সোমবার ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২০
Online Edition

শিরোপা জয়ের ম্যাচে চাপ নিচ্ছে না আবাহনী

স্পোর্টস রিপোর্টার : প্রিমিয়ার ক্রিকেট লিগের শেষ ম্যাচেই আজ নির্ধারণ হবে লিগ শিরোপা। লিজেন্ড অব রূপগঞ্জের বিপক্ষে এই ম্যাচে জিতলেই চ্যাম্পিয়ন হবে আবাহনী। হেরে গেলেও আশা বেঁচে থাকবে, তবে তখন নেট রানরেটের সমীকরণের দিকে তাকিয়ে থাকতে হবে আবাহনীকে। আজ লিজেন্ডস অব রূপগঞ্জের বিপক্ষে শিরোপা নির্ধারণী ম্যাচে নামবে আবাহনী। এই দুই দলের সঙ্গে শিরোপা দৌড়ে থাকা শেখ জামাল খেলবে খেলাঘর সমাজ কল্যাণের বিপক্ষে।  ফলে আবাহনী, রূপগঞ্জ ও শেখ জামাল নামছে শিরোপার ত্রিমুখী লড়াইয়ে। তবে সব সমীকরণ শেষ হয়ে যাবে আবাহনীর জয়ে। বিকেএসপিতে রূপগঞ্জের বিপক্ষে আবাহনী জিতলেই শিরোপা জিতবে ঐতিহ্যবাহী এই ক্লাবটি। এমন একটি ম্যাচের আগে আবাহনীর চাপ অনুভব করাটাই স্বাভাবিক। যদিও আবাহনী চাপ নিচ্ছে না, বরং ভালো ক্রিকেট খেলতেই মনোযোগী ঐতিহ্যবাহী এই ক্লাবটি। গতকাল সংবাদমাধ্যমের সঙ্গে কথা বলেছেন মেহেদী হাসান মিরাজ। সেখানেই এই অলরাউন্ডার বলেন, ‘ক্রিকেট খেলাটাই চাপের। প্রতিটি ম্যাচেই চাপ থাকে। ম্যাচটা আমাদের জন্য বড় একটি সুযোগ। জিততে পারলেই শিরোপার জিতব।  চেষ্টা থাকবে ভালো ক্রিকেট খেলার, যেন সহজেই জিততে পারি।’ নিজেদের চ্যাম্পিয়ন হওয়ার সম্ভাবনা মিরাজ বলেন, ‘বাঁচা-মরার ম্যাচ। আশাবাদী অবশ্যই। সবাই শতভাগ দিতে পারলে ভালো করা সম্ভব। তাছাড়া আমাদের যে সব খেলোয়াড় আছে, তারা তাদের সেরাটা দিলে শিরোপা জিততে সহজ হবে।’ রূপগঞ্জের বিপক্ষে নিজেদের কতটা এগিয়ে রাখবেন, এমন প্রশ্নে মিরাজ বলেন, ‘আসলে যারা ভালো খেলবে, দিন শেষে তারাই জিতবে। আমার কাছে মনে হয়  খেলাটা ভালোই হবে। এবং আমরাও অনেক সিরিয়াস আছি কালকের ম্যাচ নিয়ে।’ প্রতি  মৌসুমে আবাহনী কোনও না কোনও কারণে সমালোচিত হয়ে আসছে। চলতি মৌসুমে বিকেএসপিতে অনুষ্ঠিত সুপার লিগের একটি ম্যাচে প্রাইম দোলেশ্বরের বিপক্ষে জয়ের ধরণ নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে। এই সমালোচনার মাঝে বড় দলের হয়ে খেলা কতটা চাপের? মিরাজ বলেন, ‘আমরা যখন আন্তর্জাতিক লেভেলে খেলি কিংবা ঘরোয়া ক্রিকেটে খেলি, চাপ একই থাকে।  সেই চাপ নেওয়াটাই হচ্ছে গুরুত্বপূর্ণ। যারা চাপ নিতে পারবে, তারাই জিতবে।’ এদিকে শেষ ম্যাচে কঠিন সমীকরণ নিয়ে মাঠে নামছে লিজেন্ডস অব রূপগঞ্জ। শিরোপা জিততে হলে বড় ব্যবধানে হারাতে হবে আবাহনীকে। শুধু জিতলেই হবে না। লিগের অপর ম্যাচে শেখ জামাল ধানমন্ডি ক্লাবের হারও কামনা করতে হবে দলটিকে। কাজটা ভীষণ কঠিন জানেন রূপগঞ্জের খেলোয়াড়রা। তবে চ্যাম্পিয়ন হওয়ার জন্য আট-দশটা ম্যাচ যেমন খেলেন তেমনভাবে খেলেই জয় চান দলের প্রধান কোচ মঞ্জুরুল ইসলাম মঞ্জু। জয় তোলার পরই ভাবতে চান চ্যাম্পিয়ন নিয়ে। ম্যাচের প্রস্তুতি জানতে চাইলে কোচ মঞ্জুরুল বলেন, ‘শুরু থেকে আমরা যদি চিন্তা করি, আমরা চ্যাম্পিয়ন হবো, এটা আমার মনে হয় একটু বোকামি হবে। এই ম্যাচ যদি আমরা চিন্তা করি, একটা ম্যাচ। সকাল থেকে শুরু করে প্রথম সেশন, দ্বিতীয় সেশন।  কে চ্যাম্পিয়ন হবে তা চিন্তা না করে, আমরা ম্যাচটা জেতার জন্য পরিকল্পনা করি তখন দেখা যাবে কে চ্যাম্পিয়ন হবে।’ তবে চ্যাম্পিয়ন হওয়ার পথটা যে কঠিন তা জানেন মঞ্জু, ‘খুব কঠিন কারণ এ রানের যে অবস্থা, পয়েন্ট টেবিলের  যে অবস্থা। তাই চ্যাম্পিয়নের জন্য চিন্তা না করে ম্যাচটার চিন্তা করি। তারপর তো পয়েন্ট টেবিল, রান রেট ঠিক করবে কে চ্যাম্পিয়ন।’ সবার আগে ভালো ক্রিকেট খেলতে চান মঞ্জু। আর আবাহনীর বিপক্ষে যে ম্যাচটা বেশ চাপের তাও স্বীকার করে নিলেন এ কোচ, ‘অবশ্যই আমরা ভালো ক্রিকেট খেলতে চেষ্টা করবো। আবাহনীর বিরুদ্ধে খেলা সবসময় রোমাঞ্চকর। এখন পর্যন্ত পয়েন্ট টেবিলে তারা শীর্ষে। আমরা দ্বিতীয় স্থানে। আমরা যেটা চিন্তা করবো, লিগের শেষ ম্যাচটা যেন ভালো ম্যাচ হয়। রেজাল্ট শেষে আসে। শুরু থেকে আমরা যদি চাপ দিতে পারি, ভালো ক্রিকেট খেলতে পারি এটা কাজে লাগবে। যে দলটা তাদের পরিকল্পনা বাস্তবায়ন করতে পারবে আমি আশা করি ওই দলই জিতবে। অবশ্যই কালকে চাপের ম্যাচ। আর এখন পর্যন্ত আমাদের রুপগঞ্জ যে জায়গায় আছে তা খেলোয়াড়রাই তৈরি করেছে। তারা এটার যোগ্য।' এই ম্যাচে জিততে পরিকল্পনার সঠিক বাস্তবায়ন করতে হবে বলে মনে করেন মঞ্জু, 'নিজেদের পরিকল্পনাকে বাস্তবায়ন করতে হবে। বিকেএসপির তিন নম্বরে আমরা বেশি ম্যাচ খেলেছি। এটা স্পোর্টিং উইকেট। আপনি আগে ব্যাট করেন বা পরে ব্যাট করেন। বড় ম্যাচে আপনি অনুমান করতে পারবেন না আপনি তিনশো রান করবেন। তিনশো করেও ম্যাচ জিততে পারবেন না, আবার তিনশো রান করেও ম্যাচ জিততে পারেন। বড় হচ্ছে পরিকল্পনাকে বাস্তবায়ন করা। সেটা আমার মনে হয় ম্যাচ পক্ষে নিয়ে আসতে পারে।'

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ