সোমবার ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২০
Online Edition

সাউথ এশিয়ান আরচারি চ্যাম্পিয়নশিপ ঢাকায় শনিবার শুরু

স্পোর্টস রিপোর্টার: দীর্ঘ ১০ বছর বিরতির পর অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে সাউথ এশিয়ান আরচ্যারি চ্যাম্পিয়নশীপ। বাংলাদেশ আরচ্যারি ফেডারেশনের ব্যবস্থাপনায় আগামী ২৪ হতে ২৭ মার্চ বিকেএসপিতে অনুষ্টিত হবে এই টুর্নামেন্ট। যেখানে সাউথ এশিয়ার ৪টি দেশের রিকার্ভ ও কম্পাউন্ড ডিভিশনে ৬৩ জন পুরুষ ও মহিলা আরচ্যার অংশগ্রহণ করবেন।এই টুর্নামেন্ট উপলক্ষ্যে বাংলাদেশ অলিম্পিক এসোসিয়েশনের ডাচ্-বাংলা ব্যাংক অডিটোরিয়ামে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে আয়োজকরা জানায়,সাফ আরচারি চ্যাম্পিয়নশিপের যাত্রা শুরু হয়েছিল ২০০৬ সালে বিকেএসপি থেকে। দুই বছর পর দ্বিতীয় আসর বসেছিল ভারতের জামসেদপুরে। তারপর আর আলোর মুখ দেখেনি এ টুর্নামেন্ট। অবশেষে দীর্ঘ ১০ বছর পর আবারও আলোর মুখ দেখছে দক্ষিণ এশিয়ার আরচারদের সবচেয়ে বড় এ টুর্নামেন্ট।তৃতীয় আসরের আয়োজকও বাংলাদেশ, ভেন্যু সেই বিকেএসপি। আগামী বুধবার বাংলাদেশ, ভারত, নেপাল ও শ্রীলংকাকে নিয়ে শুরু হবে চ্যাম্পিয়নশিপ।দক্ষিণ এশিয়ার এ টুর্নামেন্টে বাংলাদেশের আরচারদের সাফল্য রৌপ্যের মধ্যেই সীমাবদ্ধ। তবে এবার জার্মান কোচ মার্টিন ফ্রেডরিখের প্রশিক্ষনে ভালো ফলাফল প্রত্যাশা করছে বাংলাদেশ আরচারি ফেডারেশন। সংবাদ সম্মেলনে ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক কাজী রাজীব উদ্দিন আহমেদ চপল বলেছেন, ‘আমাদের লড়াইটা হবে ভারতের সঙ্গে। স্বর্ণ জিতবে আমাদের ছেলেরা তা নিশ্চিত বলছি না। তবে আগের চেয়ে ভালো করবে।টুর্নামেন্টে চার দেশের আরচাররা লড়বে ৩০ টি (১০ স্বর্ণ, ১০ রৌপ্য ও ১০ তা¤্র) পদকের জন্য। চার দেশের ৬৩ জন আরচার অংশ নেবে প্রতিযোগিতায়। রিকার্র্ভ পুরুষ একক, মহিলা একক, পুরুষ দলীয়, মহিলা দলীয়, মিশ্র দলীয়, কম্পাউন্ড পুরুষ একক,মহিলা একক, পুরুষ দলীয়, মহিলা দলীয় ও মিশ্র দলীয়-এই ১০ ইভেন্টে খেলা হবে।

 টোকিও অলিম্পিকে চোখ রেখে ‘গোল ফর গোল্ড’ পরিকল্পনা হাতে নিয়েছে বাংলাদেশ আরচারি ফেডারেশন। এ পরিকল্পনা বাস্তবায়নে ফেডারেশন ৫ বছরের জন্য নিয়োগ দিয়েছে জার্মান কোচ মার্টিন ফ্রেডরিখকে। মাসখানেক আগে দায়িত্ব নেয়া এ কোচের অনুশীলনে কতটা উন্নতি করেছেন আরচাররা তার একটা পরীক্ষা হয়ে যাবে এই টুর্নামেন্টে।প্রতিযোগিতার জন্য ইতোমধ্যে দলও চূড়ান্ত করেছেন আরচারির নতুন কোচ। টিম অফিসিয়ালরা জানায়, জার্মান কোচের বাছাই প্রক্রিয়ায়ও ছিল নতুনত্ব। ৮০ জন তীরন্দাজ নিয়ে প্রাথমিক ক্যাম্প শুরু করেছিলেন তিনি। ট্রায়ালের মাধ্যমে কোচ বেছে নিয়েছেন সাউথ এশিয়ান চ্যাম্পিয়নশিপের জন্য ১৬ খেলোয়াড়। বাছাইয়ের প্রক্রিয়াটা ছিল টুর্নামেন্টের আদলে। যেখানে প্রথমে র‌্যাংকিং নির্ধারণ করে সেভাবে মুখোমুখি করা হয়েছিল তীরন্দাজদের।স্বাগতিক হিসেবে বাংলাদেশের দুটি দল থাকছে টুর্নামেন্টে। প্রথম দলটি ১৬ জনের হলেও দ্বিতীয় দলটিতে খেলোয়াড় কিছু কম থাকবে। আসলে ওই দলে তরুণদের সুযোগ দেয়া হবে আগামীর কথা চিন্তা করে জানালেন সাধারন সম্পাদক। সংবাদ সম্মেলনে আরো উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ আরচ্যারী ফেডারেশনের সহ-সভাপতি মো: আনিসুর রহমান দিপু,বাংলাদেশ ক্রীড়া শিক্ষা প্রতিষ্ঠান (বিকেএসপি) এর মহাপরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মো: সামছুর রহমান সহ ফেডারেশনের কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্যবৃন্দ।

সাউথ এশিয়ান চ্যাম্পিয়নশিপে বাংলাদেশ ‘এ’ দল

রিকার্ভ পুরুষ দল : রোমান সানা, তামিমুল ইসলাম, হাকিম আহমেদ রুবেল, মোহাম্মদ ইব্রাহিম শেখ রেজওয়ান।

কম্পাউন্ড পুরুষ দল : আবুল কাশেম মামুন, আশিকুজ্জামান অনয়, রতন মিয়া ও অসীম কুমার দাস।

রিকার্ভ মহিলা দল : বিউটি রায়, নাসরিন আক্তার, রাবেয়া খাতুন ও রাদিয়া আক্তার শাপলা।

কম্পাউন্ড মহিলা দল : রোকসানা আক্তার, সুস্মিতা বণিক, সোমা বিশ্বাস ও বন্যা আক্তার।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ