলবার সকালে আটলিয়া ইউপি চেয়ারম্যান এডভোকেট প্রতাপ রায়ের কাছে গেলে তিনি থানায় মামলা করার পরামর্শ দেন। তিনি ডুমুরিয়া থানায় গেলে ওসি মো. হাবিল হোসেন ঘটনার সত্যতা যাচাইয়ের জন্যে ওসি (তদন্ত) তারক বিশ্বাস, সেকেন্ড অফিসার এস আই রতনুজ্জামান ও এএসআই মনিষাকে ঘটনাস্থলে পাঠান। তারা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে ঘটনার প্রাথমিক সত্যতা পান। বুধবার ভিকটিমের মা বাদী হয়ে থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন আইনে মামলা দায়ের করেন। 

মামলার বিবরণ ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে, পাইকগাছা উপজেলার চাঁদখালি গ্রামের হাসান ঢালীর স্ত্রী আবেদা খাতুন অভাবের তাড়নায় গত দুই বছর আগে তার কন্যাকে নিয়ে ডুমুরিয়া উপজেলার চুকনগর বাজারের প্রবীর মজুমদারের ধান কলের চাতালে অবস্থান করে মিলে শ্রমিকের কাজ করতো। মিলে কাজের সুবাদে যাতায়াতের সুযোগে এলাকার রোস্তমপুর গ্রামের লম্পট মহিতোষ ঘোষ (৩৯) বেশ কয়েক মাস পূর্ব থেকে শিশু কন্যাটিকে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে তার ইচ্ছার বিরুদ্ধে বেশ কয়েকবার যৌনমিলন করে। সর্বশেষ গত সোমবার রাত আনুমানিক ১০টার দিকে মিলের পার্শ¦বর্তী একটি ধান ক্ষেতে শিশুটিকে ফুসলিয়ে নিয়ে গিয়ে তার ইচ্ছার বিরুদ্ধে ধর্ষণ করে এবং তাকে ওই রাতেই বিয়ে করার কথা বলে কৌশলে সটকে পড়ে। দীর্ঘক্ষণ শিশুটিকে না পেয়ে তার মা ও মিলের অন্যান্য শ্রমিকরা তাকে খোঁজাখুঁজির এক পর্যায়ে ধান ক্ষেত থেকে উদ্ধার করে।

ডুমুরিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ মো. হাবিল হোসেন জানান, ভিকটিম শিশুটির মা বাদী হয়ে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে থানায় একটি মামলা করেছেন। শিশুটির ডাক্তারী পরীক্ষার জন্য খুমেক হাসপাতালে ও জবানবন্দি রেকর্ডের জন্য আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে। আসামীকে গ্রেফতারে জোর চেষ্টা চলছে।

তিনি বলেন, ভিকটিমকে উদ্ধার করে মেডিকেল ও আদালতে উপস্থিত করে ২২ ধারায় জবানবন্দী সম্পন্ন করা হয়েছে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ