রবিবার ২৯ নবেম্বর ২০২০
Online Edition

ভারতের কেন্দ্রীয় সরকার বিভাজনের রাজনীতি করছে

২৫ মার্চ পার্স টুডে : ভারতের পশ্চিমবঙ্গের জামায়াতে ইসলামী হিন্দের সভাপতি মুহাম্মদ নূরুদ্দিন বলেছেন, ‘দেশে কেন্দ্রীয় সরকার বিভাজনের রাজনীতি করছে। মেরুকরণের মাধ্যমে হিন্দু-মুসলিমের মধ্যে বিভেদ ছড়াতে চাচ্ছে। তারা রাজনৈতিক সহিংসতা ছড়িয়ে মানুষের মধ্যে ত্রাস সৃষ্টি করতে চাচ্ছে।’
তিনি গতকাল রোববার পশ্চিমবঙ্গের হাওড়া জেলার উলুবেড়িয়ায় সোসাইটি আপ্লিমেন্ট সেন্টারে তাজকিয়া ক্যাম্পে ‘দেশের বর্তমান রাজনৈতিক পরিস্থিতি, সহিংসতা ও আমাদের করণীয়’ শীর্ষক আলোচনায় ভাষণ দেয়ার সময় ওই মন্তব্য করেন। গত শনিবার থেকে তাজকিয়া ক্যাম্প শুরু হয়ে গতকাল রোববার তা শেষ হয়।
মুহাম্মদ নূরুদ্দিন বলেন, ‘দেশের অর্থনৈতিক অবস্থা ভেঙে পড়া সত্ত্বেও সরকারের এ ব্যাপারে কোনো গঠনমূলক উদ্যোগ লক্ষ্য করা যাচ্ছে না। ‘নন ইস্যু’কে ‘ইস্যু’ করে মানুষে মানুষে বিভেদ সৃষ্টি করা এখন একটা বড় সমস্যা আকারে দেখা দিয়েছে। জামায়াত কর্মীদের এ বিষয়ে সদর্থক ভূমিকা পালন করতে হবে।’
তিনি বলেন, ‘পৃথিবীতে কোনো বিভেদকামী শক্তি, কোনো ভাঙার শক্তি তারা জয়লাভ করতে পারে না, তারা শক্তিশালী হতে পারে না। জামায়াতকে এ ব্যাপারে গঠনমূলক কাজের মাধ্যমে হিন্দু-মুসলিম-বৌদ্ধ-খ্রিস্টান সবাইকে ভাই ভাই হয়ে একসঙ্গে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে দেশের ঐক্য অক্ষুণœ রাখতে হবে।’
মুহাম্মদ নূরুদ্দিন বলেন, ‘এ দেশের সাধারণ মানুষ জাতি-ধর্ম নির্বিশেষে সকলেই মিলেমিশে থাকতে চায়। সকলেই সমস্ত সাম্প্রদায়িক ও বিভেদকামী শক্তির বিরুদ্ধে ঐক্যবদ্ধ থাকতে চায়। এটাই ভারতের শক্তি। ভারত ‘বৈচিত্রের মধ্যে ঐক্য’কে পছন্দ করে। ভারতের এই আত্মিক শক্তিকে ভিত্তি করে আমাদের এগিয়ে যেতে হবে। আমাদেরকে মানুষের সততা, ন্যায় ও ইনসাফের দিকে আহ্বান জানাতে হবে। যাদের প্রতি অত্যাচার ও জুলুম চলছে তাদের পাশে নিঃস্বার্থভাবে দাঁড়াতে হবে।’
ওই অনুষ্ঠানে জামায়াতে ইসলামী হিন্দের পশ্চিমবঙ্গের মজলিসে শূরার সদস্য নাসীম আলী, সাবেক রাজ্য সভাপতি রহমত আলী খান, রাজ্য সম্পাদক মুহাম্মদ রফিক হাওড়া জেলার সাবেক নাজিম হেদায়েত আলী, হাওড়া জেলা মিডিয়া সেলের দায়িত্বশীল শেখ লিয়াকত হোসেন প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ