সোমবার ১২ এপ্রিল ২০২১
Online Edition

স্বাধীনতার লক্ষ্য বাস্তবায়নে তরুণ প্রজন্মকে এগিয়ে আসতে হবে -শিবির সভাপতি

মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস উপলক্ষে ছাত্রশিবিরের উদ্যোগে আয়োজিত আন্তঃশাখা ফুটবল টুর্নামেন্টের ফাইনাল খেলার পুরস্কার বিতরণ করেন ছাত্রশিবিরের কেন্দ্রীয় সভাপতি ইয়াছিন আরাফাত -সংগ্রাম

ইসলামী ছাত্রশিবিরের কেন্দ্রীয় সভাপতি ইয়াছিন আরাফাত বলেছেন, মর্যাদা ও স্বাধীন ভাবে বেঁচে থাকার স্বপ্ন নিয়ে জাতীর বীর সন্তানরা বুকের তাজা রক্ত ঢেলে দিয়ে এদেশ স্বাধীন করেছেন। সেই মহান আত্মত্যাগকারীদের স্বপ্ন পূরণের দায়িত্ব তরুণ প্রজন্মের। তাই স্বাধীনতার লক্ষ্য বাস্তবায়নে তরুণ প্রজন্মকে এগিয়ে আসতে হবে।
মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস উপলক্ষে ছাত্রশিবিরের উদ্যোগে আয়োজিত আন্তঃশাখা ফুটবল টুর্নামেন্টের ফাইনাল খেলার পুরস্কার বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। কেন্দ্রীয় স্পোর্টস সেক্রেটারি সরোয়ার কামালের পরিচালনায় অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন ঢাকা মহানগরী পূর্ব শাখার সভাপতি এস আর মিঠু, ঢাকা মহানগরী পশ্চিমের সভাপতি আব্দুল আলিম, ঢাকা কলেজ কলেজের সভাপতি মাহদি হাসান সানীসহ বিভিন্ন পর্যায়ের নেতৃবৃন্দ।
শিবির সভাপতি বলেন, মানুষের মৌলিক অধিকার প্রতিষ্ঠা এবং কল্যাণমূলক একটি রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠার জন্য এ দেশের সাহসী সন্তানেরা জীবন বাজি রেখে যে লড়াই সংগ্রাম করেছিল, তারই ধারাবাহিকতায় বিশ্ব মানচিত্রে বাংলাদেশের অভ্যুদয় ঘটে। বীর মুক্তিযোদ্ধাদের স্বপ্ন ছিল স্বাধীনতার মাধ্যমে গণতান্ত্রিক ও মৌলিক অধিকার প্রতিষ্ঠিত হবে। জনগণের জানমাল, ইজ্জত-আব্রুর নিরাপত্তা নিশ্চিত হবে। বিশ্বের বুকে আপোষহীন ও মর্যাদা নিয়ে জাতি সমৃদ্ধির দিকে এগিয়ে যাবে। কিন্তু দুর্ভাগ্যের বিষয় আদর্শহীন নেতৃত্ব ও অপশক্তির অপশাসনের কারণে স্বাধীনতার ৪৭ বছর অতিবাহিত হওয়ার পরও জনগণের সে স্বপ্ন পূরণ হয়নি। বরং ক্ষমতাকে দীর্ঘায়িত করতে সরকার জনগণের মৌলিক অধিকার কেড়ে নিয়েছে। দেশে চলছে সীমাহীন দুর্নীতি, সন্ত্রাস, লুটপাট, হত্যা, ধর্ষণ, গুম, অপহরণ ও নৈরাজ্য। অব্যাহত রাষ্ট্রীয় সন্ত্রাস, হত্যা, খুন, গুম, অপহরণ, দুর্নীতি, দুঃশাসন, দলীয়করণ, বাক-স্বাধীনতা ও বিচার বিভাগের স্বাধীনতা হরণ ও মানবাধিকার লঙ্ঘনের ঘটনায় রক্তে অর্জিত স্বাধীন এদেশ আজ ভীতির উপত্যকায় পরিণত হয়েছে। স্বাধীনতার চেতনা দেশ ও জাতির কল্যাণে নয় বরং রাজনৈতিক পুঁজিতে পরিণত হয়েছে। যা একদিকে মহান মুক্তিযুদ্ধের আত্মত্যাগকারীদের রক্তের সাথে প্রতারণা অন্যদিকে জাতির জন্য চরম হতাশার বিষয়।
তিনি আরো বলেন, স্বাধীনতার স্বপ্ন পূরণের নেয়ামক শক্তি তরুণ সমাজ। কিন্তু সে প্রত্যাশা পূরণের বিপরীতে তরুণদের একাংশ আজ বিপথগামী। শুধু বিপথগামীই নয়, তারা আজ ভয়ঙ্কর সর্বনাশা পথে হাঁটছে। মাদক, সন্ত্রাসের ভয়ঙ্কর পথ তরুণদের শেষ করে দিচ্ছে। ক্ষমতার মোহে অন্ধ সরকার  তরুণ সমাজকেই নিজেদের রাজনৈতিক স্বার্থে ব্যবহার করেছে। তরুণদের মেধাকে কাজে না লাগিয়ে উল্টো দেশ থেকে মূল্যবান মেধা সম্পদ বিদেশে পাচার করা হয়েছে। পরিকল্পিত ভাবে তরুণদের জীবন ধ্বংস করে দেয়ার জন্য পার্শ্ববর্তী দেশ থেকে মাদক ইয়াবা অবৈধ অস্ত্র দেশে অবাধে প্রবেশ করানো হচ্ছে। আকাশ সংস্কৃতি ও পার্শ্ববর্তী দেশের নোংরা সংস্কৃতির প্রভাবে তরুণদের মেধা মনন ধ্বংস করে দিচ্ছে।
তিনি বলেন, শত হতাশা ও অপ্রাপ্তির পরও আজকের তরুণ সমাজ দেশ-জাতির অগ্রগতি উন্নয়নে অবদান রাখবে এটাই জাতির প্রত্যাশা। জাতির সেই স্বপ্ন পূরণে তরুণ সমাজকেই দায়িত্ব নিতে হবে। স্বাধীনতার পূর্ণতা ও জনগণের প্রত্যাশা পূরণে নিজেদেরকে সর্বোচ্চ যোগ্য করে গড়ে তুলতে হবে। কল্যাণময় সমাজ ও রাষ্ট্র উপহার দিতে নিজেদেরকে নৈতিক ভাবে গড়ে তোলার বিকল্প নাই। কুরআনের আলোকে গড়ে তুলে যোগ্য ও নৈতিকতা সম্পন্ন নেতৃত্বে ঘাটতি পূরণ করতে হবে। রাসূল সা. এর আদর্শকে ধারণ করেই স্বাধীনতার স্বপ্ন পূরণ সম্ভব। ছাত্রশিবির দেশের স্বাধীনতা ও সার্বভৌম রক্ষার স্বপ্ন বাস্তবায়নে দৃঢ় প্রতিজ্ঞ। এ সংগঠন এমন একদল যোগ্য নাগরিক তৈরী করতে চায় যারা জাতির প্রত্যাশা বাস্তবায়ন করবে। যে কোন মূল্যে আমাদের এ প্রচেষ্টা অব্যাহত থাকবে ইনশাআল্লাহ। প্রেস বিজ্ঞপ্তি।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ