রবিবার ১১ এপ্রিল ২০২১
Online Edition

রাজধানীতে তরুণের ছুরিকাঘাতে নিরাপত্তাকর্মী খুন

স্টাফ রিপোর্টার : রাজধানীর হাজারীবাগ থানার ঝিগাতলায় ছুরিকাঘাতে মামুন (৩০) নামের এক নিরাপত্তাকর্মী খুন হয়েছেন। বুধবার দিবাগত রাত সোয়া ২ টার দিকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান। রাত ১০ টার দিকে হাজারীবাগের ঝিগাতলার গাপতলা মসজিদের পাশে মনেশ্বর রোড়ে তাকে ছুরিকাঘাত করা হয়।

রমনা বিভাগের অতিরিক্ত উপ-কমিশনার (এডিসি) আব্দুল্লাহিল কাফি বলেন, ‘নিরাপত্তাকর্মী মামুন বাসার সামনে ওই তরুণকে আড্ডা দিতে নিষেধ করলে সে ক্ষিপ্ত হয়ে তাকে ছুরিকাঘাত করে পালিয়ে যায়।’ তিনি বলেন, ‘সে এলাকার একটি ফাস্টফুডের দোকানে কাজ করতো। ঘটনার পর থেকে সে পলাতক।’

হাজারীবাগ থানা সূত্রে জানা গেছে, বুধবার বিকালে শাওন নামে এক তরুণ বাসার সামনে আড্ডা দিতে আসে। বাসার নিরাপত্তার স্বার্থে তাকে আড্ডা দিতে নিষেধ করলে শাওন নিরাপত্তাকর্মীর ওপর হামলা চালায়। এসময় নিরাপত্তাকর্মীও তার হাতে থাকা লাঠি দিয়ে শাওনকে আঘাত করে। পরে শাওন সেখান থেকে তার বাসায় গিয়ে একটি ছুরি এনে রাতে ওই নিরাপত্তাকর্মীকে ছুরিকাঘাত করে।

পুলিশ জানায়, এ ঘটনায় একটি হত্যা মামলা প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।

ঢামেকে প্রতিবন্ধী নারীকে নির্যাতনের অভিযোগ ॥ আটক ১

ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে এক প্রতিবন্ধী নারীকে (২৩) শারীরিক নির্যাতন করার অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় স্বপন (২৮) নামের এক যুবককে আটক করে শাহবাগ থানা পুলিশের কাছে সোপর্দ করেছেন হাসপাতালের আনসার সদস্যরা। বুধবার রাত ১১টার দিকে ঢামেক হাসপাতালের একটি টয়লেটে এ ঘটনা ঘটে। এদিকে, প্রতিবন্ধী ওই নারীর স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য ঢামেক হাসপাতালের ওয়ান স্টপ ক্রাইসিস (ওসিসি) সেন্টারে ভর্তি করা হয়েছে।

ঢামেক সূত্র জানায়, অভিযুক্ত স্বপন প্রতিবন্ধী ওই নারীকে হাসতাপাতালের টয়লেটে নিয়ে শারীরিক নির্যাতন চালায়। এতে ওই নারীর চিৎকারে লোকজন জড়ো হয়ে স্বপনকে ধরেন। পরে ঢামেক হাসপাতারের আনসার সদস্যরা অভিযুক্ত স্বপনকে শাহবাগ থানা পুলিশের কাছে সোপর্দ করেন।

শাহবাগ থানার পরিদর্শক (তদন্ত) জাফর আলী বিশ্বাস বলেন, ‘ঢামেক হাসপাতালের আনসার ক্যাম্পের সদস্যরা একজনকে আটক করে থানায় সোপর্দ করেছে। ওই নারী হাসপাতালে ভর্তি আছেন। আজ বৃহস্পতিবার সকালে তার ডাক্তারি পরীক্ষা হয়।

ভুয়া প্রশ্নপত্র বিতরণের অভিযোগে আটক ১

 ফেসবুকে এইচএসসি পরীক্ষার ভুয়া প্রশ্নপত্র সংগ্রহ ও বিতরণের অভিযোগে মো. মাহফুজুর রহমান ওরফে মাহফুজ নামে একজনকে আটক করেছে র‌্যাব-২। গতকাল বৃহস্পতিবার ভোর ৫টার দিকে রাজধানীর মিরপুরের কল্যাণপুর থেকে আটক করা হয়। এদিন দুপুরে গণমাধ্যমে পাঠানো এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে র‌্যাব-২-এর সহকারী পরিচালক (এএসপি মিডিয়া) মো. শাহিনুর ইসলাম এই তথ্য জানান।

র‌্যাব জানায়, আটক মাহফুজ ঢাকা পলিটেকনিক ইনস্টিটিউটের সিভিল ডিপার্টমেন্টে ৮ম সেমিস্টারের ছাত্র। থাকে মিরপুরের কল্যাণপুর।তার গ্রামের বাড়ি নওগাঁ জেলার পতœীতলা থানার নতুন হাট এলাকায়।

র‌্যাবের সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে আরও বলা হয়, ভোর ৫টার দিকে মিরপুরের কল্যাণপুর মদিনাতুল উলুম মাদ্রাসার পাশে ৩৭ নং বাড়ির ৬ষ্ঠ তলার একটি বাসা থেকে মাহফুজকে আটক করা হয়। সে এইচএসসি পরীক্ষার প্রশ্নপত্র ফাঁস চক্রের মূল হোতা। এতে আরও উল্লেখ করা হয়, প্রাথমিক জিজ্ঞসাবাদে জানা যায়, পড়াশোনার পাশাপাশি মাহফুজ ভধপবনড়ড়শ গধংংবহমবৎ ধঢ়ঢ়ষরপধঃরড়হ, অফসরহ মৎড়ঁঢ়, জবধষ অফসরহ ইফ, ঞরমবৎ ঃবধস ইউ, খরড়হ ড়ৎ ঞরমবৎসহ অন্যান্য গ্রুপের সঙ্গে যুক্ত হয়। পরবর্তী সময়ে এসব গ্রুপ থেকে প্রশ্নপত্র সংগ্রহ করে সেগুলো হোয়াটসঅ্যাপ ও ফেসবুক ম্যাসেঞ্জারের মাধ্যমে পরীক্ষার্থীদের  

দিতো। এজন্য সে বিকাশের মাধ্যমে ওই সব পরীক্ষার্থীর কাছ থেকে অর্থ আদায় করার কাজ করতো। ইতোপূর্বে সে বিভিন্ন পরীক্ষায় একইভাবে প্রশ্নপত্র ফাঁসের মাধ্যমে বিভিন্ন পরীক্ষার্থীর কাছ থেকে বিপুল পরিমাণ টাকা হাতিয়ে নিয়েছে। মাহফুজ বেশকিছু তথ্য দিয়েছে, সেগুলো যাচাই-বাছাই করা হচ্ছে। একইসঙ্গে প্রশ্নপত্র ফাঁস চক্রের সঙ্গে জড়িত অন্য সদস্যদেরও আটকের চেষ্টা চলছে। আটক আসামীর বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা প্রক্রিয়াধীন রয়েছে বলেও বিজ্ঞপ্তিতে উল্লেখ করা হয়।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ