সোমবার ১২ এপ্রিল ২০২১
Online Edition

মির্জা আব্বাসের বিরুদ্ধে  ১৮ বাড়ির মামলা চলবে

 

স্টাফ রিপোর্টার : সরকারের ১৮টি পরিত্যক্ত বাড়ি বরাদ্দে অনিয়ম করার অভিযোগে দুর্নীতি দমন কমিশন দুককের দায়ের করা ১৫টি মামলার বৈধতা চ্যালেঞ্জ করে রাজউক অফিসারের করা আবেদন খারিজ করে দিয়েছেন হাইকোর্ট। এর ফলে বিচারিক আদালতে সাবেক গৃহায়ণ ও গণপূর্ত সাবেক মন্ত্রী মির্জা আব্বাসসহ আসামীদের বিরুদ্ধে মামলা চলতে বাধা নেই বলে জানিয়েছেন দুদকের আইনজীবী খুরশিদ আলম খান।

গতকাল বৃহস্পতিবার হাইকোর্টের বিচারপতি ওবায়দুল হাসান ও বিচারপতি কৃষ্ণা দেবনাথের সমন্বয়ে গঠিত বেঞ্চ এই রায় দেন। আদালতে রাজউকের তৎকালীন অফিসার কাজী রিয়াজুল মনিরের পক্ষে ছিলেন ব্যারিস্টার রোকন উদ্দিন মাহমুদ। অন্যদিকে দুদকের পক্ষে শুনানি করেন আইনজীবী খুরশিদ আলম খান।

খুরশিদ আলম খান বলেন, ১/১১ এর তত্ত্বাবধায়ক সরকারের সময় মামলাগুলো করা হয়েছিল। বিচারিক আদালতে মামলাগুলো সাক্ষ্যগ্রহণ পর্যায়ে রয়েছে। কিন্তু হাইকোর্টের রুলসহ স্থগিতাদেশ থাকায় বিচারিক আদালতে মামলার কার্যক্রম বন্ধ ছিল। হাইকোর্টের জারি করা ওই রুল খারিজ করে দেয়াই মামলা এসব চলতে আর কোনো বাধা থাকল না।

সরকারি ১৮টি পরিত্যক্ত বাড়ি সাজানো দরপত্র ডেকে অস্বাভাবিক কম দামে বিক্রির অভিযোগে ২০০৭ সালের মার্চে সাবেক মন্ত্রী মির্জা আব্বাসসহ ১২ জনের বিরুদ্ধে মতিঝিল থানায় মামলা করে দুদক।

মামলায় ওই বছরের ২০ সেপ্টেম্বর অভিযোগপত্র দেয়া হয়। 

উল্লেখ্য, ঢাকার বিশেষ জজ-৩ আদালতে বিচারাধীন ১৫টি মামলায় বিনা দরপত্রে ১৮টি সরকারি বাড়ি বিক্রি সংক্রান্ত ১২৭ কোটি ৬৪ লাখ ১৯ হাজার ৫৯ টাকা দুর্নীতির অভিযোগে মির্জা আব্বাসসহ ২১ জনের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করেন এ আদালতের তৎকালীন বিচারক শাহেদ নূরউদ্দিন।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ