বৃহস্পতিবার ০৪ জুন ২০২০
Online Edition

খালিশপুর থানায় আবারো আসামী নির্যাতনের অভিযোগ

খুলনা অফিস : খুলনার খালিশপুর থানায় আবারো আসামী নির্যাতনের অভিযোগ উঠেছে। গত ৬ মার্চ খালিশপুরের আলমনগর এলাকা থেকে ইউসুফ নামে এক মাছ ব্যবসায়ীকে গাঁজাসহ গ্রেফতার করে খালিশপুর থানা পুলিশ। পরে তাকে মাদক মামলায় কারাগারে পাঠানো হলেও বর্তমানে সে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের প্রিজনসেলে চিকিৎসাধীন রয়েছে। থানায় নির্যাতনে তার বাম পা ভেঙে গেছে বলে অভিযোগ করা হয়েছে আসামীর পরিবারের পক্ষ থেকে। উন্নত চিকিৎসার জন্য তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করা হচ্ছে বলে জেলখানা সূত্রে জানা গেছে।
ভুক্তভোগী ইউসুফ জানিয়েছে, গত ৬ মার্চ তারিখে রাত ৯টার দিকে খালিশপুর থানার এসআই নিজামসহ কয়েকজন পুলিশ তাকে গাঁজাসহ গ্রেফতার করে। পরে থানায় নিয়ে রাতভর নির্যাতন চালায়। সে নিজে একজন মাদকসেবী বলে স্বীকার করেন। পরে সকালে মাদক মামলায় আদালতে প্রেরণ করে। জেলখানায় গিয়ে ভাঙা পা নিয়ে এতদিন কাতরাতে থাকে। পরে জেল কর্তৃপক্ষ তাকে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের প্রিজন সেলে নিয়ে আসে। তার বাম পা সম্পূর্ণ ভেঙে গেছে। পায়ে অস্ত্রোপচারের প্রয়োজন বিধায় তাকে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল থেকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তরের সুপারিশ করা হয়েছে।
ইউসুফের পরিবার সূত্রে জানা যায়, খালিশপুরের আলমনগরের বাসিন্দা মৃত মোর্ত্তজার ছেলে ইউসুফ একজন মাছ ব্যবসায়ী। তাকে গত ৬ মার্চ পুলিশ মাদকসহ গ্রেফতার করে। এখন সে হাসপাতালে পা ভাঙা অবস্থায় রয়েছে। তারা জানায় তাদের সন্তান যদি অন্যায় করে আইন অনুযায়ী তার বিচার হলে আপত্তি নেই। পুলিশে নিয়ে নির্যাতন করে হাত পা ভেঙে দিয়ে ফেলে রাখবে বিনা চিকিৎসায় তাহলে দেশে আইনের শাসন কোথায় থাকলো।
খালিশপুর থানার এসআই নিজাম বলেন, ইউসুফকে মোটরসাইকেলে করে থানায় নিয়ে যাওয়ার সময়ে লাফিয়ে পালিয়ে যাওয়ার সময় পায়ে ব্যথা পায় পরে তাকে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতলে নিয়ে যাই। চিকিৎসা শেষে নিয়ম অনুযায়ী আদালতে চালান করা হয়। সেখানে চিকিৎসার দায়িত্ব জেল কর্তৃপক্ষের। নির্যাতনের বিষয়টি সম্পূর্ণ মিথ্যা বলে জানান তিনি।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ