মঙ্গলবার ১৪ জুলাই ২০২০
Online Edition

চট্টগ্রামে সংঘবদ্ধ ছিনতাইকারী চক্রের ১ সদস্য গ্রেফতার

চট্টগ্রাম ব্যুরো : বন্দর নগরী চট্টগ্রামের পতেঙ্গা থানাধীন ১৩নং লালদিঘীয়ার চর, লামার বাড়ি হতে সংঘবদ্ধ ছিনতাইকারী চক্রের ১ সদস্যকে গ্রেফতার করেছে সিএমপি’র সদরঘাট থানা পুলিশ। গ্রেফতারকৃত ছিনতাইকারী হচ্ছে মোঃ শফিক (৪০), পিতা- মৃত আলী আহম্মদ, মাতা-সখিনা খাতুন, সাং- প্রেমাশিয়া, পানি উন্নয়ন বোর্ড, ১নং সুইস, থানা-বাঁশখালী, জেলা- চট্টগ্রাম, বর্তমানে ১৩নং লালদিঘীয়ার চর, লামার বাড়ি, থানা- পতেঙ্গা, জেলা- চট্টগ্রাম।  পলাতক অনান্য ছিনতাইকারীরা হচেছ  মোঃ ইদ্রিস,  মোঃ ইউনুছ,  মোঃ মফিজ,  বদি আলম (রিক্সা ওয়ালা),  হামিদ (রিক্সা ওয়ালা), উভয়েই ঠিকানা-অজ্ঞাত।
 গোয়েন্দা পুলিশ সূত্রের খবর, ভিকটিম মেহাতাব উদ্দিনচট্টগ্রাম মহানগরীর  সদরঘাট থানাধীন জব্বার আলী সওদাগরের বাসায় ফেরার পথে মামলার ঘটনাস্থলে ২৫ মার্চ  রাত অনুমান ১০টার সময় পৌঁছিলে  মোঃ শফিক (৪০) সহ তাহার সহযোগী পলাতক আসামী মোঃ ইদ্রিস, মোঃ ইউনুছ, মোঃ মফিজ, বদি আলম (রিক্সা ওয়ালা), হামিদ (রিক্সা ওয়ালা) গণ উক্ত ভিকটিমের রিক্সা পথরোধ করে  ধারালো ছোরা দিয়ে ভয়ভীতি প্রদর্শন পূর্বক বাদীর নিকট থাকা নগদ চল্লিশ হাজার টাকা, OPPO-A37 একটি মোবাইল সেট ও অপর একটি SYMPHONY মোবাইল সেটসহ একটি মানি ব্যাগ, যাহার ভিতর সিটি ব্যাংকের ডেবিট কার্ড, লংকা বাংলার ক্রেডিট কার্ড, ট্যাক্স কার্ড ও অফিশিয়াল আইডিকার্ডসহ জোরপূর্বক ছিনতাই করে। পরবর্তীতে ভিকটিম মেহাতাব ছিনতাই মামলা দায়ের করে।
পরবর্তীতে  সদরঘাট থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) মুহাম্মদ রুহুল আমীন ও  ফোর্সসহ রাতভর   অভিযান পরিচালনা করে ১লা এপ্রিল   মামলার মূল হোতা আসামী মোঃ শফিক (৪০), পিতা- মৃত আলী আহম্মদ, মাতা-সখিনা খাতুন, সাং- প্রেমাশিয়া, পানি উন্নয়ন বোর্ড, ১নং সুইস, থানা-বাঁশখালী, জেলা-চট্টগ্রাম, বর্তমানে ১৩নং লালদিঘীয়ার চর, লামার বাড়ি, থানা- পতেঙ্গা, জেলা- চট্টগ্রাম কে চট্টগ্রাম মহানগরীর পতেঙ্গা থানাধীন ১৩নং লালদিঘীয়ার চর, লামার বাড়ি হইতে গ্রেফতার করা হয়।
গ্রেফতারকৃত আসামীকে জিজ্ঞাসাবাদে জানায় যে, তারা ৬ জনের একটি সংঘবদ্ধ ছিনতাইকারীর দল। তাদের পূর্ব পরিচিত ২টি রিক্সাসহ ২ জন ড্রাইভার আছে। প্রতি রিক্সায় ২ জন করে উঠে, প্রতিদিন সন্ধ্যা ৭টা হইতে ভোর ৫টা পর্যন্ত গোটা শহরের ঘুরে ঘুরে রিক্সার যাত্রীদের সব কেড়ে নিয়ে ফেলে। তারা বিশেষ করে নেভাল রোড, সার্সন রোড, ফিরিঙ্গি বাজার, আইস ফ্যাক্টরি রোড, মেরিন ড্রাইভ রোড, তাহাদের পছন্দ। তারা প্রথমে রিক্সার গতিরোধ করে এরপর রিক্সার যাত্রী ১ জন থাকিলে ছিনতাইকারীদের ১ জন যাত্রীর পাশে বসে কোমরে থাকা খেলানার পিস্তল দেখায়, অপর ৩ জন যাত্রীর রিক্সার পার্শ্বে দাঁড়ায়। তখন যাত্রীর নিকট হতে টাকা ও মোবাইল ফোন কেড়ে নেয়। তারা অসংখ্য ছিনতাই করেছে মর্মে স্বীকার করে। ইতিপূর্বে তাদের সকলেই একাধিকবার সিএমপি’র বিভিন্ন থানায় গ্রেফতার হয়েছিল। ধৃত আসামী আদালতে ফৌঃ কাঃ বিঃ ১৬৪ ধারা মোতাবেক স্বেচ্ছায় স্বীকারোক্তি মূলক জবানবন্দী প্রদান করে। অন্যান্য পলাতক আসামীদের গ্রেফতারের লক্ষ্যে অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ