সোমবার ১৩ জুলাই ২০২০
Online Edition

সৌদির ১০০ কোটিসহ হাজার কোটি ডলারের সহায়তা প্রতিশ্রুতি লেবাননের জন্য

৭ এপ্রিল, মিডল ইস্ট আই, ওয়াশিংটন পোস্ট : সিরিয়ার বাসার আল আসাদের পক্ষে লেবাননের হিজবুল্লাহ যুদ্ধরত থাকায়, দুই বছর আগে লেবাননের জন্য অর্থ সহায়তা বাতিল করে দিয়েছিল সৌদি আরব। কিন্তু এবার মন পাল্টেছে দেশটির। সৌদি আরব লেবাননকে ১০০ কোটি ডলার ঋণ সহায়তার আশ্বাস দিয়েছে। শুক্রবার প্যারিসে ওই ঋণ সহায়তার আশ্বাস পাওয়া গেছে। সেখানে সৌদি আরব ছাড়াও ফ্রান্স ও ইউরোপীয় ইউনিয়ন আর্থিক সহায়তার প্রতিশ্রুতি দিয়েছে লেবাননকে। ২০১৬ সালের ফেব্রুয়ারিতে প্রায় একই  অঙ্কের একটি ঋণ সহায়তা বাতিল করার সময় সৌদি আরব বলেছিল, সিরিয়াতে হিজবুল্লাহর ভূমিকা বিবেচনা করে তারা লেবাননকে ঋণ সহায়তা দেওয়ার সিদ্ধান্ত স্থগিত করছে। কিন্তু ২০১৮ সালে এসে আবার ঋণ সহায়তা দিতে রাজি হওয়ার ঘটনাকে লেবাননের সঙ্গে সৌদি আরবের সম্পর্ক পুনঃপ্রতিষ্ঠার চেষ্টা হিসেবে দেখছেন অনেকে। সিরিয়া যুদ্ধের কারণে লেবাননের অর্থনৈতিক অবস্থা খারাপ। ১০ লাখেরও বেশি সিরিয় শরণার্থীকে আশ্রয় দিয়েছে দেশটি। এতে চাপে আছে তাদের অর্থনীতি। নিজের দেশের  সঙ্গিন অবস্থার কথা তুলে ধরে দেশটির প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, ‘এটা শুধু লেবাননের একার স্থিতিশীলতার বিষয় নয়। এটা পুরো অঞ্চলর সমস্যা এবং সেই সূত্রে পুরো বিশ্বের।’ তিনি সতর্ক করে দিয়ে বলেছেন, লেবানন যদি স্থিতিশীলতা নিশ্চিত করতে না পারে তাহলে অস্থিতিশীলতা মধ্যপ্রাচ্য ছাড়িয়ে ইউরোপের ভেতরেও ছড়িয়ে পড়বে।

প্যারিসে অনুষ্ঠিত দাতা দেশগুলোর এক সম্মেলনে লেবানন আর্থিক সহায়তার আবেদন করেছিল। দেশটির প্রধানমন্ত্রী হারিরি সম্মেলনে জানিয়েছিলেন, শরণার্থী সমস্যা মোকাবেলায় আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের কাছ থেকে দেশটির সহায়তা পাওয়ার দরকার। সেখানে তিনি অনুদান ও সহজ শর্তের ঋণের প্রত্যাশা ব্যক্ত করেছিলেন। প্যারিসে অনুষ্ঠিত হওয়া সম্মেলনে সৌদি আরব, যুক্তরাষ্ট্র, রাশিয়া ও কাতারসহ মোট ৫০টি দেশ ও সংস্থা অংশ নিয়েছে। সম্মেলনে দাতা দেশগুলো লেবাননের জন্য ১ হাজার একশো কোটি ডলারেরও বেশি আর্থিক সহায়তা মঞ্জুর করেছে। লেবাননে নিযুক্ত ফ্রান্সের রাষ্ট্রদূত টুইটারে লিখেছেন, এর মধ্যে রয়েছে ১ হাজার ২০ কোটি ডলারের  ঋণ সহায়তা এবং ৮৬ কোটি ডলারের অনুদান। এর মধ্যে ১০ কোটি ডলার দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়েছে সৌদি আরব।  ফ্রান্স বাজারের চেয়ে কম সুদে আরও ৪ কোটি ইউরো ঋন দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়েছে। তাছার ফ্রান্স লেবাননকে আরও ১৫ কোটি ইউরো অনুদান হিসেবে দেওয়ার কথা জানিয়েছে।

আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিল বলেছে, লেবাননের মুদ্রানীতিতে পরিবর্তন আনতে হবে যাতে স্থিতিশীলতা থাকে এবং ঋণের পরিমাণ কমিয়ে আনা যায়। লেবাননকে সহায়তা করার জন্য ১ হাজার কোটি ডলারেরও বেশি অর্থ সহায়তার প্রতিশ্রুতি দেওয়ায় আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়কে ধন্যবাদ জানিয়েছগেন ফ্রান্সের প্রধানমন্ত্রী ইমানুয়েল ম্যাখোঁ।  ফরাসি কর্মকর্তারা জানিয়েছেন,  ওই সম্মেলনটি নিছক অর্থ সাহায্যের জন্য ডাকা সভা ছিল না। বরং অবকাঠামো, পানি ও জ্বালানি খাতে বিনিয়োগ করার বিষয়েও সেখানে আলাপ হয়েছে। সূত্র: মিডলইস্ট আই এবং ওয়াশিংটন পোষ্ট।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ