সোমবার ১২ এপ্রিল ২০২১
Online Edition

বিএনপি এদেশে ভেসে আসেনি -ফারুক

গতকাল বুধবার জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে দেশ বাঁচাও মানুষ বাঁচাও আন্দোলনের উদ্যোগে দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়া ও শামসুজ্জামান দুদুসহ নেতা-কর্মীদের মুক্তির দাবিতে মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করা হয় -সংগ্রাম

স্টাফ রিপোর্টার : বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়াকে একটি কাল্পনিক মামলায় কারাগারে রেখে আগামী নির্বাচন সুষ্ঠু হবে এটা কি বিশ্বাস করা যায়? এমন প্রশ্ন রেখে বিএনপির চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা ও সাবেক বিরোধীদলীয় চিফ হুইপ জয়নুল আবদীন ফারুক বলেছেন, বেগম খালেদা জিয়াসহ বিএনপির অসংখ্য নেতাকর্মী কারাগারে থাকবে আর বর্তমান সরকার প্রধানের অধীনে নির্বাচন হবে, সেই নির্বাচন সুষ্ঠু হবে-  এটা কি করে বিশ্বাস করা যায়? বিএনপি এদেশে ভেসে আসেনি। বিএনপি এমন একটি নেতার দল যে নেতা এ দেশের স্বাধীনতা ঘোষণা করেছেন। সেই জন্য আমরা মনে করি এই সরকার অতিরিক্ত চিন্তা ভাবনা করছেন। এটা থেকে তাদেরকে বেরিয়ে আসতে হবে।
গতকাল বুধবার জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে ‘দেশ বাঁচাও মানুষ বাঁচাও আন্দোলন আয়োজিত’ বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়া দলটির ভাইস-চেয়ারম্যান শামসুজ্জামান দুদু, যুগ্ম-মহাসচিব সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল সহ-সকল রাজবন্দীর মুক্তির দাবিতে মানববন্ধনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।
 জয়নুল আবদীন ফারুক বলেন, একজন সেক্টর কমান্ডার স্বাধীনতার ঘোষকের সহধর্মিনী গণতন্ত্রের মা দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে একটি কাল্পনিক মামলায় কারাগারে আটক রাখা হয়েছে। তাই আমাদের বক্তব্য একটি আমাদের নেত্রী বেগম খালেদা জিয়াসহ বিএনপির সিনিয়র অনেক নেতা কারাগারে আছেন, অবিলম্বে তাদেরকে মুক্তি দিতে হবে।
 বিএনপির এই নেতা বলেন, আমি বুঝতে পারি না এই সরকার কি চিন্তা করছে? যদি সরকার প্রধান সব দলকে নিয়ে একটি নির্বাচন করতে চায় তাহলে সরকারের উচিত এই নির্বাচনের বছরে নির্বাচনকালে সহ্য সীমা অতিক্রম না করে ধৈর্য ধারণ করা। তাই তাদের উচিৎ বিএনপিকে  জনসভাসহ- শান্তিপূর্ণ কর্মসূচি পালন করতে দেয়ার, পাশাপাশি যেহেতু বেগম জিয়াকে হাইকোর্ট জামিন দিয়েছেন সেই জামিনে যেন তিনি মুক্ত হয়ে দেশবাসীর কাছে যেতে পারেন এবং নির্বাচনে অংশগ্রহণ করতে পারে, সেই ব্যবস্থা করা।
 ফারুক আরও বলেন, আমাদের মহাসচিব বলেছেন বেগম জিয়াকে কারাগারে রেখে বিএনপি নির্বাচনে যাবে না। তিনি বের হলে আমরা চিন্তা ভাবনা করে দেখবো যেহেতু বিএনপি একটি নির্বাচনমুখী দল। বিএনপি নির্বাচনের জন্য সব সময় প্রস্তুত আছে।
এ সময় তিনি প্রধানমন্ত্রীকে উদ্দেশ্য করে বলেন, আপনি বেগম জিয়াকে মুক্ত করে সুষ্ঠু নির্বাচনের স্বার্থে তার দাবি মেনে নিলে আগামী ১ সপ্তাহের মধ্যে জাতীয় সংসদ নির্বাচন হলে আমরা প্রস্তুত আছি।
 আয়োজক সংগঠনের সভাপতি কেএম রকিবুল ইসলাম রিপনের সভাপতিত্বে মানববন্ধনে আরও বক্তব্য দেন বিএনপি চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা আব্দুস সালাম, হাবিবুর রহমান হাবিব, প্রশিক্ষণবিষয়ক সম্পাদক এবিএম মোশাররফ হোসেন, ন্যাপের মহাসচিব এম গোলাম মোস্তফা ভূইয়া, এনডিপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মঞ্জুর হোসেন ঈশা, বংশাল থানা কৃষকদলের সভাপতি আব্দুর রাজি প্রমুখ।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ