শনিবার ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২০
Online Edition

নাটোর-বগুড়া সড়কে দীর্ঘ জানযটে নাকাল যাত্রীরা

সিংড়া (নাটোর) সংবাদদাতা : নাটোরের সিংড়া উপজেলার শেরকোল থেকে বন্দর পর্যন্ত ভেপু ও ইটভাটার মাটিতে রাস্তার বেহাল অবস্থায় দুদিন থেকে ভোগান্তিতে পড়েছে সকল প্রকার যানবাহন ও যাত্রীরা।
হাজার হাজার যাত্রী শুক্রবার দিনব্যাপী চরম দুর্ভোগের শিকার হয়। নারী, পুরুষ, শিশুদের পায়ে হেটে দীর্ঘ পথ পাড়ি দিতে হয়। রাস্তার যানজট নিরসনে স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের কোন সহযোগিতা চোখে পড়েনি। তবে পুলিশ প্রশাসনকে তৎপর দেখা গেলে ও তা কার্যকর ছিলো না। শনিবার সকালে ও একই অবস্থা সৃষ্টি হয়। পরে জনপ্রতিনিধি, উপজেলা প্রশাসন, পুলিশ প্রশাসন ও সাংবাদিকদের তৎপরতায় যান চলাচল স্বাভাবিক হয়।
ভুক্তভোগীরা জানায়, বৃহস্পতিবার রাতে থেকে বৃষ্টি নামলে সড়কে রাস্তা কর্দমাক্ত হয়ে পড়ে। শুক্রবার ১০ কিঃমিঃ এলাকা জুড়ে তীব্র যানজটের সৃষ্টি হয়।
দুর্ভোগে পড়ে দূর দূরান্তের হাজার হাজার যাত্রী। নাটোর-বগুড়া সড়কের ভয়াবহ চিত্র লক্ষ্য করা যায়।
চালক ও স্থানীয়রা জানায়, নাটোর-বগুড়া সড়কে কিছু ইট ভাটা মালিকদের গাফিলতির কারনে প্রতি বছর বৃষ্টির সময় মরণ ফাঁদের সৃষ্টি হয়। এবারো ট্রলি দিয়ে ইটভাটার মাটি সংগ্রহের আনা নেয়ার পথে শেরকোল থেকে বন্দর এলাকা জুড়ে দুর্বিষহ অবস্থা তৈরি হয়। রাস্তায় মাটি পড়ে কর্দমাক্ত হয়ে পড়ে, বেশকিছু গাড়ি দুর্ঘটনার শিকার হয়। সড়কেই কয়েকটি গাড়ি উল্টে যাওয়ায় সব ধরনের গাড়ি চলাচল বন্ধ হয়ে পড়ে।
শেরকোল ইউপি চেয়ারম্যান লুৎফুল হাবিব রুবেল জানান, শনিবার সকালে সকল ইটভাটার শ্রমিকদের সহায়তায় রাস্তা পরিস্কার করা হয়েছে। যান চলাচল স্বাভাবিক রয়েছে।
সিংড়া থানার ওসি মনিরুল ইসলাম বলেন, শুক্রবার থেকে পুলিশ প্রশাসন কাজ করে যাচ্ছে। শনিবার সকালে উপজেলা নির্বাহী অফিসার সন্দ্বীপ কুমার সরকার সহ এলাকা পরিদর্শন করে রাস্তায় যানজট নিরসনে সবাইকে নিয়ে বসে স্থায়ী সমাধানের ব্যবস্থা করা হচ্ছে।
উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও ম্যাজিস্ট্রেট সন্দ্বীপ কুমার সরকার জানান, শনিবার দুপুরে এ.কে.এস ও এ.কে.সি নামের ২টি ইটভাটার মালিককে ৪০ হাজার টাকা করে জরিমানা করা হয়েছে ও আবুল খায়ের নামের এক ব্যক্তিকে মাটিভরাট করার দায়ে ১০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে। বর্তমানে যান চলাচল স্বাভাবিক রয়েছে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ