সোমবার ১০ আগস্ট ২০২০
Online Edition

যুব পেসারদের নিয়ে চম্পাকার বিশেষ ক্যাম্প 

স্পোর্টস রিপোর্টার : যুব বিশ্বকাপের পরবর্তী আসর বসবে ২০২০ সালে। তবে এখনই সেই বিশ্বকাপে চোখ রাখছেন বিসিবির এইচপি কোচ হিসেবে নিযুক্ত চম্পাকা রমানায়েকে। ২০২০ বিশ্বকাপের জন্য পেসার খুঁজে বের করতে অনূর্ধ্ব-১৮ বয়সী পেসারদের নিয়ে ১০ দিনের ক্যাম্প শুরু করেছেন এই লঙ্কান। এইচপির কোচ হলেও বিভিন্ন পর্যায়ের দল নিয়েই কাজ করেন চম্পাকা।  গতকাল তিনি বলেন, ‘এই ক্যাম্পটা আসলে তরুণদের নিয়ে। তারা ১৮ বছরের কম বয়সের। তারা পরবর্তী অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপের জন্য যোগ্য। তাই আমি তাদের নিয়ে ১০ দিনের জন্য ক্যাম্পের চিন্তা করলাম। আমি এর আগে দুটি ক্যাম্প করিয়েছি এবং আমি পরিকল্পনা করি জুনিয়র পর্যায় নিয়ে। তাই আমি অনূর্ধ্ব-১৯ দলের ভবিষ্যত প্রতিভা  খোঁজার কাজে হাত নিয়েছি। এটা আমার জন্য সনাক্তকরণ এবং নতুন তারকাদের জন্য উন্নতির মাধ্যম।’ চম্পাকা যুবা বোলারদের মধ্যে দেখেন অপার সম্ভাবনা। তিনি বলেন, ‘তারা খুবই কাঁচা এবং কম বয়সের। তাদের সম্ভাবনা অনেক। এখন এই ছেলেদের যারা কঠোর পরিশ্রম করবে এবং সেটা চালিয়ে যাবে তারাই ভালো ভালো করবে। এইচপি এবং ‘এ’ দল  থেকে অনেক নতুন বোলার উঠে এসেছে। তাই আশা করি পরবর্তী কয়েক বছরের মধ্যে আপনি নতুন কাউকে দেখতে পাবেন। তারা ঘরোয়া ক্রিকেট ভালো করছে। তাই আমি তাদের সম্ভাবনা দেখছি। তারা অবশ্যই উন্নতি করবে।’ তবে ১০ দিনের বিশেষ ক্যাম্পে চম্পাকা ফিটনেসের উপর জোর দিচ্ছেন অনেক। বাংলাদেশের উইকেট যে পেসারদের জন্য সহায়ক নয় মোটেও, এই লঙ্কান সেটা জানেন ভালোভাবেই। তবে ক্যাম্পের নতুনরা সময়ের সাথে সাথে নিজেদের তৈরি করবেন বলেই বিশ্বাস চম্পাকার, ‘ফাস্ট বোলারদের জন্য এটা অনেক বড় চ্যালেঞ্জ। কিন্তু এখানে যে পিচ তাতে আমাদের কিছু করার নেই। আমরা এতে অভ্যস্ত হয়ে গেছি। ইন-সুইং দিয়ে কিছু করতে হবে এবং রিভর্স-সুইং নিয়েও। তারা এটা শিখবে। বাংলাদেশের বেশির ভাগ পিচ এরকমই। তারা যে কোনো উইকেটে বল করতে শিখবে, যখন তারা উন্নতি করবে।’

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ