বৃহস্পতিবার ০৪ জুন ২০২০
Online Edition

নন্দীগ্রামে গৃহবধূ নির্যাতনের শিকার

নন্দীগ্রাম (বগুড়া) সংবাদদাতা: বগুড়ার নন্দীগ্রামে গৃহবধূ নির্যাতনের শিকার হয়ে স্বামীর সংসার ছাড়া হয়েছে। জানা গেছে, নন্দীগ্রাম উপজেলার থালতা পাচুঘুড়ি গ্রামের মহসিন আলীর ছেলে আবু রায়হান কাহালু উপজেলার দুর্গাপুর গ্রামের মনসুর রহমানের মেয়ে ফারজানা আকতার ফাল্গুনিকে ৪ বছর পূর্বে বিবাহ করে। বিবাহের পর থেকেই সংসারে মাঝেমধ্যেই অশান্তি লেগেই থাকতো। এমতাবস্থায় গত বছরের ১০ই নভেম্বর মহসিন আলী ও তার ভাই ইদ্রিস আলী গৃহবধু ফারজানা আকতার ফাল্গুনিকে মারপিট করে বাড়ি থেকে বের করে দেয়। এ নিয়ে গত ২৪শে মার্চ বেলা ১১টায় কাহালু উপজেলার দেওগ্রাম বাজারে সমঝোতা বৈঠক বসে। সেখানে ইউপি চেয়ারম্যান বদরুজ্জামান ও সমাজসেবক মো. নাসিমসহ স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিরা উপস্থিত ছিল। এরপরেও ছেলে পক্ষরা সমঝোতা না করে চলে যায়। এ নিয়ে কিছুটা হট্টগোল সৃষ্টি হয়। গৃহবধূ ফারজানা আকতার ফাল্গুনী বলেন, বিবাহের সময় ১ লক্ষ ২০ হাজার টাকা মূল্যের বাজাজ প্লাটিনা মোটরসাইকেল ক্রয়, ফার্নিচার বাবদ নগদ ১ লক্ষ টাকা ও ১ ভরি সোনার অলংকার দেয়া হয়। তারপর বাড়ীর কাজের জন্য ২০ হাজার টাকা মূল্যের বাঁশ দেয়া হয়েছে। এরপরেও সেই সংসারে আমার অশান্তি লেগেই থাকতো। আমাকে মারপিট করে বাড়ি থেকে বের করে দেয়া হয়। আমি এর প্রতিকার চাই।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ