শনিবার ১১ জুলাই ২০২০
Online Edition

নেতানিয়াহু একজন সন্ত্রাসী-এরদোগান

             নেতানিয়াহু                                       এরদোগান

২ এপ্রিল, আনাদোলু এজেন্সি, এএফপি, দ্য নিউ আরব : গাজা উপত্যকায় ইসরাইলী হামলায় ১৭ ফিলিস্তিনী নিহত হওয়ার পর বেনিয়ামিন নেতানিয়াহুকে একজন সন্ত্রাসী হিসেবে অভিযুক্ত করেছেন তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রজব তৈয়ব এরদোগান।

গত রোববার তুরস্কের উত্তরাঞ্চলের আদানায় টেলিভিশনে দেয়া এক ভাষণে তিনি নেতানিয়াহুকে এই অভিযুক্ত করেন।

এরদোগান বলেন, ‘হে নেতানিয়াহু, আপনি একজন দখলদার, একজন দখলদার হিসেবেই আপনি ওই ভূমিতে অবস্থান করছেন। একইভাবে আপনি একজন সন্ত্রাসী।’

এরদোগান বলেন, ‘ফিলিস্তিনীদের নিপীড়নে আপনি যাই করুন না কেন, তা ইতিহাসের অংশ হয়ে থাকবে। আমরা কখনই তা ভুলব না।’

দখলদারদের বিরুদ্ধে কোনো কর্মকা-ে আমাদের কোনো অনুশোচনা থাকবে না বলে জানান তিনি।

গত শুক্রবার ফিলিস্তিনীরা ৪২তম ভূমি দিবস পালন করেন। ১৯৭৬ সাল থেকে প্রতিবছর ৩০ মার্চ ইসরায়েলের দখলদারিত্বের প্রতিবাদে ‘ভূমি দিবস’ পালন করছে ফিলিস্তিনীরা। ওইদিন নিজেদের মাতৃভূমির দখল ঠেকাতে বিক্ষোভে নামলে ইসরাইলী সেনাদের হাতে ১৭ ফিলিস্তিনী শাহাদাত বরণ করেন।

ওই ঘটনার স্মরণে ফিলিস্তিনীরা দিনটিকে ভূমি দিবস হিসেবে পালন করে আসছেন। গত শুক্রবার দিবসটি পালনের উদ্দেশ্যে ফিলিস্তিনীদের জমায়েতে হামলে পড়ে ইসরাইলী বাহিনী। তারা গুলী চালিয়ে ১৭ ফিলিস্তিনীকে হত্যা করে। এছাড়া গুলীবিদ্ধ হন সাড়ে সাত শতাধিক ফিলিস্তিনী। আহত হয় প্রায় দেড় সহ¯্রাধিক মানুষ।

এদিকে ভূমি দিবস পালনকালে ইসরাইলী বাহিনীর হত্যাযজ্ঞের শিকার ব্যক্তিদের স্মরণে গত শনিবার জাতীয় শোক পালন করেছে ফিলিস্তিনীরা। এদিন আমৃত্যু ইসরাইলী দখলদারিত্বের বিরুদ্ধে প্রতিরোধ জারি রাখার অঙ্গীকার করে স্বাধীনতাকামী এই জাতি।

‘জেরুসালেমকে ইসরাইলের রাজধানী করার চেষ্টা ব্যর্থ’

ইসরাইলকে ফের সন্ত্রাসী রাষ্ট্র হিসেবে আখ্যায়িত করে তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রজব তৈয়ব এরদোগান বলেছেন, জেরুসালেমকে ইসরাইলের রাজধানী করার চেষ্টা ব্যর্থ হয়েছে।

তিনি বলেন, বিশ্বকে এটা জানানোর দরকার নেই যে ইসরাইলী সেনারা কতটা বর্বর। কারণ গাজার ঘটনায় আমরা দেখতে পাচ্ছি এই সন্ত্রাসী রাষ্ট্রটি কী করছে। তুরস্কের ক্ষমতাসীন দল একে পার্টির এক কংগ্রেসে বক্তব্য দেয়ার সময় রবিবার তিনি এসব কথা বলেন।

এরদোগান বলেন, জেরুজালেমকে ইসরাইলের রাজধানীর করার জন্য দেশটি যে চেষ্টা চালিয়েছিল তাতে তারা ব্যর্থ হয়েছে। তুরস্ক এ বিষয়ে সক্রিয় ভুমিকা রেখেছে। ফলে জাতিসংঘে ভোটাভুটিতে ইসরাইল মাত্র ৯টি ভোট পায়। আর তাদের বিরুদ্ধে ভোট পড়ে ১২৮টি।

এদিকে ইরানের সংসদের পররাষ্ট্রনীতি ও জাতীয় নিরাপত্তা পরিষদের প্রধান বলেছেন, ভূমি দিবসে ফিলিস্তিনীদের মিছিলে ইসরাইলী হামলার জন্য প্রধানত দায়ী যুক্তরাষ্ট্র।

 বোরুজেন্দি আরও বলেন, ইসলামি সহযোগিতা সংস্থা ওআইসির উচিত ইসরাইলী ওই বর্বরোচিত হামলার নিন্দা জানানো। যেসব মুসলিম দেশে ইসরাইলী দূতাবাস রয়েছে সেসব দেশের উচিত ইসরাইলের সঙ্গে সম্পর্ক ছিন্ন করা এবং দূতাবাস বন্ধ করে দেয়া। খবর রেডিও তেহরানের।

শনিবারের ওই বর্বরোচিত হামলার নিন্দা জানিয়ে আলাউদ্দিন বোরুজেন্দি বলেন ফিলিস্তিনিদের ভূমি দিবসের ৪২তম বার্ষিকীর ওই মিছিল ছিল সম্পূর্ণ শান্তিপূর্ণ। ওই শান্তিপূর্ণ মিছিলে ইসরাইলী সেনাদের হামলায় অন্তত ১৭ জন শহীদ এবং দেড় হাজারের বেশি ফিলিস্তিনী আহত হন।

 বোরুজেন্দি বলেন মার্কিন সহযোগিতা ছাড়া ইসরাইল ফিলিস্তিনীদের ওপর হামলা চালানোর সাহস রাখে না। কুদস শহরে মার্কিন দূতাবাস স্থানান্তর করার মার্কিন সিদ্ধান্তের কারণে ইসরাইল এই ঔদ্ধত্য দেখাতে সাহস করেছে বলে তিনি মন্তব্য করেন।

ফিলিস্তিনিদের ওপর ইসরাইলী হামলায় আবারও প্রমাণ হলো ইসলামের প্রধান শত্রু হলো ইসরাইল। তাদের সঙ্গে যারা যোগসাজশ করবে তারাও ইসরাইলিদের অপরাধের অংশীদার হবে।

গাজায় নিরাপরাধ মানুষকে হত্যার নিন্দায় ফিলিস্তিনী খ্রিস্টানরা

গাজায় শান্তিপূর্ণ বিক্ষোভে নিরাপরাধ মানুষকে হত্যার নিন্দা জানিয়েছে ফিলিস্তিনী খ্রিস্টানরা। দখলদার ইসরাইলী বাহিনীর হামলায় নিহতদের সঙ্গে একাত্মতা প্রকাশ করতে পাম সানডে’র উৎসব সংক্ষিপ্ত করেছেন তারা।

রবিবার ধর্মীয় আলোচনার পাশাপাশি হতাহতদের জন্য প্রার্থনার মধ্য দিয়েই অনুষ্ঠান শেষ করা হয়েছে।

রামাল্লার গ্রিক অর্থডক্স ধর্মযাজক ইলিয়াছ আওয়াদ বলেন, শুক্রবার বিক্ষোভের সময় গাজায় নিহতদের শোকের কারণে তিনি রবিবারের উৎসব বাতিল করেছেন।

তিনি বলেন, ‘আমরা শুক্রবারের হত্যাকা- ও গাজায় শান্তিপূর্ণ আন্দোলনে নিরাপরাধ মানুষকে হত্যার নিন্দা জানাই।’

আওয়াদ ২০১৪ সাল থেকে অবরুদ্ধ উপত্যকাটিতে রক্তক্ষয়ী ঘটনার বিষয়টিও সামনে আনেন। তিনি বলেন, ‘বিশ্বকে অবশ্যই আমাদের পক্ষে দাঁড়াতে হবে এবং আমাদের জাতীয় অধিকার অর্জনের জন্য দখলদারিত্বের বিরুদ্ধে চাপ সৃষ্টি করতে হবে।’

প্রাচ্যের খ্রিস্টানরা ৮ এপ্রিলকে ইস্টার সানডে হিসেবে উদযাপন করে থাকে। তবে পশ্চিমা খ্রিস্টানরা গত রবিবারই উৎসবটি পালন করেছেন। ফিলিস্তিনের খ্রিস্টানরা এদিন পাম সানডে উপলক্ষে উপবাস করে থাকেন।

গাজায় অবস্থানকারী খ্রিস্টানরাও পাম সানডের উৎসব সংক্ষিপ্ত করেছেন। গাজায় গ্রিক অর্থডক্স চার্চের কর্মকর্তা স্থানীয় সংবাদমাধ্যমকে বলেছেন, ‘এ বছরের উৎসব শুধু ধর্মীয় আলোচনা এবং সব আহত ব্যক্তিদের দ্রুত আরোগ্য কামনা ও শহীদদের জন্য ক্ষমা প্রার্থনার মধ্যে সীমাবদ্ধ রাখা হয়েছে।’

শুক্রবার গাজা উপত্যকায় ইসরাইলি বেস্টনির কাছে ফিলিস্তিনি বিক্ষোভকারীদের ওপর ইসরাইলি বাহিনী গুলি চালায়। ওই হামলায় ১৬ ফিলিস্তিনি নিহত হন। আর ১৪শ’র বেশি মানুষ আহত হন। তাদের মধ্যে ৭৫৮ জন মারণাস্ত্রের আঘাতে আহত হন। অন্যরা রাবার বুলেট ও কাঁদানে গ্যাসের আঘাতে অসুস্থ হন।

ছয় সপ্তাহব্যাপী প্রতিবাদ কর্মসূচির অংশ হিসেবে শুক্রবারের গণআন্দোলন শুরু হয়। মূলত বিতাড়িত ফিলিস্তিনি শরণার্থীদের তাদের নিজ এলাকায় ফিরে যাওয়ার অধিকারের দাবি ও এক দশকের বেশি সময় ধরে গাজা উপত্যকা অবরুদ্ধ রাখার নিন্দা জানিয়ে এই বিক্ষোভের ডাক দেওয়া হয়।

ইসরাইলি বাহিনী তাদের সেনাদের ওপর হামলা ঠেকাতে এই পদক্ষেপ নিয়েছে বলে দাবি করেছে। তারা বলেছে, যারা সেনাদের ওপর পাথর, আগুনের গোলা ও জলন্ত টায়ার নিক্ষেপ করেছে তাদের লক্ষ্য করেই গুলি করা হয়েছে।

মানবাধিকার সংস্থাগুলো অভিযোগ করেছে, সেনাবাহিনী মাত্রাতিরিক্ত দমন চালিয়েছে। আর জাতিসংঘ মহাসচিব ও ইউরোপীয় ইউনিয়নের বিদেশ নীতি প্রধান এই ঘটনায় তদন্তের দাবি জানিয়েছেন। তবে সেখানে কোনও ধরনের স্বাধীন তদন্ত করতে দেওয়ার বিষয়টি প্রত্যাখ্যান করেছে ইসরায়েল।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ